Viva Preparation (বিসিএস প্রশাসন)

Viva Preparation

বিসিএস প্রশাসন 

 

প্রশাসন: প্রশাসনের ইংরেজি শব্দ Administration. Administration শব্দটি উদ্ভব হয়েছে দুটি ল্যাটিন শব্দ AD ও Ministire শব্দ থেকে। অর্থ সেবা এবং অর্থ ব্যবস্থাপনা। অর্থাৎ প্রশাসন শব্দের অর্থ হচ্ছে কাজের ব্যবস্থাপনা, সাধারণত প্রশাসন বলতে উত্তম শাসন ব্যবস্থাকে বুঝায়।

 

* গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রথম সচিব হিসেবে নিয়োগ পান-মোহাম্মদ নুরুল কাদের খান। নিয়োগ-২৪ এপ্রিল,

১৯৭১ সাল।

* তিনটি মন্ত্রণালয় ভেঙ্গে প্রশাসনে গঠিত হচ্ছে নতুন ৭টি বিভাগ। বিভাগগুলো হল-

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ভেঙ্গে গঠিত হচ্ছে তিনটি বিভাগ-

  1. উচ্চ শিক্ষা বিভাগ ২. মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগ এবং ৩. কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভেঙ্গে গঠিত হচ্ছে দু’টি বিভাগ-

  1. জননিরাপত্তা বিভাগ ও ২. সুরক্ষা সেবা বিভাগ। এছাড়া

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ভেঙ্গে গঠিত হচ্ছে দু’টি বিভাগ-

  1. স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ এবং ২. স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ।

 

* Governor শাসিত অঞ্চলে/রাজ্যে জেলার প্রধান ছিলেন-District Magistrate (DM) এবং Chief

Commissioner শাসিত অঞ্চলে জেলার প্রধান ছিলেন-Deputy Commissioner (DC). যেমন-সিলেট ও পার্বত্য

চট্রগ্রামে  ছিল Deputy Commissioner (DC)।

* বাদশা আকবর এর আমলে একটি প্রদেশকে সুবাহ বলা হত এবং সুবাহ এর প্রধানকে নাজিম বলা হত। তবে, সাধারণ মানুষ

সুবাহ এর প্রধানকে সুবাদার/Governor বলত।

* বাদশা আকবর এর আমলে জেলাকে বলা হত সরকার এবং সরকারের প্রধানকে বলা হত ফোজদার।

* বর্তমানে সিনিয়র সচিবের পদ১৪টি।

* বর্তমান মন্ত্রিপরিষদ সচিব-মোহাম্মদ শফিউল আলম।

* বর্তমান জনপ্রশাসন সচিব-ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী।

* মন্ত্রী কর্তৃক সংসদে উত্থাপিত বিলকে সরকারি বিল এবং সংসদ সদস্য কর্তৃক সংসদে উত্থাপিত বিলকে বেসরকারি বিল বলে।

* ২০০১ সালের ২০ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো মহিলা ডিসি নিয়োগ করা হয়।

* Bill/Act/Law: সংসদে উত্থাপিত আইনের খসড়াকে Bill, খসড়া পাশ হলে Act এবং মহামান্য রাষ্ট্রপতি স্বাক্ষর করলে Law বলে।

* Rule: Act-কে কার্যকরী করার জন্য যে সমসত্ম বিধি-বিধানের প্রয়োজন হয় তাকে Rule বলে। যেমন পি, আর, বি। সরকারী কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপীল) বিধিমালা, ১৯৭৯।

* Order: সংবিধান যদি না থাকে তখন মহামান্য রাষ্ট্রপতি যে আদেশবলে বা আইনবলে দেশ পরিচালনা করেন তাকে Order বলে। যেমন-পি,ও-৯।

* AC Land-এর কার্যাবলি: ১) ভূমি ব্যবস্থাপনা ২) ভূমির খাজনা, টোল, ফি আদায় ৩) ভূমি রেকর্ড সংরক্ষণ এবং ৪) জেলা প্রশাসক  প্রদত্ত অন্যান্য কাজ।

* বাংলাদেশ সংবিধানের ১১৭ ধারা অনুযায়ী সরকারি কর্মচারীদের চাকরি সংক্রামত্ম বিচার কার্যাবলির আদালতকে প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনাল বলে।

* প্রেসনোট: সরকারের কোন বিজ্ঞপ্তি Media-এর মাধ্যমে প্রকাশ করাকে প্রেসনোট বলে।

* গেজেট: রাষ্ট্রপতি কর্তৃক বা রাষ্ট্রপতির নামে স্বাক্ষরিত সরকারি বিজ্ঞপ্তিকে গেজেট বলে।

* প্রেস রিলিজ: কোন ঘটনার সংক্ষিপ্ত বিবরণ প্রকাশকে প্রেস রিলিজ বলে।

* স্থানীয় সরকারের সত্মর তিনটি-জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদ এবং ইউনিয়ন পরিষদ।

* ১৭৭৪ সালে ওয়ারেন হেস্টিংস কেন্দ্রীয় সরকার (সেন্ট্রাল গভর্নমেন্ট) গঠন করেন।

* ১৭৮১ সালে ওয়ারেন হেস্টিংস প্রথম যশোরকে জেলায় পরিণত করেন।

* ১৮২৯ সালে উইলিয়াম বেন্টিং বাংলায় সর্বপ্রথম বিভাগ প্রবর্তন করেন।

* ১৮৩৫ সালে লর্ড বেন্টিং খুলনায় সাবডিভিশনাল অফিসার নিয়োগের মাধ্যমে মহকুমা প্রবর্তন করেন।

* ১৯৮২-৮৪ সালে সকল মহকুমাকে জেলায় রূপাসত্মর করা হয়। সর্বশেষ জেলা বরগুনা।

* পয়েন্ট অব অর্ডার: সংসদের কার্যপ্রনালী বিধির ৭১ ধারা মোতাবেক তাৎক্ষণিক কোন বিষয়ের উপর আলোচনা করতে চাওয়ার বিধানকে পয়েন্ট অব অর্ডার বলে।

* মুলতবী প্রসত্মাব: পূর্বে বহাল ছিল কিন্তু বর্তমানে নেই এমন বিষয় প্রসত্মাব করার প্রক্রিয়াকে মুলতবী প্রসত্মাব বলে।

* তারকা চিহ্নিত প্রশ্ন: নির্দিষ্ট বিষয়ে নির্দিষ্ট মন্ত্রীর নিকট প্রশ্ন করাকে তারকা চিহ্নিত প্রশ্ন বলে।

* প্রশাসন কেন firsrt Choice?

স্যার! প্রশাসন আমার firsrt Choice কারণ-সরাসরি জনগণের সেবা করা যায়।

সামাজিক মর্যাদা অন্যান্য পেশার তুলনায় অনেক বেশি।

দেশের আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে প্রত্যক্ষভাবে অবদান রাখা যায়।

নীতি নির্ধারণে ভূমিকা রাখা যায়।

আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরম্নত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখা যায়। (এই প্রশ্নের উত্তর আপনার নিজের মতো করে ঠিক করে নিবেন)

* সাধারণত প্রশাসন দুই প্রকার। যথা-

১) সরকারী বা জন প্রশাসন এবং

২। বেসরকারি প্রশাসন।

* সরকারি ও বেসরকারি প্রশাসনের মধ্যে পার্থক্য:

সরকারি প্রশাসন এমন সব কার্যাদি নিয়ে গঠিত যেগুলোর উদ্দেশ্য হচ্ছে যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ঘোষিত সরকারি নীতির পরিপূরণ অথবা বাসত্মবায়ন। অন্যদিকে বেসরকারি প্রশাসন বলতে এমন প্রশাসনকে বুঝায় যা ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রশাসন নিয়ে কাজ করে থাকে। বেসরকারি প্রশাসনের তুলনায় সরকারি প্রশাসনের আওতা বা পরিধি অনেক বিসত্মৃত।

* সুপ্রিম কোটের বিচারক নিয়োগ করেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি। সুপ্রিম কোর্টের বিচারকদের অবসর গ্রহণের বয়স ৬৭ বছর।

* সুপ্রিম কোর্টের বিচারক হওয়ার যোগ্যতা:

ক) বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে। খ) সুপ্রিম কোর্টে কমপক্ষে ১০ বছর অ্যাডভোকেট থাকতে হবে অথবা বাংলাদেশের অভ্যমত্মরে কোন অধ:সত্মন আদালতের দশ বছরের চাকরি এবং তিন বছর জেলা জজ হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

*পাবালিক পলিসি: সরকার কর্তৃক নির্দিষ্ট লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সাধনের জন্য যে সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় তাকে পাবলিক পলিসি বলে।

* দেওয়ানী মামলার বাদীকে Plaintiff এবং সিভিল মামলার বাদীকে Petitioner বলে।

* দেশে ২০০২ সালের মার্চ মাসে পলিথিন ব্যাগ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়।

* বাংলাদেশ ১৯৮৮ সালে সর্বপ্রথম জাতিসংঘ শাসিত্মরক্ষা মিশনে অংশগ্রহণ করে। প্রথম মিশন ছিল ইরাক-ইরান, মিশনের নাম

UNIMOG.

* সংসদ সদস্য হওয়ার ন্যূনতম বয়স ২৫ বছর। রাষ্ট্রপতি ব্যতীত সকল পদে নির্বাচিত হওয়ার ন্যূনতম বয়স ২৫ বছর।

* জেনারেল ক্লজেজ এ্যাক্ট এর ৩(৩২) ধারা অনুযায়ী যাঁরা ম্যাজিস্ট্রেটের কর্তব্য পালন করেন তাঁরাই ম্যাজিস্ট্রেট।

* জেনেভা কনভেনশন ১৯৪৯ সালের ১২ আগস্ট সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় বিশ্বের ৫৮টি দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে স্বাক্ষরিত

হয়।

* স্টেট অব ইউনিয়ন এড্রেস (ভাষণ) হল-যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের বছরের প্রথম ভাষণ।

* বাংলাদেশের সরকারি নাম-গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার (The People’s Republic of Bangladesh)

* সরকার কর্তৃক পরিচালিত ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানকে Public Enterprize বলে।

* বিসিএস প্রশাসনের একজন নবাগত কর্মকর্তা সহকারী কমিশনার হিসেবে যোগদান করেন।

* প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তাকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব বলে।

* বাংলাদেশের শাসন ব্যবস্থার সব মূলনীতি চূড়ামত্মভাবে প্রণীত ও গৃহীত হয়-সচিবালয়ে।

* ঘোষিত অপরাধী হচ্ছে সেই ব্যক্তি যার বিরম্নদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করা হয়েছে এবং সে আত্মগোপনে আছে।

* প্রশাসনের ত্রম্নটিসমুহ হলো-আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, লাল ফিতার দৌরাত্ম, দুর্নীতি, রাজনৈতিক প্রভাব, আইনগত জটিলতা

ইত্যাদি।

* লর্ড ব্রাইসের মতে সুনাগরিকের ৩টি গুণ হলো-১) বুদ্ধিমত্তা ২) আত্মসংযম এবং ৩) বিবেক।

* Cr. Pc এর উদ্দেশ্য: ফৌজদারী বিচারকার্য পরিচালনার জন্য এবং ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ এর কার্যাবলী, ক্ষমতা এবং দায়িত্ব

নির্ধারনের জন্য Cr. Pc প্রণীত হয়।

* আমলযোগ্য অপরাধের উদাহরণ হলো-ডাকাতি, চুরি, খুন, ধর্ষণ, এসিড নিক্ষেপ, সন্ত্রাস প্রভৃতি।

* আমল অযোগ্য অপরাধের উদাহরণ হলো-মারপিট, আঘাত, ভীতি প্রদর্শন ইত্যাদি।

* ৩৯৯ ধারায় তরম্নণ অপরাধীর চরিত্র সংশোধনের জন্য আটক রাখার বিধান রাখা হয়েছে।

* বাংলাদেশে বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষা আইন পাশ হয়-১৯৯০ সালে।

* ’দায়মুক্তি অধ্যাদেশ’ জারি করা হয় ৯ জানুয়ারি, ২০০৩ সালে।

* বাংলাদেশ ব্যাংকের বর্তমান গভর্ণর-মোঃ ফজলে কবির।

* দলিল, দাখিলা এবং দখল এই তিনটি ভুমির মালিকানা নিশ্চিত করে।

* Copasenor অর্থ একান্নবর্তী পরিবার।

* ’নারী ও শিশু পাচার’ বাংলাদেশের পারিবারিক আদালতের আওতায় পড়ে না।

* উপজেলা নির্বাচন হয় মোট ৪ বার। (১৯৮৬, ১৯৯০, ২০০৯ এবং ২০১৪)

* Fifth Column বা পঞ্চম বাহিনী হচ্ছে দেশের স্বার্থ বিরোধী কর্মকা– লিপ্ত ব্যক্তিবর্গ।

* বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের বর্তমান আসন সংখ্যা-৩৫০ টি এর মধ্যে সংরক্ষিত ৫০ টি।

* বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের প্রথম স্পীকার ছিলেন-মোহাম্মদ উলস্নাহ।

* বাংলাদেশে বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে স্থানীয় শাসন বিদ্যমান।

* মুসলিম পারিবারিক আইন পাশ হয় ১৯৬১ সালে।

* বাংলাদেশের রাষ্ট্রপ্রধান হলেন-রাষ্ট্রপতি এবং সরকার প্রধান হলেন-প্রধানমন্ত্রী।

* মন্ত্রিপরিষদ সচিব হলেন বাংলাদেশের সবচেয়ে মর্যাদাসম্পন্ন সচিব।

* সিভিল ‘ল’ বলতে আদালত কর্তৃক বলবৎযোগ্য প্রচলিত আইনসমূহকে বুঝায়।

* রাষ্ট্রের মৌলিক উপাদান চারটি। যথা-

১) নির্দিষ্ট সীমানা (ভূখ-) (Defined Territory) ২) জনসংখ্যা (Population)৩)    সরকার (Government) এবং ৪)  সার্বভৌমত্ব (Sovereignty)

* তিনটি বিদেশি জার্নাল হচ্ছে-আনন্দলোক, টাইম ম্যাগাজিন এবং রিডার’স ডাইজেস্ট।

 

 

* বাংলাদেশে তিনটি প্রতিষ্ঠান উন্নয়ন বরাদ্দ দিতে পারে। যথা-

ক) মন্ত্রণালয়          : ২০ লাখ টাকা পর্যমত্ম।

খ) PC                : ২০ লাখের বেশি কিন্তু ২কোটির কম।

গ) ECNEC        : ২ কোটি ও তার উপরে।

* ভারতের রাষ্ট্রভাষা হিন্দি এবং সাংবিধানিক ভাষা-১৮টি।

* Rules of Law বা আইনের শাসন: আইনের শাসন বলতে ৪টি বিষয়কে নির্দেশ করে। যথা-

ক) সংবিধানের সার্বভৌমত্ব খ) বিচার বিভাগ নির্বাহী বিভাগ থেকে পৃথকীকরণ (সংবিধানের অনুচ্ছেদ-২২)

গ) আইনের দৃষ্টিতে সকলে সমান। (সংবিধানের অনুচ্ছেদ-২৭) এবং ঘ) রাষ্ট্র ও জনগণের মধ্যকার সম্পর্ক নিয়ন্ত্রীত হবে

আইনের দ্বারা।

* বাংলাদেশে আইনের শাসন বিদ্যমান আছে কি?

বাংলাদেশে আইনের শাসন বিদ্যমান আছে। কারণে বাংলাদেশে উপর্যুক্ত ৪টি বিষয় বিদ্যমান আছে। তথাপি ২টি ক্ষেত্রে আইনের শাসনের কিছুটা বিচ্যুতি রয়েছে। যথা-১) বিচার বিভাগ নির্বাহী বিভাগ হতে সম্পূর্ণরূপে স্বাধীন নয় কারণ সংবিধানের ১১৬ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নিমণ আদালতের বিচারকগণের পদোন্নতি, বদলি, ছুটি এবং অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা নিয়ন্ত্রণ করেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি। এছাড়া বিচার বিভাগের সতন্ত্র সচিবালয় নেই। ২) উচ্চ আদালত তথা হাইকোর্ট ও আপিল বিভাগ সম্পর্ণরূপে স্বাধীন নয়।

 

* কিভাবে বিচার বিভাগকে নির্বাহী বিভাগ থেকে সম্পূর্ণ পৃথক করা সম্ভব?

বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে হলে-১) নিমণ/অধসত্মন আদালতের বিচারকগণের নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা রাষ্ট্রপতির দপ্তর থেকে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল এর হাতে হসত্মাসত্মর করতে হবে। এবং ২) বিচার বিভাগের জন্য সতন্ত্র সচিবালয় প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

* সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল: যে প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিচারকদের নিয়োগ, বদলি, পদোন্নতি, আচরণবিধি নির্ধারণ ও নিয়ন্ত্রিত হয় তাকে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল বলে।

* সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল এর গঠন: বাংলাদেশ সংবিধানের ৯৪ (২) নং অনুচ্ছেদে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের ২ জন সিনিয়র বিচারপতি নিয়ে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল গঠিত হয়।

* রাষ্ট্রের কাজগুলো সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য সরকারের তিনটি বিভাগ বা অঙ্গ রয়েছে। যথা-

ক) আইন বিভাগ: এই বিভাগ রাষ্ট্রের শাসন পরিচালনা করার জন্য এবং বিচারকার্য সম্পাদনের জন্য আইন প্রণয়ন করে থাকে।

খ) শাসন বিভাগ: এই বিভাগ রাষ্ট্রের শাসনকার্য পরিচালনা করার দায়দায়িত্ব বহন করে থাকে। আইন কার্যকরী করা ও দেশের প্রশাসন পরিচালনা করা শাসন বিভাগের প্রধান কাজ।

গ) বিচার বিভাগ: সরকারের এই বিভাগ আইনানুযায়ী বিচারকার্য পরিচালনা করে থাকে।

* আইনের উৎস ৬টি। যথা-ক) প্রথা খ) ধর্ম গ) বিচারকের রায় ঘ) বিজ্ঞানসম্মত আলোচনা ঙ) ন্যায়বোধ এবং চ) আইন সভা

* সহকারী কমিশনার ও ম্যাজিস্ট্রেটের মধ্যে পার্থক্য: বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের একজন কর্মকর্তা যখন ফৌজদারী বিচারকার্য ব্যতীত অন্যান্য কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে তখন তাকে সহকারী কমিশনার বলে। অন্যদিকে তিনি যখন ফৌজদারী কার্যক্রম  (যেমন মোবাইল কোর্ট) পরিচালনা করেন তখন তাকে ম্যাজিস্ট্রেট বলে।

* ডিক্রি: যে আদেশ দ্বারা মামলার চূড়ামত্ম ফয়সালা হয়ে যায় এবং মামলা পক্ষের অধিকার নির্ধারিত হয় তাকে ডিক্রি বলে।

* রায়: ডিক্রি বা আদেশের ভিত্তিতে বিচারক যে বিবৃতি প্রদান করেন তাকে রায় বলে।

* আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম, গাড়ি চলে না, চলে  না- এসব গানের রচয়িতা শাহ আব্দুল করিম।

* ‘‘আমি কিংবদমত্মীর কথা বলছি’’ এর রচয়িতা আবু জাফর ওবাইদুলস্নাহ।

* রাষ্ট্রপতি অর্থবিলে সম্মতিদানে দেরি করতে পারে না। আইন পাশ হতে হলে রাষ্ট্রপতিকে সম্মতি দিতে হবে ১৫ দিনের মধ্যে।

* বাংলাদেশের পার্লামেন্টের পূর্বের নাম ছিল-গণপরিষদ। গণপরিষদের ইংরেজি নাম-National Assembly.

* Judicial ও Judicious এর মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে-অর্থ Judicial বিচারকম-লী এবং Judicious অর্থ বিচক্ষণ।

* শহীদুলস্না কায়সার ও ড. মুহাম্মদ শহীদুলস্না নামের বানানে প্রথম জনের ক্ষেত্রে ‘হ’নেই। কিন্তু দ্বিতীয় জনের ক্ষেত্রে ‘হ’

আছে।

* সমাজচ্যূত কয়েকজন সাহিত্যিকের নাম হচ্ছে-তসলিমা নাসরীন, দাউদ হায়দার, মাইকেল মধূসুধন দত্ত।

* Accident ও Mishap এর মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে-বড় ধরণের দুর্ঘটনাকে Accident বলে এবং ছোট বা মামলি কোন

দুর্ঘটনাকে Mishap বলে।

* “Seperation of power” এর প্রবক্তা-মন্টেস্কু। মন্টেস্কুর একটি বিখ্যাত বইয়ের নাম হচ্ছে-The Spirit of Laws

* কার্ল মাক্সের দুটি বিখ্যাত বই এর নাম- Das Capital এবং The communist Menifesto

* ভারত মহাসাগরে সৃষ্ট ঝড়কে সাইক্লোন, প্রশামত্মমহাসাগরে সৃষ্ট ঝড়কে টাইফুন এবং আটলান্টিক মহাসাগরে সৃষ্ট ঝড়কে

হারিকেন বলে।

* কুলদ্বীপ নায়ার একজন বিখ্যাত কলামিস্ট যিনি সাধারণত বাংলাদেশের প্রথম আলো প্রত্রিকায় লেখেন।

* বন উজার ও ভূমি ক্ষয় রোধে জাতি সংঘ গৃহীত কর্মসূচির নাম-RED (Reduced Emissions from Deforestation and Degradation)

* আমত্মর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট উদ্বোধন করা হয়-২১ ফেব্রম্নয়ারি, ২০১০ সালে।

* স্থানীয় সরকার ও স্থানীয় স্বায়ত্বশাসিত সরকারের পার্থক্য:

স্থানীয় সরকার স্থানীয় স্বায়ত্বশাসিত সরকার
স্থানীয় সরকারের আইনগত ও সাংবিধানিক ভিত্তি দুর্বল। স্থানীয় স্বায়ত্বশাসিত সরকারের আইনগত ও সাংবিধানিক ভিত্তি সুদৃঢ়।
স্থানীয় সরকারে জনপ্রতিনিধিদের স্থানীয় প্রশাসনের কর্তৃত্ব শিথিল। স্থানীয় প্রশাসনের উপর স্থানীয় স্বায়ত্বশাসিত জনপ্রতিনিধিদের সুদৃঢ় কর্তৃত্ব আছে।
স্থানীয় সরকারের উপর কেন্দ্রীয় সরকার সহজে হসত্মক্ষেপ করতে পারে। স্থানীয় স্বায়ত্বশাসিত সরকারের উপর কেন্দ্রীয় সরকার সহজে হসত্মক্ষেপ করতে পারে না।

 

* মৌলিক অধিকার ও মানবাধিকারের মধ্যে পার্থক্য

মৌলিক অধিকার মানবিক মানবাধিকার
মৌলিক অধিকার একটি রাষ্ট্রের সংবিধানে অসত্মর্ভুক্ত থাকে। মানবাধিকার রাষ্ট্রের সংবিধানে অসত্মর্ভুক্ত থাকে না।
সকল মৌলিক অধিকারই মানবাধিকার। কিন্তু সকল মানবাধিকার অধিকারই মৌলিক অধিকার নয়।
মৌলিক অধিকারের রক্ষক সংবিধান। সংবিধানের পক্ষে সুপ্রীম কোট এই দায়িত্ব পালন করে। মানবাধিকারের রক্ষক আমত্মর্জাতিক আইন ও জাতিসংঘ।
জরম্নরী অবস্থার সময় মৌলিক অধিকার খর্ব হয়। দেশে দেশে মানবাধিকার প্রায়ই ক্ষুণ্ণ হয়।

 

* অস্থায়ী সরকারের মন্ত্রী পরিষদ সচিব ছিলেন-হোসেন তওফিক ইমাম (এইচ টি ইমাম)

* মোঘল আমলে জেলাকে সরকার বলা হত। তখন বাংলায় ১২টি সরকার (জেলা) ছিল।

ব্রিটিশ আমলে জেলা ছিল ১৬টি। যথা ১) ঢাকা ২) ময়মনসিংহ ৩) ফরিদপুর ৪) বাকেরগঞ্জ ৫) কুমিলস্না ৬) নোয়াখালি ৭) সিলেট ৮) চট্রগ্রাম ৯) পার্বত্য চট্রগ্রাম ১০) রাজশাহী ১১) দিনাজপুর ১২) রংপুর ১৩) বগুড়া ১৪) পাবনা ১৫) যশোর এবং ১৬)

খুলনা।

* পাকিসত্মান আমলে জেলা ছিল ১৯ টি (ব্রিটিশ আমলের ১৬টি + টাঙ্গাইল + কুষ্টিয়া + পটুয়াখালী)। বর্তমানে জেলা ৬৪ টি।

* রেগুলেটরি রিফর্মস কমিশনের বর্তমান চেয়ারম্যান কে? পদটি বর্তমানে বিলুপ্ত।

* কোন মৃত ব্যক্তিকে সাধারণত নোবেল পুরস্কারের জন্য বিবেচনা করা হয় না। তা সত্ত্বেও এরিখ কালফেল্ট (১৯৩১), দ্যাগ

হ্যামারশ্যাল্ড (১৯৬১) এবং রালফ স্টেইনম্যান (২০১১) [নোবেল কমিটি জানত না যে, তিনি মারা গেছেন।] এই তিনজনকে

নোবেল পুরস্কারে ভূষিত করা হয়।

* সর্বাধিক ৩ বার নোবেল বিজয়ী সংস্থা হচ্ছে-রেডক্রস (১৯১৭, ১৯৪৪, এবং ১৯৬৩)

* জর্জ বার্নার্ড শ একমাত্র ব্যক্তি যিনি নোবেল পুরস্কারের পাশাপাশি অস্কার পুরস্কারও লাভ করেন।

* সবচেয়ে বেশি বয়সে (৯০ বছর) নোবেল বিজয়ী যু্ক্তরাষ্ট্রের লিওনিড হারউইজ।

* বাংলাদেশের তিন জেলায় ন্যাশনাল সার্ভিস চালু রয়েছে। জেলা তিনটি হলো-গোপালগঞ্জ, বরগুনা এবং কুড়িগ্রাম।

* রাজস্ব আয়: কর ও কর বহিভূত উৎসমসূহ হতে সরকারের যে আয় হয় তাকে রাজস্ব আয় বলে।

* স্যার জর্জ এভারেস্ট এর নামে মাউন্ট এভারেস্ট পর্বতমালার নামকরণ করা হয়।

* প্রধান জরিপকারী কর্মকর্তা-রাধানাথ শিকদার হিমালয় পর্বত আবিষ্কার করেন।

* পাঁচটি বিদেশি পত্রিকা হচ্ছে-গার্ডিয়ান (লন্ডন), টাইমস (লন্ডন), ডেইলি নিউজ (নিউইয়র্ক), হিন্দুস্থান টাইমস (ভারত),

চাইনা ডেইলি (চীন)।

* ভারতের আগ্রায় অবস্থিত ‘তাজমহল’ মুঘল সম্রাট শাহজাহান কর্তৃক ১৬৩২ থেকে ১৬৫২ সাল পর্যমত্ম সময়কালে নির্মিত হয়।

* ফ্রান্স ও আমেরিকার প্রধানমন্ত্রীর নাম বলুন। ফ্রান্স ও আমেরিকায় প্রধানমন্ত্রী নেই (পদ নেই)।

* বাংলাদেশের চার খলিফার নাম-আ.স.ম.আব্দুর রব, শাহজাহান সিরাজ, নূরে আলম সিদ্দিকী এবং আবদুল কুদ্দুস মাখন

(প্রয়াত)।

* নদীর নামে কয়টি জায়গা হচ্ছে-তেতুলিয়া, ভৈরব, কপোতাক্ষ, ফেনি, পাগলা, ধলা, ভালুকা ইত্যাদি।

* ‘হাউস বোট পদ্মা’ নামে বজরায় চড়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সপরিবারে পদ্মা ভ্রমণে বের হতেন।

* বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (BPSC) গঠিত হয় ৯ মে ১৯৭২ সালে।

* ‘আন্টানানারিভো’ মাদাগাস্কা দ্বীপপুঞ্জের রাজধানী। বিশ্বে মাদাগাস্কার লোকেরা সবচেয়ে বেশি ভাত খায়।

* নির্বাচনে সর্বাধিক ব্যবহৃত টার্মগুলো হলো-ইশতেহার, মনোনয়ন, ভোট, জাল ভোট, বিরোধী দল, ব্যালট পেপার, কারচুপি

ইত্যাদি।

* রবীন্দ্র ও নজরুল সংগীত শিল্পীর নাম বলুন-রবীন্দ সংগীত শিল্পী হচ্ছেন-রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, সাদী মহাম্মদ এবং নজরুল সংগীত শিল্পী হচ্ছেন-ফেরদৌস আরা, সৌরাভ হোসেন, ফাতেমা-তুজ-জোহরা।

* ‘কবর’ কবিতাটি কবি জসীম উদ্দীনের রচিত, এতে মোট ১১৮টি লাইন আছে। এবং ‘কবর’ নাটকটি মুনীর চৌধুরী কর্তৃক

রচিত।

* ‘সোনার তরী’ কবিতাটি মাত্রাবৃত্ত ছন্দে রচিত, ‘সোনার তরী’ কবিতায় মোট ৪১টি লাইন আছে। ‘সোনার তরী’ কাব্যগ্রহ্নটি

কবি শিলাইদহে বসে লেখেন, তবে এ গ্রহ্নের ‘ভরা ভাদরে’ কবিতাটি কবি শাহজাদপুরে বসে লেখেন।

* মিশর বিপস্নবের নাম-নীল বিপস্নব এবং তিউনেশিয়ার বিপস্নবের নাম জেসমিন বিপস্নব।

* সাহিত্যে নোবেল পেয়েছেন এমন লেখকের নাম-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (ভারত)-গীতাঞ্জলি, উইন্সটন চার্চিল (ব্রিটেন)-Histry of the Second World War, গুন্টার গ্রাস-The Tin Dram; সাহিত্যে প্রথম নোবেন পান সুলি প্রধোম (ফ্রান্স)

* ওসামা বিন লাদেনকে হত্যা করা হয়-২মে, ২০১১, লাদেন হত্যার সাংকেতিক নাম-জেরোনিমো অপারেশন।

* ডাকাতিয়া বিল খুলনার ডুমুরিয়া থানায় অবস্থিত এবং ডাকাতিয়া নদী চাঁদপুরে অবস্থিত, এটি মেঘনার শাখা নদী। বাংলাদেশের পশ্চিমা বাহিনীর বিল বলা হয় বিল ডাকাতিয়াকে।

* W. B. Yeats ‘Song Offering’ নামে গীতাঞ্জলি কাব্যের ইংরেজি অনুবাদ করেন।

* পশুর ও ভৈরব নদী খুলনা জেলায় অবস্থিত। ১৯৫০ সালে পশুর নদীর তীরে মংলা বন্দর প্রতিষ্ঠিত হয়।

* বাংলাদেশ বেতার ১৯৩৯ সালে এবং বাংলাদেশ টেলিভিশন ১৯৬৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর প্রতিষ্ঠিত হয়।

* সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ের বর্তমান নাম-জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। (Ministry of Public Administration)

* ২০০৬ সালে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ Wikileaks প্রতিষ্ঠা করেন, এর সেস্নাগান-We Open Government

* মোহামেডান ক্লাব-১৯৩৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৮৬৩ সালে নওয়াব আব্দুল লতিফ মোহামেডান লিটারেরী সোসাইটি প্রতিষ্ঠা

করেন।

* ‘ফাতাহ’ ১৯৫৯ সালে এবং ‘হামাস’ ১৯৮৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ‘ফাতাহ’ প্রধান-মাহমুদ আববাস, ‘হামাস’ প্রধান-খালেদ

মেশাল

* কংগ্রেসের প্রতিষ্ঠাতা-অ্যালান অক্টোভিয়ান হিউম, কংগ্রেসের প্রথম অধিবেশনের সভাপতি ছিলেন-উমেশ ব্যানার্জী

* ১৭৬৫ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি বাংলা, বিহার, উড়িষ্যার দেওয়ানী লাভ করে।

* মোঘল সম্রাট শাহ আলমের সাথে চুক্তির মাধ্যমে লর্ড ক্লাইভ দ্বৈত শাসন ব্যবস্থা চালু করেন।

* সুফী মোলস্না আতার দরগাহ মসজিদ দিনাজপুরে অবস্থিত। এটি সুলতান সিকান্দার শাহ নির্মাণ করেন।

* রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ‘রাখী বন্ধন’ এবং রাজা রামমোহন রায় ‘আত্মীয় সভা’ অনুষ্ঠানের প্রচলন করেন।

* সিরাজ-উদ-দৌলার প্রকৃত নাম মীর্জা মুহাম্মদ। বাংলার শেষ নবাব ছিলেন-নিজামউদ্দৌলা

* ঘষেটি বেগম আলীবর্দী খানের কন্যা এবং নবাব সিরাজ-উদ-দৌলার খালা।

* তেঁতুলিয়া নদী ভোলা ও বরিশাল জেলায় এবং তেঁতুলিয়া উপজেলা পঞ্চগড় জেলায় অবস্থিত।

* ‘পথিক তুমি পথ হারাইয়াছ’ উক্তিটি কপালকুন্ডলা, নবকুমারকে করেছেন।

* আবুল ফজলের আইন-ই-আকবরী গ্রন্থে সর্বপ্রথম দেশবাচক শব্দ ‘বাংলা’ ব্যবহৃত হয়।

* সৌদি আরাবের প্রথম রাজনৈতিক দলের নাম-ইসলামী উম্মাহ পার্টি।

* তজুমুদ্দিন ও বোরহানউদ্দিন হচ্ছে ভোলা জেলার দুটি উপজেলার নাম।

* বাংলার প্রাচীন জনপদ

বঙ্গ      : কুষ্টিয়া, যশোর, নদীয়া, শামিত্মপুর, ঢাকা, ফরিদপুর এবং বৃহত্তর ময়মনসিংহ।

সমতট   : কুমিলস্না ও নোয়াখালী।

পৌন্ড্র    : বগুড়া, রাজশাহী, রংপুর ও দিনাজপুর জেলার অংশবিশেষ।

রাঢ়      : পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণাঞ্চল।

আরাকান          : কক্সবাজার, মায়ানমারের কিয়দংশ, কর্ণফুলী নদীর দক্ষিণাঞ্চল।

হরিকেল          : পার্বত্য চট্রগ্রাম, চট্রগ্রাম, ত্রিপুরা ও সিলেট।

গৌঢ়     : রাজশাহী, নওগাঁ, নাটোর, মালদহ, পশ্চিম দিনাজপুর।

বরেন্দ্র   : বগুড়া, পাবনা ও রাজশাহীর অংশবিশেষ।

কামরূপ : রংপুর, জলপাইগুড়ি, আসামের কামরূপ জেলা।

বিক্রমপুর         : মুন্সীগঞ্জ এবং পার্শ্ববর্তী অঞ্চল।

 

তরম্নণদের দেশ বাংলাদেশ

ইউএনডিপির আঞ্চলিক মানব উন্নয়ন প্রতিবেদন

 

বাংলাদেশ এখন তরম্নণদের দেশ। দেশে ৪৯% মানুষের বয়স ২৪ বছরের বা তার নিচে।

বর্তমানে কর্মÿম মানুষ আছে ১০ কোটি ৫৬ লাখ যা মোট জনসংখ্যার ৬৬%।

বর্তমানে দেশে বয়স্ক বা ৬০ বছরের বেশি বয়সী মানুষ-৭%।

২০৩০ সালে দেশে বয়স্ক বা ৬০ বছরের বেশি বয়সী মানুষের সংখ্যা দাঁড়াবে-১২%।

২০৫০ সালে দেশে বয়স্ক বা ৬০ বছরের বেশি বয়সী মানুষের সংখ্যা দাঁড়াবে-২২%।

 

১৫-৬৪ বছরের কর্মÿম জনসংখ্যা-১০ কোটি ৫৬ লাখ।

আগামী ১৫ বছরে তথা ২০৩০ সালে কর্মÿম জনসংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে-১২ কোটি ৯৮ লাখ যা মোট জনসংখ্যার ৭০%।

২০৫০ সালে সালে কর্মÿম জনসংখ্যা দাঁড়াবে-১৩ কোটি ৬০ লাখ যা মোট জনসংখ্যার ৬৭%।

 

* দেশে ৮০ শতাংশের বেশি কর্মজীবীর দিনে আয় ৪ ডলার বা ৩১৩ টাকা।

* বর্তমানে দেশে প্রত্যাশিত গড় আয়ু ৭০ বছর ১০ মাস ২৪ দিন।

* বিশ্বে প্রচলিত ভাষার সংখ্যা-৭০৯৭, সবচেয়ে প্রাচীন ভাষা-হিব্রম্ন।

* সর্বাধিক ভাষার দেশ পাপুয়া নিউগিনি।

* বাংলাদেশের প্রথম ক্রীড়াবিদ হিসেবে গলফার সিদ্দিকুর রহমান সরাসরি অলিম্পিক এ অংশগ্রহণ করার সুযোগ লাভ করেন।

* বর্তমানে মোট ব্যাংকের সংখ্যা-৬৪টি।

* বর্তমানে তফসিলি ব্যাংকের সংখ্যা ৫৭টি।

* বর্তমানে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা-৯৫টি।

* বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমীÿা ২০১৬ অনুযায়ী জনসংখ্যা-১৫ কোটি ৯৯ লাখ।

* জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ১.৩৭%।

* বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমীÿা ২০১৬ অনুযায়ী মাথাপিছু আয়-১৪৬৬ মার্কিন ডলার।

* সাÿরতার হার-৬২.৩%।

* প্রতি বর্গ কিলোমিটারে জনসংখ্যার ঘনত্ব-১,০৭৭ জন।

* বিশ্বে বৃহৎ ঋণদাতা দেশ- জাপান।

* বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমীÿা ২০১৬ অনুযায়ী রিজার্ভ মুদ্রা (মার্চ, ২০১৬)- ১,৬১,৮৮২ কোটি টাকা।

* বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমীÿা ২০১৬ অনুযায়ী মুদ্রাস্ফীতি-৬.০১%।

* দেশে বর্তমানে উপজেলার সংখ্যা -৪৯০টি। সর্বশেষ উপজেলা-কর্ণফুলী (চট্রগ্রাম)।

* স্বীকৃতিপ্রাপ্ত বীরঙ্গনার সংখ্যা-১২২ জন।

* ILO সদস্য-১৮৭।

* আলু উৎপাদনে শীর্ষ জেলা-রংপুর।

* দেশে বাল্য বিবাহমুক্ত জেলা তিনটি (লালমনিরহাট, মুন্সিগঞ্জ এবং মেহেরপুর)।

* বর্তমান ও ৪র্থ তথ্য কমিশনারের নাম-অধ্যাপক গোলাম রহমান।

* বর্তমানে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা-৯৫টি।

* ২৭ জুন ২০১৬ সালে প্রথমবারের মতো রিজার্ভ ৩০ বিলিয়ন ডলারের মাইলফলক অতিক্রম করে।

 

সংবিধান প্রণয়ন করার জন্য মেম্বার অব ন্যাশনাল অ্যাসেমবিস্ন এর ১৬৯ জন সদস্য এবং মেম্বার অব পার্লামেন্ট অ্যাসেমবিস্ন এর ৩০০ জন মোট ৪৬৯ জন সদস্য থেকে ৪০৩ জন সদস্যকে মনোনীত করা হয়েছিল। বাকী ৬৬ জন সদস্যের মধ্যে-

১২ জন মৃত

০৫ জন প্রেপ্তার

৪৬ জন নানা কারণে অযোগ্য

০২ জন  পাকিসত্মানে চলে যান (নুরম্নল আমিন ও চাকমা রাজা ত্রিদিব রায়)

০১ রাষ্ট্রদূত।

 

সৈয়দ আলী আহ্সান এবং ড. আনিসুজ্জামান-কে সংবিধানের বাংলা অনুবাদ করার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।

১টা ৪৫ মিনিট ৪০ সেকেন্ডে বাংলাদেশের সংবিধান গৃহীত হয়।

 

Proviso: সংবিধানে Article এর second প্যারাকে Proviso বলে।

 

* নিংসঙ্গ কারাবাস ১৪ দিনের বেশি হবে না।

 

61 catagories of advices go to the honourable President.

21 catagories of advices go to the Prime Minister (PM).

18 catagories of advices go to the Cabinet.

 

Main functions of the Perliament

To make and amend law.    To pass the national budget

To amend the constitution. To elect the honourable President and impeach if necessary

To ensure the accountabilites of the executive and legislative bodies.

 

একজন সাংসদ একটি মন্ত্রণালয়ের উপর ৮টি তারকাবিহীন ও ৩টি তারকাযুক্ত বা তারকাচিহ্নিত প্রশ্ন করতে পারেন।

Constitution, Act and Ordinance are appeared before the Parliament.

 

তারকাচিহ্নিত প্রশ্ন: যে প্রশ্নের উত্তর সংশিস্নষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী সংসদে মৌখিকভাবে দেন তাকে তারকাচিহ্নিত প্রশ্ন বলে। তারকাচিহ্নিত প্রশ্নের অনুকূলে আরো সম্পূরক প্রশ্নও হতে পারে। স্পীকার তারকাচিহ্নিত প্রশ্ন নির্ধারণ করে দেন।

 

তারকাবিহীন প্রশ্ন: যে প্রশ্নের উত্তর সংশিস্নষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী লিখিতভাবে সাংসদকে দিয়ে থাকেন তাকে তারকাবিহীন প্রশ্ন বলে।

 

তিনটি উপাদানের মাধ্যমে দেশ পরিচালিত হয়-১) সংবিধান  ২) Rules of Business, 1996 এবং ৩) সচিবালয় নির্দেশমালা, ২০১৪

 

Single Bench-one Judge

Division Bench-2 or 3 Judges

Full Bench-All Judges of Appealate Division Bench

 

Civil case-District Judge

Criminal Case-Session/দায়রা Judge

 

যে Judge কেবল একজাতীয় মামলা পরিচালনা করেন তাকে Tribunal Judge বলে।

 

সাধারণত দুই ধরণের মামলা Appellate Division এ যেতে পারে-

  • মৃত্যুদ-/যাবতজীবন (৩০) কারাদ- বিষয়ক মামলা এবং
  • সংবিধানের ব্যাখ্যা সংক্রামত্ম মামলা

এছাড়া, অন্য যেকোন মামলা Appellate Division এ পাঠাতে হলে সরাসরি আবেদন করতে হয়।

 

Leave to Appeal: যিনি মামলা করার অনুমতি দেন তাকে Leave to Appeal বলে।

 

Discuss the process of approving a  Bill and an Ordinance.

Bill Ordinance
Draft Preparation (Related Ministry) Approval from the Cabinet.

Inter Ministerial Consultation (Administrative Division/Ministry)

Draft Preparation
1st Approval from the Cabinet. (if necessary) Inter Ministerial Consultation
Vetting of L & PAD Vetting of L & PAD
Final Draft Preparation by Administrative Division/Ministry Approval/Signature of the Honourable President
Approval of the Cabinet
Final approval of the Parliament

 

Citizen Charter (নাগরিক সনদ)

নাগরিক সনদ(Citizen Charter) হচ্ছে সেবার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে কোন সেবা প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে প্রনীত এমন একটি দলিল (document) বা ঘোষনাপত্র (Declaration) যাতে উক্ত সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান কাদের কি ধরনের সেবা প্রদান করবে, কি পরিমান প্রুদান করবে, কত সময়ের মধ্যে প্রদান করবে, কোন ধরনের সেবা পেতে কি পরিমান খরচ হবে এবং যথাযথভাবে সেবা না পেলে তার প্রতিকারের জন্য জনগন কোথায় ও কি প্রক্রিয়ায় অভিযোগ দাখিল করবে তার বিস্তারিত বর্নণা লিপিবদ্ধ করা হয়। অন্য কথায় নাগরিক সনদ হচ্ছে, সরকারি সেবার মান সম্পর্কে জনগণ ও সেবা প্রদানকারীদের মধ্যে এক ধরণের সমঝোতা স্বারক (Understanding) যাতে জনগণের প্রত্যাশা ও সেবা প্রদানকারীদের প্রতিশ্রুতির প্রতিফলন ঘটে থাকে।

 

২২ জুলাই, ১৯৯১ সালে ইংল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী জন মেজর Citizen Charter এর উদ্ভাবন করেন। Charter mean a formal statement of the rights.

বাংলাদেশে ২১ মে, ২০০৭ সালে Citizen Charter চালু করা হয়।  Citizen Charter এ নিমেণাক্ত বিষয়গুলো উলেস্নখ থাকে-সংশিস্নষ্ট অফিসের নাম; সেবার নাম; কখন, কোথায় সেবা পাওয়া যাবে; কার কাছ থেকে সেবা পাওয়া যাবে; নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সেবা না পেলে কার কাছে অভিযোগ করতে হবে ইত্যাদি।

 

* Agnet: পিতৃকূলের আত্মীয়,

Enet:   মাতৃকূলের আত্মীয় এবং

Cognet: মাতৃ-পিতৃকূলের আত্মীয়

* কিতাবুল উসায়া এবং কিতাবুল ফারায়েজ এ সম্পদ বন্টন সংক্রান্ত হাদীসের উল্লেখ রয়েছে।

* বাংলাদেশে মোট আইনের সংখ্যা ১০০০ (এক হাজার) এর উপরে।

* Difference between deny and refuge.

Deny is always past related. Deny-অস্বীকার করা (অতীতের কোন কিছু)

Refuse is always future related. Refuse- প্রত্যাখ্যান করা

* বাজেট নয় সংসদে অর্থ আইন পাশ হয়। যেমন-অর্থ আইন, ২০১৬।

* ১৮২৯ সালে The Revenue Commissioner Regulation এর মাধ্যমে ‘বিভাগ’ চালু করা হয়।

* এক বছরে একাধিক আইন পাশ হলে প্রথমটিকে ০১ নং আইন, দ্বিতীয়টিকে ০২ নং আইন এভাবে ক্রমানুসারে উলেস্নখ করা হয়। যেমন- The Code of Criminal Procedure, 1998, Act V of 1998)

* The Sati(সতী) Regulation, 1829 উপমহাদেশের একমাত্র আইন যে আইনটি ১০০% পরিপালিত হয়ে আসছে।

*ধারা: আইনের সংখ্যাযুক্ত অনুচ্ছেদকে ধারা বলে।

* The District Act, 1836 হলো একমাত্র আইন যে আইনে ধারা মাত্র ০১ (একটি)।

* ‘ক্যাটাকিজম/Catechism: প্রশ্ন-উত্তরের মাধ্যমে শিক্ষাদান পদ্ধতিকে বলে ‘ক্যাটাকিজম/Catechism। সক্রেটিস এই পদ্ধতির সূচনা করেন।

* ১৯২০ সালে উপমহাদেশে পার্লামেন্ট চালু হয়।

* বাজেট নয় সংসদে অর্থ আইন পাশ হয়। যেমন-অর্থ আইন, ২০১৬।

* ১৮২৯ সালে The Revenue Commissioner Regulation এর মাধ্যমে ‘বিভাগ’ চালু করা হয়।

* এক বছরে একাধিক আইন পাশ হলে প্রথমটিকে ০১ নং আইন, দ্বিতীয়টিকে ০২ নং আইন এভাবে ক্রমানুসারে উলেস্নখ করা হয়। যেমন- The Code of Criminal Procedure, 1998, Act V of 1998)

* The Sati(সতী) Regulation, 1829 উপমহাদেশের একমাত্র আইন যে আইনটি ১০০% পরিপালিত হয়ে আসছে।

*ধারা: আইনের সংখ্যাযুক্ত অনুচ্ছেদকে ধারা বলে।

* The District Act, 1836 হলো একমাত্র আইন যে আইনে ধারা মাত্র ০১ (একটি)।

* মোবাইল কোর্ট আইন, ২০০৯ এর ০৫ ধারায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে ক্ষমতা প্রদান এবং ০৬ ধারায় শাসিত্ম প্রদানের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।

* জেলার শ্রেণিবিন্যাস-

০৯ বা ততোধিক উপজেলা নিয়ে গঠিত জেলা -A class District/এ শ্রেণি জেলা।

০৫-০৮ উপজেলা নিয়ে গঠিত জেলা -B class District/বি শ্রেণি জেলা।

০১-০৪ উপজেলা নিয়ে গঠিত জেলা -C class District/সি শ্রেণি জেলা।

 

জনপ্রশাসন পদক

সৃজনশীল কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ বিসিএস প্রশাসন কর্মকর্তাদের জন্য ২০১৫ সালে প্রবর্তন করা হয়  জনপ্রশাসন পদক। ২৩ জুলাই ২০১৬ বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো প্রদান করা হয় জনপ্রশাসন পদক। জনসেবাকে সহজলভ্য করতে জনপ্রশাসনে উদ্ভাবননীমসূলক কর্মক-কে উৎসাহিত করা এবং সততা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে দেয়া হয় জনপ্রশাসন পদক।

 

BREXIT: ২৮ জাতির ইইউ জোটের সাথে চার দশকের সম্পর্ক ছিন্ন করে নতুন পথে হাঁটার প্রশ্নে ২৩ জুন, ২০১৬ সালে যুক্তরাজ্যের গণভোটের পদক্ষেপকে আমত্মর্জাতিক গণমাধ্যম সংক্ষেপে BREXIT নামে অভিহিত করে। ইইউ-তে না থাকার পক্ষে ৫১.৯% ভোট পড়ে।

 

ফাস্ট ট্রাক প্রকল্প: দেশের অর্থনীতিতে ব্যাপক অবদান রাখবে এমন ১০টি প্রবৃদ্ধি সহায়ক বড় প্রকল্পকে সরকার ফাস্ট ট্রাক প্রকল্প হিসেবে চিহ্নিত করেছে। উলেস্নখযোগ্য প্রকল্পগুলো হলো-

  1. পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প ২. পদ্মা রেল সেতু সংযোগ প্রকল্প ৩. পায়রা বন্দর প্রকল্প ৪. সোনাদিয়া গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ প্রকল্প ৫. এলএনজি টার্মিনাল নির্মাণ প্রকল্প ৬. রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্প।

 

পানামা পেপারস

৬ এপ্রিল, ২০১৬ সালে পানামাভিত্তিক আইনি পরামর্শক প্রতিষ্ঠান মোস্যাক পনসেকার ফাঁস হওয়া বিপুল সংখ্যক গোপন নথি বিশ্বব্যাপী ‘পানামা পেপারস’ নামে পরিচিতি লাভ করে। এ যাবৎকালের সবচেয়ে বড় তথ্য ফাঁসের ঘটনা। ফাঁস হওয়া ১ কোটি ১৫ লাখ গোপন নথিতে রয়েছে ৪৮ লাখ ই-মেইল। ডিজিটাল ফাইল হিসেবে এ তথ্যের পরিমাণ ২.৬ টেরাবাইট। ফাঁস হওয়া এ নথির সংখ্যা সাড়া জাগানো ওয়েবসাইট উইকিলিকসের ফাঁস করা তথ্য কিংবা সাবেক মার্কিন গোয়েন্দা অ্যাডওয়ার্ড সেণাডেনের ফাঁস করা নথির তুলনায়ও শতগুণ বড়।

 

অকৃষি খাস জমি: যে খাস জমি সিটি কর্পোরেশন, জেলা সদর, উপজেলা সদর এবং পৌরসভার অমত্মর্ভুক্ত তাকে অকৃষি খাস জমি বলে। এসব অধিক্ষেত্রের বাইরে চাষযোগ্য খাসজমিকে কৃষি খাস জমি বলে। ০১ নং খতিয়ান ও ০৮ নং রেজিস্টারভুক্ত জমি হচ্ছে খাস জমি।

 

জিরো লাইন: সীমামত্মবর্তী দুটি দেশের মধ্যে যে লাইন এর দ্বারা সীমানা নির্ধারণ করা হয় সে লাইনকে জিরো লাইন বলে।

 

SME Tusk Force: ÿুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নয়নে একসাথে কাজ করার জন্য বাংলাদেশ ও ভারত এর ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটি Tusk Force গঠনের বিষষে আলোচনা হয় যেটি SME Tusk Force নামে পরিচিত।

 

শাখা নদী: যে নদী অন্য কোন নদী হতে উৎপন্ন হয় তাকে শাখা নদী বলে। যেমন-বুড়িগঙ্গা ধলেশ্বরী নদীর শাখা নদী।

 

উপনদী: যে নদী অন্য নদীতে গিয়ে মেশে এবং প্রবাহ দান করে তাকে উপনদী বলে। যেমন-আত্রাই নদী। অনেক ক্ষেত্রে, কোন প্রধান নদী অন্য নদীর উপনদীও হতে পারে।

নদ ও নদীর পার্থক্য :

 

নদ: যে নদীর কোন শাখা নাই কিন্তু উপনদী থাকতে পারে তাকে নদ বলে। আবার ব্যাকরণগতভাবে, যে সকল নদীর নামের শেষে আ-কার, ই-কার বা ঈ-কার থাকে না তাদেরকে নদ বলে। যেমন ব্রহ্মপুত্র, কপোতাক্ষ, নীল, সিন্ধু ইত্যাদি।

 

নদী: যে সকল নদীর শাখা নদী বা শাখা নদী ও উপনদী আছে তাদেরকে নদী বলে। আবার ব্যাকরণগতভাবে, যে সকল নদীর নামের শেষে আ-কার, ই-কার বা ঈ-কার থাকে তাদেরকে নদী বলে। যেমন-পদ্মা, মেঘনা, যমুনা, তিসত্মা ইত্যাদি (শেষে আ-কার আছে) এবং মধুমতি, কর্ণফুলী, ধানসিঁড়ি ইত্যাদি (শেষে ই/ঈ-কার আছে।

 

বদ্বীপ: নদী যেখানে সমুদ্রে এসে পড়ে তাকে নদীর মোহনা বলে। এই মোহনাতে নদীর জলের সঙ্গে বাহত পলি (নুড়ি, কাঁকর, কাদা, বালি) জমে যে নতুন ভূভাগের সৃষ্টি হয় তাকে দ্বীপ বলে। দ্বীপের চারদিকেই জ্বল থাকে। এই দ্বীপকে দেখতে অনেকটা বাংলা ‘ব’ বা গ্রিক অক্ষর ডেল্টা-র মতো হয়। তাই এ ধরনের দ্বীপকে বদ্বীপ বা ডেল্টা Delta বলে। বাংলাদেশের ভূমির প্রকৃতি ও আকৃতি অনেকটা ‘ব’ এর মতো হওয়া বাংলাদেশকে বদ্বীপ বলা হয়।

Juries Prudence বা বিচারের বিচক্ষণতা বলতে একজন বিচারক তাঁর পূর্ব অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে বিচারের যে সঠিক রায় দেন তাকে বুঝায়।

জুরি: জুরি হল একের অধিক বিজোড় সংখ্যক বিচারকের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এবং জজ হলেন একজন বিচারক যিনি একাই বিচারের রায় ঘোষণা করেন। জুরিতে বিজোড় সংখ্যক বিচারক থাকার কারণ হল যাতে বিচারের ফলাফল পাওয়া যায়।

 

এক নজরে সংবিধান ও জাতীয় সংসদ সংক্রামত্ম তর্থাবলী

* বাংলাদেশে প্রচলিত সকল আইনে ‘নম্বর’ সংযোজিত আছে কেবল একটি আইনে নাই সেইটি হল-সংবিধান।

* সংবিধানে বর্ণিত সুস্পষ্ট বিধি মোতাবেক গঠিত প্রতিষ্ঠানকে সাংবিধানিক সংস্থা বলে।

* সংবিধানের ৫৬ (২) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী মোট মন্ত্রীসভার এক-দশমাংশের বেশি Technocrat মন্ত্রী হতে পারে না। অধিকন্তু তাদের সংসদ সদস্য হওয়ার যোগ্যতা থাকতে হবে।

* সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের সংখ্যা: বাংলাদেশের সংবিধানের ৯৪ (২) অনুযায়ী প্রদান বিচারপতি এবং প্রত্যেক বিভাগে আসন গ্রহণের জন্য রাষ্ট্রপতি যেরূপ সংখ্যক বিচারক নিয়োগের প্রয়োজন বোধ করবেন, সেরূপ সংখ্যক অন্যান্য বিচারক নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট গঠিত হবে।

* এটর্নি জেনারেল সম্পর্কে সংবিধানের ৬৪ নং অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে। বর্তমান এটর্নি জেনারেল-মাহবুবে আলম।

*এ্যাটর্নি জেনারেল পদে নিয়োগ দান করেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি।

* সংবিধান অনুযায়ী বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি হওয়ার ন্যূনতম বয়স যথাক্রমে ২৫ ও ৩৫ বছর।

* বাংলাদেশ ন্যায়পাল পদটি একট সাংবিধানিক পদ। সংবিধানের ৭৭ অনুচ্ছেদে ন্যায়পাল সম্পর্কে বলা হয়েছে।

* বাংলাদেশ সংবিধানের ১২২(২) এর খ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী ভোটার হওয়া ন্যূনতম যোগ্যতা ১৮ বছর।

 

* বিচার বিভাগ নির্বাহী বিভাগ থেকে পৃথকীকরণের বিষয়টি সংবিধানের ২২ নং অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে।

* বাংলাদেশ সংবিধান প্রণয়ন কমিটির একমাত্র মহিলা সদস্য বেগম রাজিয়া বানু ও একমাত্র বিরোধী দলীয় সদস্য সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত।

* গণ-প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সংবিধান অনুসারে ১২০ দিন বা ৪ মাস জরম্নরী অবস্থা মহাল থাকতে পারে। এ পর্যমত্ম ১৯৭৪, ১৯৯০, এবং ২০০৭ এই ০৩ বার বাংলাদেশে জরম্নরী অবস্থা ঘোষণা করা হয়।

* জরম্নরী অবস্থা চলাকালে সংবিধানের ৩৬, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০ ও ৪২ নং অনুচ্ছেদে উলেস্নখিত মৌলিক অধিকার স্থগিত থাকে।

* এ পর্যমত্ম ০২ বার সংবিধান স্থগিত করা হয়েছে। প্রথম বার: ০৭ নভেম্বর ১৯৭৫ থেকে ০৯ এপ্রিল ১৯৭৯ সাল পর্যমত্ম।

দ্বিতীয় বার: ২৪ মার্চ ১৯৮২ থেকে ১০ নভেম্বর ১৯৮৬ সাল পর্যমত্ম।

* অবৈধ ক্ষমতাকে বৈধতা দেওয়ার জন্য ০৩ বার সংবিধান সংশোধন করা হয়েছে। যথা-পঞ্চম সংশোধনী, সপ্তম সংশোধনী এবং একাদশ সংশোধনী।

* দেশে এ পর্যমত্ম ১৯৭৭, ১৯৮৫ এবং ১৯৯১ এই ০৩ বার গণভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

* সংবিধানের ৭০ ধারায় সংসদ সদস্যের সদস্যপদ খারিজ হওয়ার বিধান সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, যদি কোন সংসদ সদস্য –

ক) দল থেকে পদত্যাগ করেন

খ) দলীয় সিদ্ধাসেত্মর বিপক্ষে ভোট প্রদান করেন তাহলে তার সদস্যপদ খারিজ হয়ে যাবে।

* সংবিধানের ১৪০ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বিসিএস কর্মকর্তাদের মহামান্য রাষ্ট্রপতি নিয়োগ দিয়ে থাকেন।

* শিক্ষা ও মৌলিক অধিকার সম্পর্কে বলা হয়েছে সংবিধানের ১৭ নং অনুচ্ছেদে।

* আইনের খসড়া যা পাশ করানোর জন্য সংসদে উত্থাপন করা হয় তাকে বিল বলে। সংসদে পাশকৃত আইনকে এ্যাক্ট বলে। রাষ্ট্রপতি কর্তৃক জারিকৃত আইনকে অধ্যাদেশ বলে (পরবর্তী সংসদ বসার এক মাসের মধ্যে পাশ করিয়ে নিতে হবে)। সংবিধান স্থগিত বা অকার্যকর থাকাকালে যে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয় তাকে অর্ডার বলে। বাসত্মবে এ্যাক্ট, অর্ডার, অধ্যাদেশ এর প্রয়োগ সম্পর্কিত বিসত্মারিত বর্ণনাকে বিধি বলে।

* জাতীয় সংসদের স্থপতি লুই আই কান এসেত্মানিয়ার বংশ উদ্ভুত আমেরিকান নাগরিক।

* আইন প্রণয়ন করতে একই সাথে সংবিধান ও সংসদ কার্যকর থাকতে হয়।

* অধ্যাদেশ প্রণয়ন করতে কেবল সংবিধান কার্যকর থাকলেই হয়।

* আদেশ জারি করতে হলে সংবিধান ও সংসদ কোনটা না কার্যকর থাকলেও চলে।

* সংবিধান কার্যকর হয়নি অথবা বাতিল বা স্থগিত করা হয়েছে এমন অবস্থায় যে বিল পাশ হয় তাকে আদেশ/Presidential Order বলে।

* বাংলাদেশের জনগণ সংবিধানের ৬(২) নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী জাতি হিসেবে বাঙালি এবং নাগরিক হিসেবে বাংলাদেশি বলে পরিচিত।

 

তফসিল

সংবিধানে এমন অনেক কিছুকে বৈধতা দেওয়া হয়েছে যা সংবিধানের অবিচ্ছেদ্য অংশ কিন্তু অনুচ্ছেদে উলেস্নখ নেই তাকে তফসিল বলে। বাংলাদেশ সংবিধানে ১৫৩ টি অনুচ্ছেদ এবং ৭টি তফসিল রয়েছে।

প্রথম তফসিল: অন্যান্য বিধান সত্ত্বেও কার্যকর আইন।

দ্বিতীয় তফসিল: বিলুপ্ত

তৃতীয় তফসিল: শপথ ও ঘোষণা।

চতুর্থ তফসিল: ক্রামত্মীকালীন ও অস্থায়ী বিধানাবলী।

পঞ্চম তফসিল: ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ।

ষষ্ঠ তফসিল: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর বরহমান কর্তৃক বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা।

সপ্তম তফসিল: ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল তারিখে মুজিব নগর সরকারের জারিকৃত স্বাধীনতার ঘোষণা।

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইন কোনটি? উত্তর: সংবিধান

* কোন কোন দেশে কোন লিখিত সংবিধান নেই? উত্তর: বৃটেন, নিউজিল্যান্ড, স্পেন এবং সৌদি আরব।

* বাংলাদেশে কোন ধরনের রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থা প্রচলিত? উত্তর: সার্বভৌম প্রজাতন্ত্র।

* ভারতের সংবিধান বিশে^র সবচেয়ে বড় সংবিধান।

* আমেরিকার সংবিধান বিশে^র সবচেয়ে ছোট সংবিধান।

* বাংলাদেশের সংবিধানের প্রণয়নের প্রক্রিয়া শুরম্ন হয় ২৩ মার্চ, ১৯৭২ সালে।

* বাংলাদেশের সংবিধান সংসদে উত্থাপিত হয় ১২ অক্টোবর, ১৯৭২ সালে।

* গণপরিষদে সংবিধান গৃহীত হয় ৪ নভেম্বর, ১৯৭২ সালে।

* ১৬ ডিসেম্বর ১৯৭২ সালে বাংলাদেশের সংবিধান বলবৎ করা হয়।

* ১০ এপ্রিল, ১৯৭২ সালে গণপরিষদের প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

* সংবিধান প্রণয়ন কমিটি ৩৪ জন সদস্য নিয়ে গঠিত হয়।

* সংবিধান প্রণয়ন কমিটির প্রধান ছিলেন ডঃ কামাল হোসেন।
* সংবিধান প্রণয়ন কমিটির একমাত্র মহিলা সদস্য ছিলেন বেগম রাজিয়া বেগম।

* বাংলাদেশ সংবিধানের দুটি পাঠ রয়েছে-বাংলা এবং ইংরেজি।

* বাংলাদেশের সংবিধান প্রসত্মাবনা (Preamble) দিয়ে শুরম্ন এবং ০৭টি তফসিল দিয়ে শেষ করা হয়েছে।

* বাংলাদেশের সংবিধানে ১১টি ভাগ রয়েছে।

* বাংলাদেশের সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১৫৩টি।

* বাংলাদেশের প্রথম হসত্মলেখা সংবিধানের মূল লেখক-আবদুর রউফ।

* প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ ছাড়া মহামান্য রাষ্ট্রপতি এককভাবে প্রধান বিচারপতির নিয়োগ দান করতে পারেন।

* মহামান্য রাষ্ট্রপতির উপর আদালতের কোন এখতিয়ার নেই।

* একজন ব্যক্তি বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি হতে পারবেন ২ মেয়াদকাল।

* রাষ্ট্রপতির মেয়াদকাল কার্যভার গ্রহণের সময় হতে ৫ বছর।

* জাতীয় সংসদের সভাপতি হলেন-স্পিকার।

* মহামান্য রাষ্ট্রপতি পদত্যাগ করতে চাইলে স্পিকারকে উদ্দেশ্য করে পদত্যাগ পত্র লিখবেন।

* প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপ-মন্ত্রীদের নিয়োগ প্রদান করেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি।

* বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত হল-সুপ্রীম কোর্ট।

* সুপ্রীম কোর্টের বিভাগ দুটি-আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগ।

* সুপ্রীম কোর্টের বিচারপতিদের মেয়াদকাল-৬৭ বছর পর্যমত্ম।

* ৭২ সালের সংবিধানের মূলনীতি ছিল- জাতীয়তা, গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র এবং ধর্মনিরপেÿতা।

* কোন আদেশবলে সংবিধানের মূলনীতি ‘‘ধর্মনিরপেক্ষতা’’ বাদ দেওয়া হয়?

  ১৯৭৮ সালে ২য় ঘোষণাপত্র আদেশ নং ৪ এর ২ তফসিল বলে সংবিধানের মূলনীতি ‘‘ধর্মনিরপেক্ষতা’’ বাদ দেওয়া হয়।

* কোন আদেশবলে সংবিধানের শুরম্নতে ‘‘বিসমিলস্নাহির রাহমানির রাহিম’’ সন্নিবেশিত হয়?

১৯৭৮ সালে ২য় ঘোষণাপত্র আদেশ নং ৪ এর ২ তফসিল বলে।

* সংবিধানের ১৪ নং অনুচ্ছেদে ‘‘কৃষক ও শ্রমিকের মুক্তির’’ কথা বলা হয়েছে।

* সংবিধানের ১১ নং অনুচ্ছেদে ‘‘গণতন্ত্র ও মৌলিক মানবাধিকার’’ এর নিশ্চয়তা দেওয়া হয়েছে।

* কোন আদেশবলে সংবিধানের বাংলাদেশের নাগরিকগণ ‘‘বাংলাদেশী’’ বলে পরিচিত হন?

১৯৭৮ সালে ২য় ঘোষণাপত্র আদেশ নং ৪ এর ২ তফসিল বলে।

 

* সংবিধানের ২২ নং অনুচ্ছেদে ‘‘নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথকীকরণ’ এর কথা বলা হয়েছে।

* ‘‘সকল নাগরিক আইনের চোখে সমান এবং আইনের সমান আশ্রয় লাভের অধিকারী’’ এই নিশ্চয়তা দেওয়া হয়েছে

সংবিধানের ২৭ নং অনুচ্ছেদে।

* জীবন ও ব্যক্তি স্বাধীনতার অধিকার রক্ষিত আছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৩২ নং অনুচ্ছেদে।

* গ্রেফতার ও আটক সম্পর্কিত রক্ষাকবচের কথা বলা হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৩৩ নং অনুচ্ছেদে।

* জবরদসিত্মমূলক শ্রম নিষিদ্ধ করা হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৩৪ নং অনুচ্ছেদে।

* চলাফেরার স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে ৩৬ নং অনুচ্ছেদে।

* সমাবেশের স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৩৭ নং অনুচ্ছেদে।

* সমিতি ও সংঘ গঠনের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৩৮ নং অনুচ্ছেদে।

* চিমত্মা ও বিবেকের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৩৯ (১) অনুচ্ছেদে।

* বাক ও ভাব প্রকাশের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৩৯ (২) ক অনুচ্ছেদে।

* সংবাদপত্রের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৩৯ (২) খ অনুচ্ছেদে।

* পেশা ও বৃত্তির স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৪০ নং অনুচ্ছেদে।

* ধর্মীয় স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৪১ নং অনুচ্ছেদে।

* সম্পত্তির অধিকারের কথা বর্ণিত হয়েছে সংবিধানের ৩য় ভাগে, ৪২ নং অনুচ্ছেদে।

  ৭৪ নং অনুচ্ছেদে স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার সম্পর্কে বলা হয়েছে।

* সংবিধানের ৭৭ নং অনুচ্ছেদে ন্যায়পাল নিয়োগ সংক্রামত্ম বিষয়ে বলা হয়েছে।

* জাতীয় সংসদে ন্যায়পাল আইন পাশ হয় ১৯৮০ সালে।

* বাংলাদেশের সংবিধানের এ পর্যমত্ম মোট ১৬ বার সংশোধনী আনা হয়েছে।

* ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ ২৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৫ সালে জারী করা হয়।

* জাতীয় সংসদ ভবনের ভিত্তি প্রসত্মর স্থাপন করা হয় ১৯৬২ সালে।

* বাংলাদেশের আইন সভার নাম-জাতীয় সংসদ।

* ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ ১২ নভেম্বর, ১৯৯৬ সালে বাতিল করা হয়।

* জাতীয় সংসদ ভবনের স্থপতি লুই আই কান যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক।

* জাতীয় সংসদ ভবনের ছাদ ও দেয়ালের স্ট্রাকচারাল ডিজাইনার হ্যারি পাম বস্নুম ।

* জাতীয় সংসদ ভবনের নির্মাণ কাজ শুরম্ন করা হয় ১৯৬৫ সালে।

* জাতীয় সংসদের ভূমির পরিমাণ ২১৫ একর।

* জাতীয় সংসদ ভবন উদ্ভোধন করা হয় ২৮ জানুয়ারি, ১৯৮২ সালে।

* জাতীয় সংসদ ভবন ৯ তলা বিশিষ্ট।

* জাতীয় সংসদ ভবনের উচ্চতা ১৫৫ ফুট।

* বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের প্রতীক-শাপলা ফুল।

* জাতীয় সংসদ ভবন উদ্ভোধন করেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি আব্দুস সাত্তার।

* জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন বসে ১৫ ফেব্রম্নয়ারি, ১৯৮২ সালে।

* বাংলাদেশের সংসদের মোট আসন সংখ্যা-৩৫০টি।

* বাংলাদেশের সংসদের সাধারণ নির্বাচিত আসন সংখ্যা ৩০০টি এবং মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত আসন-৫০টি।

* বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের ১ নং আসন পঞ্চগড়-১ আসন।

* বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের ৩০০ নং আসন বান্দরবান আসন।

* গণপরিষদের প্রথম স্পিকার ছিলেন শাহ আব্দুল হামিদ।

* গণপরিষদের প্রথম ডেপুটি স্পিকার ছিলেন মোহাম্মদ উলস্নাহ।

* এ দেশে সংসদীয় রাজনীতির চর্চা শুরম্ন হয় ১৯৩৭ সাল থেকে।

* সাবেক যুগোশেস্নভিয়ার প্রেসিডেন্ট মার্শাল জোসেফ টিটো ৩১ জানুয়ারি, ১৯৭৪ এবং ভারতের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ভি.ভি.

গিরি ১৮ জুন, ১৯৭৪ সালে প্রথম জাতীয় সংসদে ভাষণ দেন।

* ‘‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিল’’ ২৭ মার্চ, ১৯৯৬ সালে পাশ হয়।

* বাংলাদেশের অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত সদস্য হিসেবে এ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ নিজেই নিজের শপথ বাক্য

পাঠ করেন।

* জাতীয় সংসদের কাস্টি ভোট বলা হয় স্পিকারের ভোটকে।

* সংসদের এক অধিবেশনের সমাপ্তি ও পরবর্তী অধিবেশনের প্রথম বৈঠকের মধ্যে ব্যবধান ৬০ দিন।

* সাধারণ নির্বাচনের ৩০ দিনের মধ্যে সংসদ অধিবেশন আহবান করতে হয়।

* সংসদ অধিবেশন আহবান করেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি।

* সংসদ অধিবেশনের কোরাম পূর্ণ হয় ৬০ জন সাংসদ উপস্থিত থাকলে।

* সংবিধান সংশোধনের জন্য দুই-তৃতীয়াংশ সংসদ সদস্যের ভোটের প্রয়োজন হয়।

* একাধারে ৯০ কার্যদিবস সংসদে অনুপস্থিত থাকলে সংসদ সদস্য পদ বাতিল হয়।

* সংবিধানে অনুচ্ছেদ ১৫৩টি। সম্প্রতি পঞ্চম ও সপ্তম সংশোধনী বাতিল হয়। (পঞ্চম জিয়ার আমলে এবং সপ্তম এরশাদের

আমলে)

* সরকারের প্রধান আইনজীবীকে ‘অ্যাটর্নী জেনারেল বলে। বর্তমান অ্যাটর্নী জেনারেল-এ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম।

* পঞ্চদশ সংশোধনীর মূল বিষয় হলো-১) প্রসত্মাবনায় সংশোধন ২) ৭২ এর মূলনীতির পুনর্বহাল ৩) তত্ত্বাবধায়ক সরকার

ব্যবস্থার বিলুপ্তি ৪) সংরক্ষিত নারী আসন ৫০ এ উন্নিত ৫) নির্বাচন কমিশনের ক্ষমতা বৃদ্ধি।

* বাংলাদেশ সংবিধানের প্রথম সংশোধনী ১৯৭৩ সালে গৃহীত হয় এবং এর মূল বিষয়বস্ত্ত ছিল ৯৩ হাজার যুদ্ধাপরাধী ও

অন্যান্য গণবিরোধীদের বিচার নিশ্চিত করা।

* সংবিধানের ত্রয়োদশ সংশোধনীর মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবসত্মা প্রতিষ্ঠিত করা হয় এবং পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে

বিলোপ করা হয়।

* সংবিধানের ৩ অনুচ্ছেদে বাংলা ভাষা, ৪(১) অনুচ্ছেদে জাতীয় সঙ্গীত এবং ৫(১) অনুচ্ছেদে রাজধানী ঢাকা সম্পর্কে বলা

হয়েছে।

* রাষ্ট্রপতি সংবিধানের ৫৭ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী কতিপয় অপরাধের শাসিত্ম পূর্ণ বা আংশিক মওকুফ করতে পারেন।

* সংবিধানের অষ্টম সংশোধনীর মাধ্যমে বাংলাদেশে ইসলামকে রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

* বাংলাদেশের প্রথম হসত্মলিখিত সংবিধানের অঙ্গসজ্জা করেন শিল্পী-জয়নুল আবেদীন।

* চুক্তি ও দলিল সম্পর্কে সংবিধানের ১৪৫ নং অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে।

* রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন হচ্ছে-সংবিধান।

* বাংলাদেশের সংবিধান লিখিত এবং দুষ্পরিবর্তীয়।

* নির্বাচন কমিশন সুপ্রীম কোর্ট এর সমমর্যাদার অধিকারী

* বাংলাদেশের প্রথম নির্বাচন কমিশনার বিচারপতি এম ইদ্রিস।

* বাংলাদেশের বর্তমান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমেদ।

* নির্বাচন কমিশন স্বতন্ত্র ও নিরপেক্ষ প্রতিষ্ঠান।

* ইতিহাসের জনক হেরোডোটাস মিশরকে নীল নদের দান বলে আখ্যা দিয়েছিলেন।

* ‘বিরল’ স্থল বন্দর দিনাজপুর জেলায় অবস্থিত। বিবির বাজার স্থল বন্দর কুমিলস্না জেলায় অবস্থিত।

* বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ বিল চলনবিল পাবনা ও নাটোর জেলায় অবস্থিত। চলনবিলের মধ্য দিয়ে আত্রাই নদী প্রবাহিত হয়েছে।

* ভোলা জেলার উলেস্নখযোগ্য চরগুলো হচ্ছে-চর নিউটন, চর মানিক, চর জববার, চর কুকরি-মুকরি, চর নিজাম, চর জংলী, চর

মনপুরা, চর জহিরউদ্দিন, চর ফয়েজউদ্দিন ইত্যাদি।

* শেষে গ্রাম আছে এমন পাঁচটি স্থানের নাম-চৌদ্দগ্রাম, বড়াইগ্রাম, নন্দীগ্রাম, পাটগ্রাম, কুঁড়িগ্রাম।

* ‘যে জন দিবসে মনের হরষে জ্বালায় মোমের বাতি’ লিখেছেন-কৃষ্ণচন্দ্র মজুমদার।

* স্থানীয় সরকারের সত্মরগুলো হচ্ছে-জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, ইউনিয়ন পরিষদ এবং গ্রাম সরকার।

* সংবিধানে বাজেটকে-বার্ষিক আর্থিক বিবৃতি (Annual Financial Statement) বলে উলেস্নখ করা হয়েছে।

* দেশে বর্তমানে ঘোষিত স্থলবন্দরের সংখ্যা সর্বমোট ২৩টি। সর্বশেষ স্থলবন্দর-বালস্না (চুনারম্নঘাট, হবিগঞ্জ)।

* বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের বর্তমান চেয়ারম্যান-অধ্যাপক ড: এ কে আজাদ চোধুরী

* বাংলাদেশের প্রথম মহিলা বিচারপতির নাম-বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা।

* তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিল পাশ হয়-২৬ মার্চ, ১৯৯৬ সালে এবং আপিল বিভাগ অবৈধ ঘোষণা করে-১০ মে, ২০১১ সালে।

* মার্কিন নৌবাহিনীর একটি বিশেষ কমান্ড ইউ এস নেভি সিলস ওসামাকে হত্যায় অংশ নেয়।

* মিয়ানমারের রাজধানীর নাম-নাইপিদো। মিয়ানমারের আইন সভা দ্বি-কক্ষবিশিষ্ট। যথা-পিঞ্জুদাংসু হুতাতাও বা উচ্চকক্ষ এবং

পিঙ্গু হুতাতাও (Peoples Assembly) বা নিম্নকক্ষ। নিম্নকক্ষের সদস্য ৪৪০ জন এবং উচ্চকক্ষের সদস্য ২২৪ জন।

* মিয়ানমারের বর্তমান রাষ্ট্রীয় নাম-দ্য রিপাবলিক অব দ্য ইউনিয়ন অব মিয়ানমার।

* দেশে উদ্ভাবিত লবণাক্ততা সহিঞ্চু উলেস্নখযোগ্য ধান হচ্ছে-বিনা-৮, ব্রি-৪৭, ব্রি-৫৩, ব্রি-৫৪

* ‘The Animal Firm’ বইটি লিখেছেন-George Orwell. তিনি মিয়ানমারে ব্রিটিশ বাহিনীর পুলিশ অফিসার ছিলেন।

* Aquaculture কী? সামুদ্রিক Organinism চাষ করার নাম/চাষ করার সংস্কৃতি।

* Black Sea বা কৃষ্ণ সাগর হচ্ছে-ইউক্রেন ও তুরস্কের মধ্যে অবস্থিত সাগর।

* হলিউড হচ্ছে-আমেরিকার চলচ্চিত্র শিল্পকেন্দ্র। এটি লসএঞ্জেলেসে অবস্থিত।

* ফিলাটেলি (Philetely) হচ্ছে ডাক টিকিট সংগ্রহ ও অধ্যয়ন সম্পর্কিত বিদ্যা।

* State of the union হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট কর্তৃক প্রদত্ত বার্ষিক শেষ ভাষণ।

* তিন নেতার মাজারে রয়েছে-এ.কে.ফজলুল হক, খাজা নাজিমুদ্দিন এবং হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর সমাধি।

* ৪ ডিসেম্বর হল স্বৈরাচার বিরোধী গণ-অভুত্থান দিবস। নুর হোসেন দিবস ১৯৮৭ সালের ১০ নভেম্বর।

* প্রথম জাতীয় অধ্যাপক নিয়োগ করা হয় ১৯৭৫ সালে। জাতীয় অধ্যাপক নিয়োগ করা হয় ৫ বছরের জন্য।

* দেশে বর্তমানে জাতীয় অধ্যাপক ৫ জন। তারা হলেন- ফজলুল করিম, সালাহ উদ্দিন আহমেদ, ড. রঙ্গলাল সেন, মসত্মাফা

নুরম্নল ইসলাম এবং ডা. শাহেলা খাতুন।

* Shakespeare ১৫৬৪ সালের ২৩ এপ্রিল ব্রিটেনের স্ট্রাটফোর্ড অন অ্যাভনে জন্ম গ্রহণ করেন। তার উলেস্নখযোগ্য

সাহিত্যকর্ম হচ্ছে-

কমেডি: দ্য টেম্পেস্ট, এজ ইউ লাইক ইট, কমেডি অব এররস, মার্চেন্ট অব ভেনিস, আ মিড সামার নাইটস ড্রিম, অলস ওয়েল

দ্যাট ইন্ডস ওয়েল

ট্রাজিটি: জুলিয়াস সিজার, ম্যাকবেথ, ওথেলো, হ্যামলেট, অ্যান্টনিও এন্ড ক্লিওপেট্রা, কিং লিয়ার ইত্যাদি।

* ২৫-তম গ্যাসক্ষেত্র হচ্ছে-কুমিলস্নার মুরাদনগরের শ্রীকাইল গ্যাসক্ষেত্র।

* অস্ট্রিয়ার বার্থাভন সুটনার নারী হিসাবে সর্ব প্রথম শাসিত্মতে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।

* এ উপমহাদেশে এ পর্যমত্ম ১০ জন নোবেল পুরস্কার পেয়েছে। তারা হলেন-ভারতের-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯১৩ সালে সাহিত্য নোবেল পুরস্কার পান। হরগোবিন্দ খোরানা ১৯৩০ সালে চিকিৎসায়  নোবেল পুরস্কার পান। সি ভি রমন ১৯৬৮ পদার্থ বিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার পান। মাদার তেরেসা ১৯৭৯ সালে শামিত্মতে নোবেল পুরস্কার পান। অমত্য সেন ১৯৯৮ সালে অর্থনীতি নোবেল

পুরস্কার পান। কৈলাস সত্যার্থী শামিত্মতে ২০১৪ সালে নোবেল পুরস্কার পান। পাকিসত্মানের আব্দুস সালাম ১৯৭৯ সালে পদার্থ বিজ্ঞানে  এবং মালালা ইউসুফ জাই শামিত্মতে ২০১৪ সালে নোবেল পুরস্কার পান। বাংাদেশের ড. মুহাম্মদ ইউনুস ২০০৬ সালে শামিত্মতে নোবেল পুরস্কার পান। (তিন জন বাঙ্গালি নোবেল বিজয়ী )

* নোবেল বিজয়ী প্রথম নারী পোল্যান্ডের মেরী কুরী (পদার্থ বিজ্ঞান)

* এ পর্যমত্ম চারজন মর্কিন প্রেসিডেন্ট নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন-১) থিওডোর রম্নজভেল্ট ২) উড্রো উইলসন ৩) জিমি কার্টার এবং ৪) বারাক হোসেন উবামা।

* সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার প্রত্যাখানকারী দুইজন-বরিস পাসত্মারনাক (রাশিয়া) এবং জ্যাঁ পল সাত্রে (ফ্রান্স)।

* দেশের ৩৪-তম পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

* বাংলাদেশের বর্তমান প্রধান নির্বাচন কমিশনার সিইসি কাজী রকিব উদ্দিন আহমেদ।

* বাংলাদেশে প্রধান বিচারপতি থেকে রাষ্ট্রপতি হয়েছেন এমন পাঁচজন ব্যক্তি হলেন: ১। বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী ২। বিচারপতি আবু সায়েম ৩। বিচারপতি আব্দুস সাত্তার  ৪। বিচারপতি আহসান উদ্দিন খান এবং ৫। বিচারপতি সাহাবুদ্দিন আহম্মেদ

* বাংলাদেশের ভিতর ভারতের ছিটমহল ছিল-১১১টি এবং ভারতের ভিতর বাংলাদেশের ছিটমহল ছিল-৫৫টি।

* বঙ্গোপসাগরের সাথে বাংলাদেশের কয়েকটি জেলা হল-সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, বরগুনা, পটুয়াখালী

* ম্যাগসেসে পুরস্কারপ্রাপ্ত তিনজন নারী বাংলাদেশী-তাহেরম্নন্নেসা আব্দুলস্নাহ (১৯৭৮), অ্যাঞ্জেলা গোমেজ (১৯৯৯) এবং সৈয়দা

রিজওয়ান হাসান (২০১২)।

* পৃথিবীর সাত মহাদেশের সাতটি সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গ জয়কারী পর্বতারোহীরা Seven Summit নামে পরিচিত।

* Vission-2021 হল ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার পরিকল্পনা।

* BBC-কে বুশ হাউজ থেকে Broadcasting House-এ স্থানাসত্মর করা হয়েছে।

* ২০১৬ সালের ৫ আগস্ট থেকে ২১ আগস্ট ৩১-তম বিশ্ব অলিম্পিক গেমস ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরিও-তে ২০৭টি দেশের

অংশগ্রহণে  অনুষ্ঠিত হয়।

* আয়তনে ক্ষুদতম সিটি কর্পোরেশন হচ্ছে-কুমিলস্না সিটি কর্পোরেশন।

* ১৯৯৭ সাল থেকে নারী প্রার্থীরা সরাসরি ইউনিয়ন পরিষদ ভোটে নির্বাচিত হচ্ছে।

* যশোর জেলা সর্বপ্রথম ডিজিটাল জেলা হিসাবে তথ্য প্রযুক্তিভিত্তিক সেবা চালু করে।

* ব্রিটেনের বহুল প্রচারিত ট্যাবলয়েড দ্য সান এর মালিক হচ্ছে-মিডিয়া মোঘল রম্নপাট মারডক।

* ঢাকা মহানগরী প্রধানত বুড়িগঙ্গা, শীতলÿ্যা, তুরাগ এবং ধলেশ্বরী এই চারটি নদী দ্বারা বেষ্টিত।

* জাতীয় সংসদে জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত প্রথম নারী সাংসদ-সৈয়দা রাজিয়া ফয়েজ।

* বাংলাদেশ নৌবাহিনী এমভি পদ্মা ও এমভি পলাশ এই দুটি জাহাজ নিয়ে গঠিত হয়।

* সুন্দরবনকে ১৯৯৭ সালের ৬ ডিসেম্বর ৫২২-তম বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

* লক্ষ্মীপুর জেলার নিশাত মজুমদার এভারেস্ট জয়ী প্রথম বাংলাদেশি নারী। সর্ব কনিষ্ট এভারেস্ট জয়ী বাংলাদেশি নারী-

ওয়াসফিয়া নাজরীন। ওয়াসফিয়া Seven Summit জয় করার উদ্দেশ্যে এগিয়ে চলছেন।

* যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা-ইন্টারন্যাশনাল হেরাল্ড ট্রিবিউন এর পরিবর্তিত নাম-ইন্টারন্যাশনাল নিউইয়র্ক

টাইমস।

* ‘Concord’ ইংল্যান্ড ও ফ্রান্সের যৌথ উদ্যোগে তৈরী বৃহৎ বিমানের নাম।

* বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা কমিশনের নাম-ড. কুদরত-ই-খুদা শিক্ষা কমিশন।

* বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে অভিন্ন নদীর সংখ্যা ৫৪টি, মতামত্মরে ৫৫টি।

* জাপানের চারটি দ্বীপের নাম হচ্ছে-হোক্কাইডো, হনসু, শিক্কুকো এবং কিউসো।

* FBI Stands for Federal Bureau of Investigation. FBI হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দার সংস্থা। FBI এর

প্রতিষ্ঠাতা মার্কিন প্রেসিডেন্ট থিওডোর রম্নজভেল্ট।

* বাংলাদেশের প্রথম নারী স্পিকার-ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। জন্ম ১৯৬৬, তাঁর পৈত্রিক নিবাস নোয়াখালী। ৩০ এপ্রিল,

২০১৩ সালে তিনি স্পিকার হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। তাঁর পিতা রফিকউলস্নাহ চৌধুরী ছিলেন স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ

মুজিবর রহমানের একামত্ম সচিব।

* ঢাকা পৌরসভা গঠিত হয় ১৮৬৪ সালে। ঢাকা সিটি কর্পোরেশন গঠিত হয় ১৯৮৯ সালে। ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের প্রথম

মেয়র-আবুল হাসানাত চৌধুরী এবং প্রথম নির্বাচিত মেয়র-মোহাম্মদ হানিফ।

* ‘‘দ্য লেডি’’ হল মিয়ানমারের গণতন্ত্রীপন্থী নেত্রী অং সান সুচি এর জীবনী নির্ভর চলচ্চিত্রের নাম।

* ফজলে হোসেন আবেদ স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম ব্যক্তি হিসেবে ব্রিটেনের নাইট উপাধি লাভ করেন।

* ২০১৫ সালে ১১-তম বিশ্বকাপ ক্রিকেট অনুষ্ঠিত হয়-অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড এ। ১২-তম হবে ২০১৯ সালে ইংলান্ডে।

* বর্ডারগার্ড ২৩ জানুয়ারি, ২০১১ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরম্ন করে।

* Google Plus হল Google কর্তৃক চালুকৃত একটি সামাজিক যোগাযোগ Website.

* বাংলাদেশ টেলিফোন শিল্প সংস্থা টেলিস এর তৈরী ল্যাপটপ এর নাম ‘দোয়েল’। এটি চালু হয় ২০১১ সালে।

* দেশের প্রথম ভূ-গভ্যস্থ (Under Ground) মিউজিয়াম সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অবস্থিত।

* Little Bangladesh যুক্তরাষ্ট্রের লস-অ্যাঞ্জেলস এ অবস্থিত।

* ১৯৮০ সালে বাংলাদেশ সরকার দেশব্যাপী গণশিক্ষা কার্যক্রম গ্রহণ করে।

* ১৯৯৫ সালে প্রথমে লালমনিরহাট ও ভোলা জেলায় সার্বিক শিক্ষা আন্দোলন শুরম্ন হয়।

* ৭ টি নিরক্ষরমুক্ত জেলা হচ্ছে-মাগুরা, সিরাজগঞ্জ, লালমনিরহাট, রাজশাহী, জয়পুরহাট, গাজীপুর এবং চুয়াডাঙ্গা।

* চাঁদে কিভাবে যাবেন? পৃথিবীর উপগ্রহ চাঁদে নভোযান বা রকেটে করে যাব।

* ব্যাংক নোট ৬টি এবং সরকারী নোট ৩টি (৫ জুন ২০১৬ সালে সরকারি নোট হিসেবে পাঁচ টাকা বাজারে আসে)।

* খুচরা লেনদেনের জন্য ৭ ধরনের মুদ্রা রয়েছে।

 

বর্তমান সরকারের সাফল্য

দেশকে নিমণ মধ্যম আয়ে উন্নীতকরণ, দশটি ফাস্ট ট্রাক প্রকল্প গ্রহণ, খাদ্য দ্রব্যের মজুদ বৃদ্ধি, রেমিটেন্সের প্রবাহ বৃদ্ধি, রিজার্ভ বৃদ্ধি, জনগণের দোরগোড়ায় তথ্য-প্রযুক্তি সেবা পৌঁছে দেওয়া, শিক্ষার প্রসার, নারীর ক্ষমতায়ন, শিশু মৃত্যু হার হ্রাস, স্বাস্থ্য সেবার মান উন্নয়ন ইত্যাদি।

*Warrant বা পরওয়ানা আদালত কর্তৃক তলস্নাসী বা আটকের ক্ষমতা প্রদানকে Warrant বা পরওয়ানা বলে।

* বাংলাদেশ কোড: বাংলাদেশের সকল আইনের ৩৮ খন্ডের সংকলনকে বাংলাদেশ কোড বলে।

* মন্ত্রিপরিষদের চীফ একাউন্টস অফিসার হচ্ছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

* University ও Varsity শব্দ দুটির মধ্যে বানানগত পার্থক্য থাকলেও অর্থগত কোন পার্থক্য নেই।

* সাংবিধানিক পদের সংখ্যা ৯টি। যথা- ১) রাষ্ট্রপতি ২) প্রধানমন্ত্রীসহ অন্যান্য মন্ত্রীবর্গ ৩) স্পীকার ৪) ডেপুটি স্পীকার ৫) সংসদ সদস্যগণ ৬) প্রধান বিচারপতিসহ অন্যান্য বিচারপতিগণ ৭) প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারবৃন্দ ৮) পিএসসি এর চেয়ারম্যান ও অন্যান্য সদস্যবৃন্দ এবং ৯) মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক।

* অর্থমন্ত্রণালয়ের বিভাগ চারটি। যথা- ১) অর্থ বিভাগ (Finance Division) ২) অভ্যমত্মরীণ সম্পদ বিভাগ (Internal Resource Division, IRD) ৩) অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (Economic Relation Division) এবং ৪) ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ (Bank and Financial Institute Division)

 

* গ্রীনহাউজ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টিকারী গ্যাস হচ্ছে-

গ্যাসের নাম কার্বন-ডাই-অক্সাইড মিথেন গ্যাস ক্লোরোফ্লোরোকার্বন নাইট্রাস অক্সাইড অন্যান্য
হার ৪৯% ১৮% ১৪% ৬% ১৩%

 

* বিশ্বকাপ ফুটবলে সর্বাধিক ৮ বার ফাইনালে খেলেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জার্মানি এবং দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭ বার ফাইনাল

খেলেছে ব্রাজিল।

* যুক্তরাষ্ট্র ১৮৬৭ সালে রাশিয়ার কাছ থেকে ৭২ লক্ষ ডলারের বিনিময়ে ১,৫৩,০৭,০০০ বর্গ কি. মি.আয়তনের পর্বতময়

তুষারাচ্ছিত আলাস্কা কিনে নেয়।

* প্রথম ছয়জন মুঘল সম্রাট হলেন-সম্রাট (বাবর, হুমায়ুন, আকবর, জাহাঙ্গীর, শাহজাহান, আওরঙ্গজেব)

ইঙ্গিত:  বাবার   হইল     আবার     জ্বর         সারিল        ঔষুধে

 

* WWW stands for World Wide Web and http stands for Hyper Text Transfer Protocol.

* সরকারের প্রধান নির্বাহী হচ্ছেন রাষ্ট্রপতি। যদিও প্রধানমন্ত্রী কার্যত সর্বময় ক্ষমতা ভোগ করেন তবুও রাষ্ট্রপতি

সাংবিধানিকভাবে বাংলাদেশ সরকারের নির্বাহী প্রধান। রাষ্ট্রের যাবতীয় কার্যাবলী রাষ্ট্রপতির নামে সম্পাদিত হয়।

* এখান থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় কত দূর? How far is the prime Minister’s office from here?

* শায়েসত্মা খানের আমলে টাকায় ৮ মণ চাল পাওয়া যেত। During the tenure of Shaesta Khan eitht monds of

rice were available for one taka.

* রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘‘শেষের কবিতা’’ উপন্যাসের শেষের লাইন হলো-

তোমারে যে দিয়েছিনু সে তোমাই দান-

গ্রহণ করেছ যত ঋণী তত করেছ আমায়।

হে বন্ধু বিদায়।

* ‘সংসপ্তক’ লিখেছেন শহীদুল্লা কায়সার এবং ‘খোয়াবনাম’ র লেখক আখতারম্নজ্জামান ইলিয়াস।

* ‘আনন্দময়ীর আগমনে’ কবিতা রচনার জন্য কাজী নজরম্নল ইসলামের কারাদ- হয়।

* ‘লালসালু’ উপন্যাসের লেখক-সৈয়দ ওয়ালী উলস্নাহ এবং ‘সোনালী কাবিন’ এর লেখক আল মাহমুদ।

* হিরোশিমা ও নাগাসাকিতে আণবিক বোমা নিক্ষিপ্ত হয় যথাক্রমে-৬ আগস্ট ও ৯ আগস্ট, ১৯৪৫ সালে।

* বাংলাদেশ জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে ১৭ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৪ সালে।

* জাতিসংঘের মূল সংস্থা ৬টি।

  • সাধারণ পরিষদ ২) নিরাপত্তা পরিষদ ৩) অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদ ৪) আসত্মর্জাতিক আদালত ৫) সচিবালয় এবং ৬) অছি পরিষদ।

* ‘‘যে ব্যক্তি সমাজে বাস করে না সে হয় দেবতা না হয় পশু’’-এরিস্টটল।

* ‘‘মানুষ স্বাধীন হয়ে জন্ম গ্রহণ করে, কিন্তু সর্বত্রই তাকে শৃঙ্খলিত অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়’’-রম্নশো।

* ‘‘অর্থ হলো পুঁজিবাদের হাতে শ্রমিক শোষণের একটি হাতিয়ার’’-কার্ল মার্কস।

* ‘‘মানব সমাজের ইতিহাস মূলত শ্রেণি সংগ্রামের ইতিহাস’’-কার্ল মার্কস।

* ‘‘কাপুরম্নষরা মরার আগে বহুবার মরে, সাহসীরা একবার মৃত্যুবরণ করে’’-শেস্কপিয়ার।

* “Give me blood and I promise you freedom”-নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসু।

* “Impossible is a word to be found in a fool’s dictionary”-নেপোলিয়ন।

* তোমরা আমাকের শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাদেরকে উন্নত জাতি দেব’’-নেপোলিয়ন।

* ‘‘শাসক যদি হয় ন্যায়বান তাহলে আইন অনাবশ্যক, আর শাসক যদি হয় দুর্নীতিপরায়ণ তাহলে আইন নিরর্থক’’-পেস্নটো।

* “Democracy is a government, of the people, by the people, for the people”-আবা্রহাম লিংকন।

* ‘‘ক্ষমতা মানুষকে নীতিগ্রসত্ম করে, চরম ক্ষমতা মানুষকে চরমভাবে দুর্নীতিগ্রসত্ম করে’’-বার্ট্রান্ড রাসেল।

 

* “Imagination is more important than knowledge”-আইনস্টাইন।

১৪০। “Principles of Economics”-অধ্যাপক মার্শাল এর বিখ্যাত গ্রন্থ।

* ইউরো হচ্ছে-ইউরোপীয় ইউনিয়নের মুদ্রার নাম এবং ইউরোমানি হচ্ছে-একটি অর্থনৈতিক জার্নাল।

* কয়েকটি বিদেশি এনজিও হচ্ছে-১) কেয়ার ইন্টারন্যাশনাল, বাংলাদেশ ২) কারিতাস বাংলাদেশ ৩) অ্যাকশন এইড বাংলাদেশ ৪) হিড বাংলাদেশ ৫। রাবেতা আল আলম আল ইসলামি।

* কয়েকটি দেশি এনজিও হচ্ছে-১) বাংলাদেশ রম্নরাল এডভ্যান্সম্যান্ট কমিটি (ব্র্যাক) ২) অ্যাসোসিয়েশন ফর সোশ্যাল এডভ্যান্সম্যান্ট (আশা) ৩) অন্বেশা ফাউন্ডেশন ৪) প্রশিকা ৫) দীপ শিক্ষা ৬) বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংস্থা।

* যখন কতিপয় মানবাধিকারকে কোন দেশের সংবিধানে লিপিবদ্ধ করে সাংবিধানিক নিশ্চয়তা দ্বারা সংরক্ষণ করা হয়, তখন তাকে মৌলিক অধিকার বলে।

 

* MDG এর লক্ষ্য ছিল ৮টি-

লক্ষ্য-১: চরম দরিদ্র ও ক্ষুধা দূর করা।   লক্ষ্য-২: সর্বজনীন প্রাথমিক শিক্ষা অর্জন।  লক্ষ্য-৩: নারী-পুরম্নষের সমতা ও নারীর ক্ষমতায়ন।

লক্ষ্য-৪: শিশু মৃত্যুর হার হ্রাস।                      লক্ষ্য-৫: মাতৃ স্বাস্থ্যের উন্নতি।           লক্ষ্য-৬: HIV/এইডস, ম্যালেরিয়া ও অন্যান্য রোগের বিসত্মার রোধ করা

লক্ষ্য-৭: টেকসই পরিবেশ নিশ্চিত করা   লক্ষ্য-৮: উন্নয়নে বিশ্বব্যাপী অংশীদারিত্ব তৈরি করা।

 

* হাজং উপজাতি পার্বত্য চট্রগ্রাম অঞ্চলের বাইরে ময়মনসিংহ ও নেত্রকোনায় জেলায় বাস করে।

* বাংলাদেশের প্রথম উপজাতীয় কালচারাল একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয়-নেত্রকোনায়।

* বাংলাদেশের অমত্মর্গত সুন্দরবনের আয়তন-৬০১৭ বর্গ কি. মি.

* বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ বিল-চলনবিল পাবনা ও নাটোর জেলায় অবস্থিত।

* ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি’ বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত হিসেবে গৃহীত হয় ৩ মার্চ, ১৯৭১ সালে

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা পত্রে। বাংলাদেশে জাতীয় সঙ্গীতে বাংলার প্রকৃতির কথা ফুটে উঠেছে।

* ১৭ নভেম্বর, ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো ২১ ফেব্রম্নয়ারিকে আমত্মর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

* আমার সোনার বাংলা কবিতার চরণ আছে ২৫টি। কবিতাটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গীতবিতানের স্বরবিতানের অমত্মর্ভূক্ত।

* কোন রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে জাতীয় সঙ্গীতের প্রথম চার চরণ বাজানো হয়। গানটি সুরকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

* ১৯৮২ সালে Dacca শব্দটি সরকারিভাবে পরিবর্তন করে Dhaka করা হয়।

* নদীর নামে কয়েকটি উপজেলার নাম-তিতাস (কুমিলস্না), মেঘনা (কুমিলস্না), রূপসা (খুলনা)

* সুবাদার ইসলাম খান কর্তৃক ১৬১০ সালে সর্বপ্রথম ঢাকাকে রাজধানী করা হয়।

* মুহাম্মদ বিন কাসিম ৭১৫ সালে ভারতে সর্বপ্রথম মুসলিম শাসন প্রতিষ্ঠা করেন।

* সিলেটের মালনীছড়ায় দেশের প্রথম চা বাগান প্রতিষ্ঠিত হয়-১৮৫৪ সালে।

* বাংলাদেশে সর্বপ্রথম গ্যাস পাওয়া যায় ১৯৫৫ সালে এবং উত্তোলন আরম্ভ হয়-১৯৫৭ সালে।

* বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের একজন সদস্য যখন ফৌজদারি বিচার কার্যক্রম ব্যতীত অন্যান্য কার্যক্রম করে থাকেন তখন

তাকে সহকারী কমিশনার বলে এবং তিনি যখন ফৌজদারি কার্যক্রম পরিচালনা করেন তখন তাকে ম্যাজিস্ট্রেট বলে।

* সচিব পদমর্যাদার কয়েকটি পদ হচ্ছে-মেজর জেনারেল, আইজিপি, এনবিআর এর চেয়ারম্যান, ল্যান্ড রিফর্ম কমিশনার।

* পাগলা হলো নারায়ণগঞ্জের একটি স্থানের নাম এবং ভাই পাগলা হলো বগুড়ার একটি কবরস্থান/মাজারের নাম।

* খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবন জেলায় সংসদীয় আসন সংখ্যা সবচেয়ে কম। এসব জেলায় মাত্র একটি করে আসন

রয়েছে।

* খুব অল্প সময়ের জন্য যখন কোন আদেশ জারি করা হয় তখন তাকে রেগুলেশন বলে। যেমন-পুলিশ রেগুলেশন, ১৮৬১।

* বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ১৯৮৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।

* BPSC ১৯৭২ সালের ৯ মে গঠিত হয়।

* মন্ত্রণালয়ের বিভাগের সত্মর তিনটি যথা- ১) উপবিভাগ (Wing)-এর প্রশাসনিক কর্মকর্তা হচ্ছেন যুগ্মসচিব। ২) ব্রাঞ্চ

(Branch)-এর প্রশাসনিক কর্মকর্তা হচ্ছেন উপসচিব। ৩) শাখা (Section)-এর প্রশাসনিক কর্মকর্তা হচ্ছেন সহকারী সচিব।

* চট্রগ্রামকে বাণিজ্যিক রাজধানী করার প্রসত্মাব ৬ জানুয়ারি, ২০০২ সালে মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পায়।

* পৃথিবীর প্রথম লিখিত সংবিধান হচ্ছে-মদিনা সনদ। এটি ৬২২ খ্রিস্টাব্দে লিখিত হয়।

* বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদানকারী প্রথম অনারব মুসলিম দেশ হচ্ছে মালয়েশিয়া।

* ৩টি সমাজতান্ত্রিক দেশ হচ্ছে-চিন, উত্তর কোরিয়া এবং কিউবা।

* গুরম্নত্বপূর্ণ কিছু প্রতিষ্ঠান:

প্রতিষ্ঠানের নাম প্রতিষ্ঠাকাল প্রতিষ্ঠানের নাম প্রতিষ্ঠাকাল
কলকাতা মাদ্রাসা ১৭৮১ সাল শ্রীরামপুর কলেজ ১৮১৮ সাল
সংস্কৃত কলেজ ১৭৯১ সাল জেলা স্কুল প্রতিষ্ঠা ১৮৩৫ সাল
ফোর্ট উইলিয়াম কলেজ ১৮০০ সাল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ১৮৩৫ সাল
হিন্দু কলেজ ১৮১৭ সাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ১৯২১ সাল

 

* ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গঠন কমিটি:

* ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গঠনের কমিটির নাম-নাথান কমিটি। ১৯১২ সালের ২৭ মে নাথান কমিটি গঠিত হয়।

* নাথান কমিটির সভাপতি ছিলেন ব্যারিস্টার রবার্ট নাথান।

* ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম চ্যান্সেলর বা আচার্য-লর্ড ডানডাস।

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের প্রথম ভিসি-ফিলিপ জোসেফ হার্টস (পি. জে. হার্টস)

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের দ্বিতীয় ভিসি-প্রফেসর জি. এইচ ল্যাংলি।

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের প্রথম বাঙ্গালি ভিসি-স্যার এ এফ রহমান (তৃতীয় তম ভিসি ছিলেন)

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের প্রথম ছাত্রী-লীলা নাগ।

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের প্রথম সমাবর্তন হয়-২৩ ফেব্রম্নয়ারি, ১৯২৩ সালে।

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের প্রথম মহিলা ডীন-বেগম আজিজুন্নেসা।

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের প্রথম মহিলা প্রো-ভিসি-জিন্নাতুন নেসা তাহমিদা বেগম।

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের বর্তমান চান্সেলর-মহামান্য রাষ্ট্রপতি।

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের বর্তমান ভিসি- আ. আ. ম. স. আরেফিন সিদ্দিক।

* ঢাকা বিশ্ববিল্যায়ের ছাত্র হিসেবে প্রথম ভিসি-ড. সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন।

* ৫২ এর ভাষা আন্দোলনের সময় ভিসি ছিলেন- ড. সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন।

* মুক্তিযুদ্ধের সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ছিলেন-বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী (১৯৬৯-১৯৭২)

* ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ২০১১ সালে স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার লাভ করে।

* ১৭ আগস্ট, ২০১৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগে দেশের প্রথম ক্রোমোজম গবেষণা কেন্দ্রের উদ্বোধন

করা হয়।

* ১ জুলাই, ২০১৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত।

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড বলা হয় কেন?

তদানীন্তন ব্রিটিশ ভারতে অক্সব্রিজ শিক্ষাব্যবস্থা অনুসরণে ১৯২১ সালে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় স্থাপিত হয়। সূচনালগ্নে বিভিন্ন প্রথিতযশা বৃত্তিধারী ও বিজ্ঞানীদের দ্বারা কঠোরভারে মান নিয়ন্ত্রিত হবার প্রেক্ষাপটে লোকমুখে প্রচার হতে হতে কালক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ‘প্রাচ্যের অক্সফোর্ড’ নামে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করে যার ধারা এখনো অব্যাহত রয়েছে। কিন্তু এর কোন দালিলিক প্রমাণ আজ পর্যন্ত কোথাও খুঁজে পাওয়া যায়নি।

 

* ঢাকা শহরকে রক্ষার জন্য বুড়িগঙ্গা নদীতে নির্মিত বাঁধের নাম-বাকল্যান্ড বাঁধ।

* নদীর ভাঙ্গনে সর্বস্বামত্ম জনগণকে নদী শিকসিত্ম বলে এবং নদীতে চর জাগলে যারা চাষাবাদের করে তাদের নদী পয়সিত্ম বলে।

* কুমিলস্নার দুঃখ গোমতি নদী, চট্রগ্রামের দুঃখ চাকতাই খাল এবং খাগড়াছড়ির দুঃখ চেঙ্গী নদী।

* হাড়িয়াভাঙ্গা নদী (বিভক্ত করেছে বাংলাদেশ-ভারতকে) এবং নাফ নদী (বিভক্ত করেছে বাংলাদেশ-মায়ানমারকে)

* নারী প্রার্থী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সরাসরি নির্বাচিত হয় ১৯৯৭ সাল থেকে।

* ঢাকা ব্যতীত ঢাকা দক্ষিণ, মোহাম্মদপুর, মিরপুর এবং গাবতলী কোথায় অবস্থিত?

ঢাকা দক্ষিণ সিলেটের গোপালগঞ্জে, মোহাম্মদপুর মাগুরা জেলায়, মিরপুর কুষ্টিয়া জেলায় এবং গাবতলী বগুড়া জেলায়

অবস্থিত।

* ‘সামাজিক চুক্তি’, ‘সামাজিক চয়ন তত্ত্ব’ এবং ‘সমাজতন্ত্র’ এর প্রবক্তা কারা?

‘সামাজিক চুক্তি  The Social Contract’এর প্রবক্তা জন জ্যাকুইস রম্নশো ‘সামাজিক চয়ন তত্ত্ব’ এর প্রবক্তা নোবেল

বিজয়ী অধ্যাপক অমর্ত্য সেন এবং ‘সমাজতন্ত্র’ এর প্রবক্তা কাল মার্কস।

* বিখ্যাত সমাজবিজ্ঞানী ইবনে খালদুন এর একটি বিখ্যাত বইয়ের নাম ‘কিতাবুল ইবার’।

* ‘ছোট প্রাণ ছোট ব্যাথা, ছোট ছোট দুঃখ কথা নিতামত্মই সহজ সরল’-ছোটগল্প সম্পর্কে উক্তিটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের।

* ব্যাংকিং শিল্পে কোন ধরনের স্ক্যানার ব্যবহৃত হয়-এম আই সি আর (MICR)

* বাংলাদেশ ২০১৩ সালে দূতাবাস চালু করে-ব্রাজিল, মেক্সিকো, লেবানন, মরিশাস ও পর্তুগালে।

* ২০১১ সালের পঞ্চম আদম শুমারি অনুযায়ী আয়তনে দেশের বৃহত্তম উপজেলা সাতক্ষীরার শ্যামনগর এবং ক্ষুদ্রতম উপজেলা

নারায়নগঞ্জের বন্দর।

* Guardian-ad-litem: যিনি কোন মোকদ্দমায় নাবালকের প্রতিনিধিত্ব করেন তাকে Guardian-ad-litem বলে।

* ১ টাকা ২ ও  ৫ টাকার নোটকে সরকারি নোট বলে। সরকারি নোটে স্বাক্ষর থাকে অর্থ সচিবের।

* Means rea অর্থ A guilty mind (দুষ্ট মন)

* Sine quo non অর্থ An indispensable requisite (অপরিহার্য শর্ত)

* Sub judice অর্থ Matter under judicial proceeding (বিচারাধীন)

* ব্যাংক নোটে (১০ টাকা থেকে ১০০০ টাকা) স্বাক্ষর থাকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্ণরের।

*সুলতানী আমলে বাংলার রাজধানী ছিল ৫টি। যথা-

স্থাপনকারী রাজধানী সময়কাল
বখতিয়ার খলজী লখনৌতি (লক্ষ্মণাবতী) ১২০৪-১৩৩৮
ফকরম্নদ্দীন মোবারক শাহ সোনারগাঁও (স্বর্ণগ্রাম বা সুবর্ণগ্রাম) ১৩৩৮-১৩৫২
শামসুদ্দীন ইলিয়াস শাহ পান্ডুয়া ১৩৫২-১৪১৮
জালালউদ্দীন মুহম্মদ শাহ গৌড় ১৪১৮-১৫৬৫
সুলতান সুলায়মান কররানী তান্ডা ১৫৬৫-১৫৭৫

 

* ইংরেজি ‘The’ এর উচ্চারণ কখণ ‘দ্য’ এবং কখন ‘দি’ হয়?

‘The’ সাধারণত Consonat-এর পূর্বে বসলে ‘দ্য’ Vowel-এর পূর্বে বসলে ‘দি’ উচ্চারিত হয়।

 

* ইংরেজি বর্ণ ‘G’ এর উচ্চারণ কখন ‘জ’ এবং কখন ‘গ’ হয়?

সাধারণত কোন শব্দে G-এর পরে e, i, y থাকলে তার উচ্চারণ ‘জ’ (j) হয় (যেমনঃ Large-লার্জ, Energy-এনার্জি, Logical-লজিক্যাল এবং G-এর পরে ফাঁকা স্থানসহ অন্য যে কোন শব্দ থাকলে  G-এর উচ্চারণ ‘গ’ হয়। যেমনঃ Bag-এ্যাগ, Egg-ব্যাগ, Dig-ডিগ ইত্যাদি। ব্যতিক্রমঃ Get, Give, Gift ইত্যাদি।

 

* সার্কভুক্ত দেশ আফগানিসত্মানে বর্তমানে বাংলাদেশের কোন দূতাবাস নেই। ১৯৮৯ সালে আফগানিসত্মানে বাংলাদেশের দূতাবাস

বন্ধ করে দেয়া হয়।

* মধ্য আমেরিকার সুইজারল্যান্ড বলা হয় কোস্টারিকা-কে। স্প্যানিশ ভাষায় কোস্টারিকা অর্থ-সমৃদ্ধ উপকূল।

* বাংলাদেশের তৈরী ৫টি যুদ্ধ জাহাজ হলো-বানৌজা পদ্মা, অপরাজেয়, অদম্য, অতন্দ্র এবং সুরমা।

* বর্তমানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান-জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক (১৭তম)।

* আইন কমিশনের বর্তমান প্রধান-সাবেক বিচারপতি এ বি এম খায়রম্নল হক।

* ড্রপবক্স: ড্রপবক্স হলো বিনামূল্যে ইন্টারনেটে তথ্য, ছবি সংরক্ষণের সাইট।

* সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক নিবাস-পাবনা জেলায়। তার প্রকৃত নাম-রমাসেন গুপ্তা। সুচিত্রা সেনকে নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র-

সদরঘাট।

* পরিবেশ দুর্যোগ ও বিপর্যয় সূচকে সারা বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান-১ম।

* বাংলাদেশের প্রথম মহিলা রাষ্ট্রদূতের নাম-মাহমুদা হক চৌধুরী।

* ইরান ও সৌদি আরবের পতাকা কখনো অর্ধনমিত করা হয় না।

* সংবিধান প্রণয়ন কমিটির প্রধান ছিলেন ড. কামাল হোসেন।

* বাংলাদেশে প্রশাসনিক কাঠামোর সর্বনিম্ন সত্মর হলো ইউনিয়ন পরিষদ।

* বাংলাদেশের ’বিশেষ ক্ষমতা আইন’ ১৯৭৪ সালে পাশ করা হয়।

* ১৯৯২ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর ’সন্ত্রাস দমন অধ্যাদেশ’ জারি করা হয়।

* জাতীয় সংসদে ’সন্ত্রাস দমন বিল’ পাশ হয় ১৯৯২ সালের ১ নভেম্বর।

* বাংলাদেশে ৭ বছর পর্যমত্ম শিশু কাজ অপরাধ বলে গণ্য হয় না।

* পারিবারিক আদালত হিসেবে কাজ করে সহকারী জজের আদালত।

* বাংলাদেশ গণপরিষদের প্রথম স্পীকার ছিলেন-শাহ আব্দুল হামিদ।

* বালাদেশের সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের নিয়োগ দেন-রাষ্ট্রপতি।

* E-number বলতে খাদ্যে ব্যবহৃত কৃত্রিম রং-কে বুঝায়।

* জাতীয় মাশরম্নম উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ কেন্দ্র সাভারে অবস্থিত।

* বাংলাদেশে নাইট উপাধিপ্রাপ্ত একমাত্র ব্যক্তি ফজলে হোসেন আবেদ।

* যুক্তরাজ্যে প্রথম বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত এমপি-রম্নশনারা আলী।

* P. B . Shellely এর পূর্ণ নাম- Percy Bysshe Shellely

* ঐতিহাসিক ‘পলাশী’ প্রাসত্মর ভারতের নদীয়া জেলায় অবস্থিত।

* বিগত ৫০ বছরের সেরা ফুটবলার-ফ্রান্সের জিনেদিন জিদান।

* ট্রুথ কমিশনের বর্তমান চেয়ারম্যান কে?  পদটি বর্তমানে বিলুপ্ত।

* দেশে তৈরী প্রথম যুদ্ধ জাহাজ-পেট্রল ক্রাফট যার দৈর্ঘ্য ৫৪ মিটার।

* Keats এর বিখ্যাত উক্তি- Beauty is truth, truth is beauty.

* পশ্চিম বঙ্গের বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের নাম কি?-তৃণমূল কংগ্রেস।

* কৃত্রিমভাবে ফল পাকানো হয় ইথোফেন ও ক্যালসিয়াম কার্বাইড দিয়ে।

* মানুষের রিপু ছয়টি-কাম, ক্রোধ, হিংসা, মাৎ, মোহ এবং লোভ।

* ‘মুহুরীর চর’ ‘পাটনী চর’ ‘দুবলার চর’ ফেনী জেলায় অবস্থিত।

* আফগানিসত্মানের বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম-কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়।

* কাজাখসত্মানের রাজধানীর নাম-আলমাআতা এবং মুদ্রার নাম-টেনডো।

* তাজিকিসত্মানের রাজধানীর নাম-দুশানবে এবং মুদ্রার নাম-রম্নবল।

* ‘স্বাধীনতার সুখ কবিতাটি লিখেছেন-কবি রজনীকামত্ম সেন।

* উজবেকিসত্মানের রাজধানীর নাম-তাসখন্দ এবং মুদ্রার নাম-সোম।

* পাদুয়া সিলেট জেলায় অবস্থিত। রামমালা কুমিলস্নায় অবস্থিত।

* বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় এবং প্রধান স্থল বন্দর হচ্ছে-বেনাপোল।

* দক্ষিণ সুদানের রাজধানীর নাম-জুবা এবং মুদ্রার নাম-সুদানিজ পাউন্ড।

* ‘কাজলা দিদি’ কবিতাটি লিখেছেন-যতীন্দ্রমোহন বাগচী

* ‘স্যান্ডোষ’ অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক তেল-গ্যাস অনুসন্ধান কোম্পানি।

* বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতের নাম- মার্শা স্টিফেনস বস্নুম বার্নিকাট।

* তিববতের নির্বাসিত সরকারের বর্তমান প্রধান-লবস্যাং সাঙ্গে।

* সুনেত্র গ্যাসক্ষেত্রটি-সুনামগঞ্জ নেত্রকোনার সংযোগস্থলে অবস্থিত।

* Local Government এর সর্বনিম্ন সত্মরের নাম- ইউনিয়ন পরিষদ।

* পুরম্নষ নদী বগুড়ায় এবং মহিলা নদী দিনাজপুরে অবস্থিত।

* দেশের সংবাদ মাধ্যমকে চতুর্থ শক্তি বা Fourth State বলা হয়।

* বাংলা একাডেমির বর্তমান মহাপরিচালক-অধ্যাপক শাসসুজ্জামান খান।

* বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো আদম শুমারি পরিচালনা করে।

* মেজর জেমস রেনেল সর্ব প্রথম বাংলাদেশের মানচিত্র আকেন।

* দেশে বায়ু চালিত বৃহৎ বিদ্যুৎ কেন্দ্র কুতুবদিয়ায় অবস্থিত।

* ১৮৬৪ সালে নির্মিত বাকল্যান্ড বাধ বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত।

* বিশ্বের বৃহত্তম বইমেলার নাম হচ্ছে ফ্রাঙ্কফুট বইমেলা।

* জাতীয় স্মৃতিসৌধ ১০৯ একর জমির উপর গড়ে উঠেছে।

* ১৮৬৪ সালে ঢাকা সর্বপ্রথম পৌরসভার মর্যাদা লাভ করে।

* বাংলাদেশের তৈরী প্রথম যুদ্ধ জাহাজ হচ্ছে-বিএনএস পদ্মা।

* হাকালকি হাওর সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলায় অবস্থিত।

* বাংলাদেশের বৃহত্তম গ্রাম হলো হবিগঞ্জের বানিয়াচং গ্রাম।

* City of Music বলা হয় স্কটল্যান্ডের গস্নাসগো শহরকে।

* City of Literature বলা হয় ইংল্যান্ডের এডিনবার্গ শহরকে।

* বাংলাদেশ ১৯৭৪ সালে জাতি সংঘের ১৩৬-তম সদস্যপদ লাভ করে।

* সোয়াচ অব নো গ্রাউন্ড হচ্ছে বঙ্গোপসাগরের একটি খাদের নাম।

* হাম হাম জল প্রপাত মৌলভীবাজার জেলায় অবস্থিত।

 

* বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রথম নারা ছাত্রীসেনা-জান্নাতুল ফেরদৌস।

* বাংলাদেশের একমাত্র পোস্টার একাডেমি রাজশাহীতে অবস্থিত।

* জর্জ হ্যারিসনের ব্যান্ডদল-বিটলস ১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠিত।

* বাংলাদেশে প্রথম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার মেয়াদ ১৯৭৩-১৯৭৮।

* নেলসন ম্যান্ডেলার পুরো নাম-নেলসন রোলিহলাহা মান্ডেলা।

* একক বিষয়ে সর্বোচ্চ ৩ জনকে নোবেল পুরস্কার দেওয়া যায়।

* স্বাধীন বিচার বিভাগের যাত্রা শুরম্ন হয় ১ নভেম্বর ২০০৭।

* বাংলাদেশের প্রথম মহিলা রাষ্ট্রদূতের নাম মাহমুদা হক চৌধুরী।

* সুন্দরবনের পাশের নদীর নাম-পশুর, হাড়িয়াভাঙ্গা ইত্যাদি।

* বাংলাদেশে ১৯৭৬ সালে স্থানীয় শাসন অর্ডিন্যান্স জারি করা হয়।

* আমি প্রত্যহ ইত্তেফাক রাখি। I subcribe the Ittefaq daily.

* গাড়িতে আগুন দেওয়া হয়েছে। The car has been set fire.

* আমার বাবা ব্যবসা করেন। My father runs a business.

* ২০৪৭ সালে চীনের দ্বৈতনীতির মেয়াদ শেষ হবে (চীন ও হংকং)।

* জাতিসংঘে বাংলাদেশের চাঁদার হার-মোট বাজেটের ০.০১ শতাংশ।

* টিএমএসএস এর Elaboration হচ্ছে-ঠ্যাঙ্গা মারা সবুজ সংঘ।

* সুইজারল্যান্ড জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে-২০০২ সালে।

* ‘‘মুনাফা হল উদ্যোক্তার ঝুঁকি গ্রহণের পুরস্কার’’-অধ্যাপক মার্শাল।

* “Justice delayed is Justice denied”-Gold Stone

* পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি স্বর্ণ উত্তোলিত হয়-দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে।

* বাংলাদেশে জাতীয় পতাকার সাথে মিল আছে জাপানের পতাকার।

* বাংলাদেশের ৫ জন ব্যক্তি ৬ বার এভারেস্ট জয় করেছেন।

* ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ এর রচয়িতা-বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

* কবি জসীমউদ্দিন কর্তৃক রচিত ‘কবর’ কবিতাটি ১১৮ লাইনের।

* NEC stands for National Economic Council.

* বাংলদেশে প্রথম এজেন্ট ব্যাংকিং চালু করে-ব্যাংক এশিয়া।

* বর্তমানে বাংলাদেশের বৃহত্তম যুদ্ধজাহাজ-সমুদ্র জয়।

* পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ডের মোট সদস্য সংখ্যা-৬জন।

* বর্তমান অর্থ সচিব-মাহবুব আহমেদ।

* বাংলাদেশের মোট সমুদ্র সীমা-১,১৮,৮১৩ বর্গ কি. মি.

* জীনের রাসায়নিক উপাদান হচ্ছে-ডিএনএ।

* বাংলাদেশের মৌলভীবাজার জেলায় চা বাগান সবচেয়ে বেশি।

* ইন্টারনেটের ব্যবহার শুরম্ন হয় ১৯৬৯ সাল থেকে।

* ক্রেডিট কার্ডের বিপরীতে ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়া যায়।

* বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা (WTO) এর বর্তমান সদস্য দেশ-১৬৪টি।

* জাতিসংঘের পতাকায় দুটি রং আছে। যথা-নীল ও সাদা।

* পাহাড়পুর বৌদ্ধ সভ্যতার নিদর্শন।

* যুক্তরাষ্ট্রের ‘ওয়াল স্ট্রীট’ শেয়ার বাজারের জন্য বিখ্যাত।

* বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন খেলা হকি।

* হো চি মিন নগরের পূর্ব নাম-সায়গন।

* জিম্বাবুয়ের পূর্ব নাম-রোডেশিয়া।

* পলাশীর যুদ্ধ হয়েছিল-২৩ জুন, ১৭৫৭ সালে।

* দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জাপান আত্মসমর্পণ করে-১৪ আগস্ট, ১৯৪৫ সালে।

* ঐতিহাসিক ‘ওয়াটার লু’ যুদ্ধক্ষেত্র অবস্থিত-বেলজিয়ামে।

* শতবর্ষব্যাপী যুদ্ধ সংগঠিত হয়-ব্রিটেন ও ফ্রান্সের মধ্যে।

* ইরানে ইসলামী বিপস্নব শুর হয়-১৯৭৯ সালে।

* একুশে পদক প্রবর্তন করা হয় ১৯৭৬ সালে।

* আধুনিক আসত্মর্জাতিক আইনের জনক-হুগো গ্রসিয়াস।

* মহাত্মা গান্ধীকে ‘মহাত্মা’ উপাধিতে ভূষিত করেন-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

* নিউমোনিয়া শব্দটির ইংরেজি বানান-Pneumonia.

* বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্ণরের মেয়াদকাল-৪ বছর।

* যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি বৈদেশিক মুদ্রা আয় করে।

* পূর্বাশা দ্বীপের অপর নাম-দক্ষিণ তালপট্রি দ্বীপ।

* বাংলাদেশের তৈরী প্রথম যাত্রীবাহী জাহাজের নাম-এমভি বাঙালী।

* ‘মুজিব ভাই’ গ্রন্থের লেখক-এবিএম মূসা।

* সাজাপ্রাপ্ত বন্দি বিনিময় চুক্তি আছে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে।

* ‘চিকুনগুনিয়া’ এক ধরণের মশাবাহিত ভাইরাসজনিত রোগ।

* একসেস টু ইনফরমেই্শন (A2I) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীন।

* ঢাকায় প্রথম ডিজিটাল বাস চালু হয় ১০ এপ্রিল ২০১৪ সালে।

* বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন কেন্দ্র-হালদা নদী।

* বাংলাদেশের সীমানা বিভক্তকারী নদী-২টি।

* বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় বিল পাশ হয় ১৯৯২ সালে ৫ আগস্ট।

* নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়।

* প্রতি সেকেন্ডে এক ঘনফুট পানির প্রবাহকে এক কিউসেক পানি বলে।

* ঢাকার সাথে নদী পথে সরাসরি সংযোগ নেই-রাঙ্গামাটি জেলার।

* সাংবিধানিক রাজতন্ত্র বিদ্যমান আছে ইংল্যান্ড ও স্পেনে।

 

* কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের দৈর্ঘ্য-১২০ কি.মি.

* হালদা নদীর উৎস ও সমাপ্তি বাংলাদেশের অভ্যমত্মরে।

* বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার মাপের অনুপাত-১০ঃ৬।

* গণপরিষদ আদেশ জারি হয়-২৩ মার্চ, ১৯৭২ সালে।

* বাংলাদেশের প্রথম হসত্মলিখিত সংবিধান-৯৩ পাতা।

* পূর্ব বাংলার প্রথম মুখ্যমন্ত্রী-খাজা নাজিমউদ্দিন।

* শেষ মুঘল সম্রাট-দ্বিতীয় বাহাদুর শাহ জাফর।

* সতীদাহ প্রথা নিবারণ করেন-লর্ড বেন্টিংক।

* ঢাকা পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়-১৮৬৪ সালে।

* ডাঃ মিলন ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর নিহত হন।

* বাংলাদেশে জেলা পরিষদের সংখ্যা ৬১টি।

* একদিনের ক্রিকেট ম্যাচ শুরম্ন হয় ১৯৭১ সালে।

* গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। It is drizzling.

* হটেনটট হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকার আদি অধিবাসী।

* মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ সত্মর হচ্ছে সেকশন।

* ‘‘রাষ্ট্র হলো পরিবারের সম্প্রসারিত রূপ’’-এরিস্টটল।

* ‘‘সাম্রাজ্যবাদ পুঁজিবাদের সর্বশেষ পর্যায়’’-লেলিন।

* ‘‘সততাই সর্বোৎকৃষ্ট পন্থা’’-বেনজামিন ফ্রাংকলিন।

* “Workers of the world unite”-কার্ল মার্কস।

* দেশের প্রথম নগর মাতা- ডা: সেলিনা হায়াৎ আইভি।

* E-Eight (E-8) হল পরিবেশ দূষণকারী ৮টি দেশ।

* ডেমোক্রেসি মনুমেন্ট থাইল্যান্ডের ব্যাংক এ অবস্থিত।

* হ্যালির ধুমকেতু আবার দেখা যাবে ২০৬২ সালে।

* ‘‘গণতন্ত্রই সর্বোৎকৃষ্ট শাসন ব্যবস্থা’’-লর্ড ব্রাইস।

* বিশ্বের বৃহত্তম বইমেলা অনুষ্ঠিত হয়-ফ্র্যাঙ্কফুর্ট এ।

* তিববতের ধর্মীয় নেতাকে বলা হয়-দালাইলামা।

* বাংলাদেশের প্রথম প্রধান নির্বাচন কমিশনার-এম ইদ্রিস।

* আন্ডার ওয়াটার ড্রোন হলো-চালকবিহীন ডুবোজাহাজ।

* বাংলাদেশে মুসলমান উপজাতি হচ্ছে-পাঙ্গন উপজাতি।

* চাকরিটা আমার খুব দরকার। I badly need the job.

* নদীর বিজ্ঞানসম্মত বিদ্যাকে Potomology বলে।

* বাংলা একাডেমির বর্তমান সভাপতি-ড. আনিসুজ্জামান।

* বাংলাদেশ ব্যাংকের দশম শাখা ময়মনসিংহে অবস্থিত।

* বাংলাদেশের ক্রীড়া সঙ্গীতের রচয়িতা সেলিনা রহমান।

* জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বর্তমান মন্ত্রী-সৈয়দ আশরাফ।

* ভারতের প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রীর নাম-সুচেতা কৃপলানি।

* VCNB হচ্ছে Village Crime Note Book.

* বিশ্বের প্রথম ক্রিকেট ক্লাব হচ্ছে-মেরিলিবন ক্রিকেট ক্লাব।

* মুহাজির অর্থ হিজরতকারী এবং আনসার অর্থ সাহায্যকারী।

* বাংলাদেশে পিতৃতান্ত্রিক উপজাতি হচ্ছে-মারমা ও হাজং।

* ময়মনসিংহ গীতিকা সম্পাদন করেন ড.দিনেশ চন্দ্র সেন।

* বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো জনসংখ্যা সমস্যা।

* মুসলিম পারিবারিক আইন প্রণয়ন করা হয়-১৯৬১ সালে।

* ঝম ঝম বৃষ্টি হচেছ। It is raining cats and dogs.

* ইনানী সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার জেলায় অবস্থিত।

* TIB-এর বর্তমান চেয়ারম্যান-সুলতানা কামাল।

* ব্রহ্মপত্রের কবি বলা হয় ভূপেন হাজারিকাকে।

* বাংলাদেশে শতকরা ১.০৮ ভাগ উপজাতি বাস করে।

* ইউরেনিয়াম পাওয়া গেছে কুলাউড়া পাহাড়ে।

* সামাজিক চুক্তি মতবাদের প্রবক্ত-রম্নশো।

* ‘‘যুদ্ধই জীবন, যুদ্ধই সার্বজনীন’’-হিটলার।

* ‘‘আইন হলো পক্ষপাতহীন যুক্তি’’-এরিস্টটল।

* ‘‘জনগনই সার্বভৌম ক্ষমতার অধিকারী’’-রম্নশো।

* লর্ড ম্যাকলে ১৮৯৮ সালে Cr. Pc Draft করেন।

* প্রায় ১০০ বছর বাংলা নীল চাষ অব্যাহত ছিল।

* সুলতানা কামাল সেতু তুরাগ নদীর তীরে অবস্থিত।

* সার্কভুক্ত দেশ-মালদ্বীপে কোন বিশ্ববিদ্যালয় নেই।

* বাংলাদেশে ন্যায়পাল আইন পাশ হয় ১৯৮০ সালে।

* ঘাঘট ব্রীজ-সাদুলস্নাপুর, গাইবান্ধায় অবস্থিত।

* বাংলাদেশে সিটি কর্পোরেশনের সংখ্যা-১১টি।

* Sunshine Policy এর প্রবক্তা কিম দায়ে জং।

* নেপালের আইনসভার নাম-কংগ্রেস।

 

* প্রশাসন মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের অধীন।

* সিভিল সার্ভিস ডেই্-১ সেপ্টেম্বর।

* ১৮০৯ সালে সুইডেনে সর্বপ্রথম ন্যায়পাল গঠিত হয়।

* প্রধানমন্ত্রী নির্বাহী বিভাগের প্রধান।

* লর্ড ম্যাকলে ১৮৯৮ সালে Cr. Pc Draft করেন।

* বাংলাদেশে সিভিল সার্ভিস দিবস-১ সেপ্টেম্বর।

* উপজেলা ব্যবস্থা চালু হয় ১৯৮৫ সালে।

* CrPc এর ধারা মোট ৫৬৫টি।

* পাইলটবিহীন বিমানকে ড্রন বলে।

* Waste Land is a poem of T. S. Eliot.

* বঙ্গবন্ধু ধানের অপর নাম হচ্ছে মঙ্গা ধান।

* সুন্দরবনের আয়তন ৬৭৬৭ বর্গ কি. মি.

* Public Administration এর প্রধান-প্রধানমন্ত্রী।

* যাহা ৫২ তাহাই ৫৩- What is 52 that is 53.

* খানসামা শব্দের অর্থ-গৃহপরিচারক।

* ইহুদিদের উপসনালয়ের নাম-সিনাগগ।

* রবীন্দ্রনাথের কুঠিবাড়ী শিলাইদহ, কুষ্টিয়া।

* শেষ মুঘল সম্রাট-দ্বিতীয় বাহাদুর শাহ।

* বাংলাদেশের মোট সীমা-৫১৩৮ কি.মি.

* ‘সোনালী কাবিন’ কার লেখা? -আল মাহমুদ

* হোটেল শেরাটনের বর্তমান নাম-রূপসী বাংলা।

* ‘উজবক’ তুর্কি শব্দ

* দ্বি-জাতি তত্ত্বের প্রবক্ত-মুহাম্মদ আলী জিন্নাহ

* ‘স্পার্টা’ নগরী গ্রীসে অবস্থিত।

* ‘মারাঠা’ বর্গী নামে পরিচিত ছিল।

* কলকাতা নগরীর প্রতিষ্ঠাতা-জব চার্নক

* বৈজ্ঞানিক ইতিহাসের জনক-থুকিডাইসিস

* ‘বাংলাদেশ স্কয়ার’ লাইবেরিয়ায় অবস্থিত।

* ব্রিটেন রোম সাম্রাজ্যের অধীন ছিল।

* এশিয়ার উচ্চতম ব্রিজ হচ্ছে-হাজং ব্রিজ।

* ‘গুরম্নদুয়ারা’ শিখদের উপাসনালয়।

* ‘একটি ফটোগ্রাফ’ শামসুর রাহমানের লেখা।

* বারদুয়ারী মসজিদ শেরপুরে অবস্থিত।

* চসেস্কু রম্নমানিয়ার স্বৈরাশাসক ছিলেন।

* ‘‘আইন রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বে’’- অধ্যাপক লাস্কি।

* আমগাছ বাংলাদেশের জাতীয় বৃক্ষ।

* চা উৎপাদনে শীর্ষ দেশ-চীন।

* ‘দুই বিঘা জমি’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা।

* সীডর প্রবাহিত হয় ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর।

* BANBEIS ১৯৭৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।

* আমলাতন্ত্রের জনক Max Weber.

* এ পর্যমত্ম নোবেল বিজয়ী নারী-৪৪ জন।

* বাংলাদেশে ২১টি জেলায় রেল লাইন নাই।

* সুন্দরী গাছকে লুকিং গস্নাস ট্রি বলা হয়।

* গ্রীনহাউস গ্যাস নির্গমনে শীর্ষ দেশ-চীন।

* উইকিলিক্স পার্টি অষ্ট্রেলিয়ার রাজনৈতিক দল।

* পিলখানা হত্যা দিবস ২৫ ফেব্রম্নয়ারি।

* Statesman ভারতের পত্রিকা।

* এভারেস্ট দিবস পালিত হয়-২৯ মে।

* জাতীয় পরিচয় পত্রের মেয়াদ-১৫ বছর।

* বাংলাদেশে শিশু মৃত্যুহার হাজারে ৬৫ জন।

* ৯ আগস্ট জাতীয় জ্বালানী নিরাপত্তা দিবস।

* ‘‘মানুষ সামাজিক জীব’’-এরিস্টটল।

* ইসরাইলের পার্লামেন্টের নাম-Knesset (নেসেট)

* গ্রীসকে গণতন্ত্রের সূতিকাগার বলা হয়।

* বাংলাদেশে ৩৩ প্রকার উপজাতির বাস।

* বাংলাদেশে ‘নাগা’ উপজাতি বসবাস করে না।

* মাতৃতান্ত্রিক উপজাতি হচ্ছে-মারমা উপজাতি।

* সুদানের আগের/পূর্বের রাজধানীর নাম-খার্তুম।

* বিচার বিভাগ পৃথক হয়-১ নভেম্বর, ২০০৭ সালে।

* Looking Glass বলা হয়-সুন্দরী গাছকে।

 

* বর্তমানে দেশে উপজেলার সংখ্যা ৪৯০টি (সর্বশেষ-কর্ণফুলী উপজেলা, চট্রগ্রাম)।

* জাতীয় পরিবেশ কমিটির প্রধান-প্রধানমন্ত্রী।

* বাংলাদেশের তৈরী পোশাক শিল্পের পথিকৃৎ এম নুরম্নল কাদের।

* Blue Economy:Playing It My Way সমুদ্র অর্থনীতির সাথে সংশিস্নষ্ট।

* আল কায়েদার দক্ষিণ এশীয় শাখার নাম-কায়েদাত আল জিহাদ।

* বর্তমানে দেশে বিশেষায়িত ব্যাংক ৯টি। সর্বশেষ বিশেষায়িত ব্যাংক পলস্নী সঞ্চয় ব্যাংক।

* ২০১৮ সালে ১৮তম এশিয়ান গেমস জাকার্তা, ইন্দোনেশিয়ায় অনুষ্ঠিত হবে।

* প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা হোসেন পুতুল বাংলাদেশের প্রথম ব্যক্তি হিসেবে ‘অ্যাওয়ার্ড ফর এক্সিলেন্স ইন পাবলিক হেলথ’ পুরস্কার লাভ করেন। শিশুদের জটিল মানসিক পীড়া (অটিজম) মোকাবিলা ও জনস্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে অসামান্য অবদান রাখায় তাকে এ সম্মাননায় ভূষিত করা হয়।

* সবচেয়ে বেশি দরিদ্র মানুষ অধ্যুষিত বিভাগ রংপুর (৪২%)।

* সবচেয়ে কম দরিদ্র মানুষ অধ্যুষিত বিভাগ সিলেট (২৫.১০%)।

* সবচেয়ে বেশি দরিদ্র মানুষ অধ্যুষিত জেলা কুড়িগ্রাম (৬৩.৭%)।

* সবচেয়ে কম দরিদ্র মানুষ অধ্যুষিত জেলা কুষ্টিয়া (৩.৬০%)।

* বিশ্বকাপ ইতিহাসে সর্বাধিক গোলদাতা জার্মানীর মিরোসস্নাভ ক্লোসা।

* বিশ্বকাপে সর্বাধিক গোল করা ও গোল হজম করা দল-মেক্সিকো।

* দরিদ্র মানুষের সংখ্যায় বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান ৪র্থ।

* দেশের প্রথম কারা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র খুলনায় অবস্থিত।

* সার্কভুক্ত দেশে মাথাপিছু আয়ে শীর্ষ দেশ-মালদ্বীপ।

* সার্কভুক্ত দেশে স্বাক্ষরতার হারে শীর্ষ দেশ- মালদ্বীপ।

* ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্ব এইডস মুক্ত হবে।

* এইডস এ শীর্ষ দেশ দক্ষিণ আফ্রিকা (৬৩ লক্ষ)।

* ইরাকের বর্তমান প্রেসিডেন্ট-ফুয়াদ মাসুম যিনি কুর্দি সম্প্রদায়ের লোক।

* বর্তমানে বিশ্বে এইচআইভি নিয়ে বাস করছে ৩.৫ কোটি মানুষ।

* বিশ্বব্যাংকের জরম্নরি তহবিলের পরিমাণ-২২৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

* জনপ্রশাসনের বর্তমানে জ্যৈষ্ঠ সচিবের সংখ্যা-১৪ জন।

* যুক্তরাজ্যে বর্তমান পররাষ্ট্র মন্ত্রীর নাম-ফিলিপ হ্যামন্ড।

* ১৯তম সার্ক শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে-পাকিসত্মানে।

* বিইউ সয়াবিন-১ জাতের উদ্ভাবক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

* বিমান বাহিনীতে যুক্ত হওয়া নতুন যুদ্ধবিমান-রাঙ্গা প্রভাত।

* সার্ক ব্যাংক গঠনের প্রসত্মাবক দেশ-ভারত।

* বিশ্বকাপ ইতিহাসে টানা চারবার সেমিফাইনাল ওঠে জার্মানী।

* ইরাকের নতুন প্রধানমন্ত্রীর নাম-হায়দার আল আবাদি।

* ইসরায়েলের বর্তমান প্রেসিডেন্ট-রিউভেন রম্নভি রিভলিন।

* থাইলান্ডের বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নাম-প্রযুত চান-ও-চা।

* ‘হার্ড চয়েস’ গ্রন্থের লেখক হিলারি ক্লিনটন।

* লিবিয়ার নতুন প্রেসিডেন্ট-আগুইলা সালেহ ঈসা।

* ইন্দোনেশিয়ার নতুন প্রেসিডেন্ট-জেকো উইদাদো।

* বিশ্বের প্রথম স্মার্ট ফোনের নাম-সিমন।

* বাংলাদেশে সিটি কর্পোরেশন-১১টি।

* বাংলাদেশের ৪৪টি জেলায় রেলপথ রয়েছে।

* বিশ্বে প্রথম মার্স ভাইরাস দেখা দেয়-সৌদি আরবে।

* বাংলাদেশের বর্তমান আইনমন্ত্রী-আনিসুল হক।

 

আয়রন ডোম

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক সহায়তায় ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা হলো আয়রন ডোম (Iron Dome)। ২৭ মার্চ ২০১১ থেকে এ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা স্থাপন করা হয়।

 

* WTO-এর বর্তমান বিধান অনুসারে কোন দেশ ১৯৮৬-৮৭ সময়কালের বাজারদরের ভিত্তিতে মোট খাদ্য উৎপাদনে সর্বোচ্চ ১০% ভর্তুকি দিতে পারে।

* ইবোলা নদী-গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্রে অবস্থিত।

 

ইবোলা ভাইরাস

গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের ইবোলা নদীর তীরে সর্বপ্রথম এ ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিয়েছিল বলে নদীর নামানুসারে ভাইরাসটির নামকরণ করা হয়-ইবোলা ভাইরাস।

* বিশ্বে বাসযোগ্য শহরের তালিকায় সবচেয়ে ভালো শহর হচ্ছে-অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন শহর।

* স্বর্ণ রিজার্ভে বিশ্বে শীর্ষ দেশ যুক্তরাষ্ট্র এবং দ্বিতীয় জার্মানী।

* এখন পর্যমত্ম টিকে থাকা বিশ্বের সবচেয়ে পুরানো ব্যাংক- Monte dei Paschi di Siena (MPS). ১৪৭২ সালে

ইতালিতে প্রতিষ্ঠিত

* সুড়ঙ্গের শহর বলা হয় ফিলিসিত্মনের গাজা শহরকে।

* ২০১৪ সালে স্কটল্যান্ডের গস্নাসগো-তে অনুষ্ঠিত ২০তম কমনওয়েলথ গেমসের মাসকট-ক্লাইড (Clyde)।

* যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের নতুন নাম-সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় এবং সড়ক বিভাগের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয়েছে-

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।

 

* আল কায়েদার নতুর শাখা

ইসলামি আইনের প্রসার ও জিহাদের পতাকা সমুন্নত রাখতে এবং খিলাফত রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আল কায়েদা প্রধান শেখ আয়মান আল জাওহারি ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ সালে এক ভিডিও বার্তায় ভারতীয় উপমহাদেশে একটি নতুন শাখা স্থাপন করেছে বলে তিনি (জাওহারি) উলেস্নখ করেন। আল কায়েদার এ নতুর শাখার অমত্মর্ভুক্ত হচেছ বাংলাদেশ, মায়ানমার, ভারতের আসাম, গুজরাট, আহমেদাবাদ ও কাশ্মীর।

* নির্বাসিত বিতর্কিত বাংলাদেশি লেখিকা তসলিমা নাসরিনের নতুন উপন্যাস-শরম।

* ভারতীয় রাজনীতিবিদ, সাবেক আমলা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং লেখক নটবর সিং রচিত আত্মজীবনীর নাম-One Life is Not

Enough.

* বিশ্বে সর্বোচ্চ গড় আয়ুর দেশ-জাপান (৮৩.৬) এবং সর্বনিম্ন গড় আয়ুর দেশ সিয়েরা লিওন (৪৫.৬)।

* জনসংখ্যায় বিশ্বের শীর্ষ দেশ চীন।

* জনসংখ্যা বৃদ্ধিতে বিশ্বের শীর্ষ দেশ ওমান (৭.৯%) এবং সর্বনিম্ন দেশ মালদোভা (-০.৮%)।

* বর্তমানে বিশ্বে জনসংখ্যা ৭৩৪.৯০ কোটি এবং বৃদ্ধির হার ১.১%।

* বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো মহিলা ডিসি নিয়োগ করা হয় ২০ মার্চ, ২০০১ সালে।

* সম্প্রতি শিল্পী শাহাবুদ্দীন সম্মনজনক ফরাসি ‘নাইট’ উপাধী লাভ করেন। এর আগে ড. মুহম্মদ শহীদুলস্নাহ ও পার্থ প্রতিম

মজুমদার এর উপাধী লাভ করেন।

* ডিজিটাল বা ভার্চুয়াল মুদ্রা বিটকয়েনের প্রচলন করেন-জাপানের সাতোশি নাকামোতো।

* বিশ্বে সবচেয়ে বেশি বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ রয়েছে-চীনে।

* মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রের প্রথম মুসলিম ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী-মোহাম্মদ কামুন।

* এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে বাংলাদেশ ১৫ আগস্ট, ২০১৪ সালে বিটকয়েন ফাউন্ডেশনে যোগ দেয়।

* ইউনিসেফের ২০১৪ সালের প্রতিবেদন অনুযায়ী বাল্য বিয়েতে শীর্ষ দেশ-নাইজার এবং বাংলাদেশ দ্বিতীয়।

* বর্তমানে বিশ্বে ৪টি দেশে নগরায়নের হার ১০০%। দেশ চারটি হলো-সিঙ্গাপুর, মোনাকো, ভ্যাটিকান সিটি ও নাউরম্ন।

* বিশ্বকাপ ইতিহাসে সর্বাধিক ১৩ বার সেমিফাইনাল খেলা একমাত্র দল জার্মানী।

* বিশ্বকাপ ইতিহাসে প্রথম দল হিসেবে নেদারল্যান্ডস স্কোয়াডের ২৩ জন সদস্যকেই মাঠে নামায়। (কোচ লুই ভন গাল,

২০১৪)

 

দেশের প্রথম নারী প্রধান প্রকৌশলী

৩০ জুন ২০১৪ সালে প্রকৌশলী বেগম খালেদা আহসান দেশের প্রথম নারী হিসেবে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। নারী হিসেবে দেশের কোন সরকারি সংস্থা/অধিদপ্তরে প্রধান  হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ এই প্রথম।

* বর্তমানে মাথাপিছু আয়ে শীর্ষ দেশ-কাতার এবং সর্বনিম্ন দেশ গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র ।

* পরিকল্পনা অনুমোদন করে ECNEC এবং পরিকল্পনা প্রণয়ন করে অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়।

* জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন আইন ২০১৪ অনুসারে শিশু জন্মের বা কোন মৃত্যুর ৪৫ দিনের মধ্যে তা নিবন্ধন বাধ্যতামূলক।

* বর্তমানে জাতিসংঘের শামিত্মরক্ষীরা মাসিক ১২১০ মার্কিন ডলার বেতন পান।

* ২১তম কমনওয়েলথ গেমস ৪-১৫ এপ্রিল, ২০১৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার গোল্ডকোস্টে অনুষ্ঠিত হবে।

* বিশ্বের নিকৃষ্টতম শহরের তালিকায় শীর্ষে সিরিয়ার রাজধানী দামেস্ক এবং দ্বিতীয় বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা।

* ২০১১ সালের আদমশুমরি অনুযায়ী দেশে ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠীর সংখ্যা-২৭টি।

* ‘বিনিয়োগ বোর্ড’ ও ‘প্রাইভেটাইজেশ কমিশন’ এর একীভূত নাম-বাংলাদেশ বিনিয়োগ ও শিল্প উন্নয়ন কতৃপক্ষ।

* একজন বাংলাদেশির দৈনিক গড়ে ২৪৩০ কিলোক্যালরি খাদ্য গ্রহণ করা প্রয়োজন। কোন ব্যক্তি দৈনিক ২১২২ কিলোক্যালরির কম খাদ্য গ্রহণ করলে তাকে দরিদ্র এবং দৈনিক ১৮০৫ কিলোক্যালরির কম খাদ্য গ্রহণ করলে তাকে চরম দরিদ্র বলে চিহ্নিত করা হয়।

* ফিলিসিত্মনের গাজাভিত্তিক ইসলামী ও রাজনৈতিক সংগঠন হামাসের সামরিক শাখার নাম-ইজ আদ্-দ্বীন আল কাসসাম

ব্রিগেড।

* গাজার উলেস্নখযোগ্য স্থানের নাম হচ্ছে-বেইত, হানুন, গাজা সিটি, জাবালিয়া, শাজাইয়া, বেইত লাহিয়া, মুসেইরাং, দেইর

আল-বালাহ, খান ইউনিস, রাফা প্রভৃতি।

* ২৬ মার্চ ২০১৪ সালে বাংলাদেশ জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে বিশ্ব রেকর্ড করে ৪৩তম স্বাধীনতা দিবসে। মোট অংশগ্রহণকারী সদস্য-২,৫৪,৬৮১ জন। গিনেস বুক অব ওয়াল্ড স্বীকৃতি দেয় ৯ এপ্রিল ২০১৪ সালে। পূর্বের রেকর্ড ছিল ভারতের (১,২১,৬৫৩ জন)

* ৩১ মার্চ ২০১৪ সালে বাংলা সাহিত্যে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ অধ্যাপক আনিসুজ্জামানকে ভারতের তৃতীয় বেসামরিক সম্মাননা- পদ্মভূষণ পুরস্কারে ভূষিত করে।

থাইল্যান্ডে সাংবিধানিক রাজতন্ত্র শুরম্ন হয়-১৯৩২ সালে।

১৯৩২ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যমত্ম থাইল্যান্ডে সামরিক অভ্যুত্থান হয় মোট ১৯ বার এর মধ্যে সফল অভ্যুত্থান-১৩ বার এবং ব্যর্থ অভ্যুত্থান ৬ বার (১৯৪৮, ১৯৪৯, ১৯৫১, ১৯৭৭, ১৯৮১, এবং ১৯৮৫)।

থাইল্যান্ডের আইন সভার নাম-National Assembly.

* ফিনল্যান্ডভিত্তিক মোবাইল ফোন নকিয়ার বর্তমান নাম-মাইক্রোসফট মোবাইল।

* ইউরোপীয় কমিশনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট-জাঁ ক্লদ জাংকার (লুক্সেমবার্গ)।

* ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডন্টের মেয়াদ কাল ৫ বছর।

* বর্তমানে বিশ্বে মেগাসিটির সংখ্যা-২৮টি এবং মেটাসিটির সংখ্যা ৭টি।

* দেশে মোট উপজেলা সংখ্যা-৪৯০টি [সর্বশেষ উপজেলা কর্ণফুলী, চট্রগ্রাম]

* ইউনেসকো প্রকাশিত প্রাপ্তবয়ষ্ক নিরক্ষর ব্যক্তির তালিকায় শীর্ষ দেশ-ভারত।

* বর্তমানে মালদ্বীপের দূতাবাস বাংলাদেশে নাই। মালদ্বীপ ২০০৮ সালে ১ এপ্রিল বাংলাদেশে দূতাবাস বা কূটনৈতিক মিশন

চালু করে পরবর্তীতে আর্থিক সংকটের কারণে ৩১ মার্চ, ২০১৪ সালে বন্ধ করে দেয়।

* দেশের জনগণের মাথাপিছু ঋণের পরিমাণ-১৬৯ ডলার বা ১৩,১৬০ টাকা।

* দেশের প্রথম জেলা হিসেবে টাঙ্গাইল জেলা বাজেট পায় ২০১৩-১৪ অর্থ বাজেটে।

* ৩ এপ্রিল ২০১৪ সালে বিদেশি নাগরিকদের ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে ঢুকতে হয় (ভিসা নিয়ে প্রথম প্রবেশকারী-ফ্রান্সের

সাংবাদিক ফিলিপ আলফনর্সি)।

* ১৬ ডিসেম্বর ২০১৩ সালে বাংলাদেশ ২৭,১১৭ জন ব্যক্তির সমন্বয়ে মানব পতাকা তৈরি করে যা ৪ জানুয়ারি ২০১৪ সালে

গিনেজ বুক অব ওয়াল্ড স্বীকৃতি দেয়।

* মায়া সভ্যতা মেক্সিকো, ইনকা সভ্যতা পেরম্ন এবং সিন্ধু সভ্যতা পাকিসত্মানে অবস্থিত।

* বর্তমানে বাংলাদেশে মোট ২৩টি সরকারি মেডিকেল কলেজ আছে (সর্বশেষ-গাজীপুর মেডিকেল কলেজ)।

* বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের বর্তমান চেয়ারম্যান-অধ্যাপক এ কে আজাদ চৌধুরী।

 

 

ভারতের ২৯তম রাজ্য-তেলেঙ্গানা

তেলেঙ্গানা ১৯৪৮ থেকে ১৯৫৬ সাল পর্যমত্মপৃথক রাজ্য ছিল। ১৯৫৬ সালের পর অন্ধ্র প্রদেশের সাথে যুক্ত হয়। ২ জুন ২০১৪ সালে তেলেঙ্গানা আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতের ২৯তম রাজ্য হিসেবে যাত্রা শুরম্ন করে। আগামী ১০ বছর পর্যমত্ম অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গনা রাজ্যে রাজধানী থাকবে হায়দ্রাবাদ। তেলেঙ্গনা রাজ্যের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী-কে চন্দ্র শেখর রাও।

 

নতুন খেলাফত রাষ্ট্র

২০০৩ সালে ইরাক যুদ্ধকে কেন্দ্র করে প্রতিষ্ঠিত এবং ১৫ অক্টোবর ২০০৬ সালে আত্ম-প্রকাশকারী ইরাকের সুন্নী সংগঠন দি ইসলামিক স্টেট ইন ইরাক অ্যান্ড দ্য লেভামত্ম (ISLL) ২৯ জুন ২০১৪ সালে সিরিয়া ও ইরাকের বেশ কিছু অংশ দখল করে সেখানে খেলাফত প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেয়। খিলাফত রাষ্ট্রের রাজধানী-আর রাক্কা, অফিসিয়াল ভাষা-আরবি, সরকার পদ্ধতি-ইসলামী খিলাফত, খলিফা-আবু বকর আল বাগদাদি [ডাক নাম-আবু দুয়া  (২৯ জুন ২০১৪], স্বাধীনতা ঘোষণা-৩ জানুয়ারি ২০১৪ এবং খিলাফত ঘোষণা-২৯ জুন ২০১৪।

 

* বর্তমানে বাংলাদেশে কার্যক্রম চালু আছে এমন বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা-৩৫টি (৩৫তম বিশ্ববিদ্যালয়-বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি, জলদিয়া, চট্রগ্রাম)।

* হামাস শব্দের অর্থ-সজীবতা ও উদ্দীপনা। হামাসের পূর্ণনাম-হরকাতুল মুকাওয়ামা আল ইসলামিয়া।

 

* সংবিধান সংশোধন (ষোড়শ) আইন, ২০১৪

  • এই আইন সংবিধান (ষোড়শ সংশোধন) আইন, ২০১৪ নামে অভিহিত হবে।
  • গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৯৬ অনুচ্ছেদ নিম্নোক্তভাবে পরিবর্তিত হবে

৯৬। বিচারপতিদের পদের মেয়াদ:

  • এই অনুচ্ছেদের বিধানাবলী সাপেক্ষে কোনো বিচারক ৬৭ বছর (সাতষট্রি) বছর বয়স পূর্ণ হওয়া পর্যমত্ম স্বীয় পদে বহাল থাকতে পারবেন।
  • প্রমাণিত অসাদচারণ বা অসামর্থ্যের কারণে সংসদের মোট সদস্য সংখ্যার অন্যূন দুই-র্ততীয়াংশের গরিষ্ঠতার দ্বারা সমর্থিত সংসদের প্রসত্মাবক্রমে রাষ্ট্রপতি প্রদত্ত আদেশ ব্যতীত কোনো বিচারককে অপসারণ করা যাবে না।
  • এই অনুচ্ছেদের (২) দফার অধীন প্রসত্মাব সম্পর্কিত পদ্ধতি এবং কোন বিচারকের অসদাচরণ বা অসামর্থ্য সম্পর্কিত তদমত্মও প্রমাণের পদ্ধতি সংসদ আইনের দ্বারা নিয়ন্ত্রন করতে পারবে।
  • কোন বিচারক মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে উদ্দেশ্য করে স্বাক্ষরযুক্ত পত্রযোগে পদত্যাগ করতে পারবেন।

 

* ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সালে দীর্ঘ ২৮ বছর পর এশিয়ান গেমস এ ফুটবলে মামুনুল ইসলামের একমাত্র গোলে আফগানিসত্মানকে পরাজিত করে।

 

আধুনিক দাসত্ব

মানব পাচার, জোরপূর্বক শ্রম, ঋণদাসত্ব, বন্দিত্ব, সেক্স ট্রাফিকিং, জোরপূর্বক বিয়ে এবং এ ধরনের অন্যান্য কর্মকা-কে আধুনিক দাসত্ব বলে। কাগজে কলমে ‘দাসপ্রথা’ বিলুপ্ত হলেও বর্তমানে বিশ্বের ১৬৭ টি দেশে আধুনিক দাসত্বের প্রচলন রয়েছে। ২০১৬ সালের আধুনিক দাসত্বের তালিকায় শীর্ষ দেশ ভারত এবং বাংলাদেশের অবস্থান চতুর্থ। জনসংখ্যার অনুপাতে আধুনিক দাসত্বের তালিকায় শীর্ষ দেশ উত্তর কোরিয়া এবং বাংলাদেশের অবস্থান দশম।

 

Floor Crossing

বাংলাদেশ সংবিধানের ৭০ ধারা অনুযায়ী কোন সাংসদ নিজ দলের বিরম্নদ্ধে ভোট দান করলে, দলের পক্ষে ভোট দানে বিরত থাকলে এবং বিনা অনুমতিতে সংসদে অনুপস্থিত থাকলে তাকে Floor Crossing বলে।

Impeachment (অভিশংসন)

বাংলাদেশ সংবিধানের ৫২ ধারা অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি নৈতিক বা গুরম্নতর অসাদাচরণের দায়ে অভিযুক্ত হলে, স্পীকারের আহবানে সংসদ অধিবেশনে সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যের অনুমতিতে রাষ্ট্রপতির বিরম্নদ্ধে অভিশংসন বিল উত্থাপন করা হয়। বিল উত্থাপনের ১৫ দিনের মধ্যে কোন আলোচনা হবে না এবং ৩০ দিন পরেও তা কার্যকর থাকবে না।

 

সরকার

সরকার হলো একটি সংগঠন যা রাষ্ট্রকে সুনিয়ন্ত্রীত এবং সুসংগঠিতভাবে পরিচালনা করে। রাজস্ব খাত থেকে যাদের বেতন-ভাতা নির্বাহ করা হয় তাদেরকে সরকারি লোক বলে। অন্যদিকে উন্নয়ন খাত থেকে যাদের বেতন-ভাতা নির্বাহ করা হয় তাদেরকে বেসরকারি লোক বলে।

 

অধ্যাদেশ ও আইনের মধ্যে পার্থক্য

সংসদ অধিবেশন না থাকাকালীন অবস্থায় অথবা সংসদের অবর্তমানে রাষ্ট্রপতি জরম্নরী ভিত্তিতে যে আইন প্রণয়ন করেন তাকে অধ্যাদেশ বলে। আর দেশের সংসদে পাশকৃত বিলকে আইন বলে। তাছাড়া, অধ্যাদেশ যখন সংসদে বিল আকারে উত্থাপিত হয় এবং সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে পাশ হয়ে রাষ্ট্রপতির অনুমোদন লাভ করে তখন তাকে আইন বলে। অধ্যাদেশ সংসদে উত্থাপিত হওয়ার পর পাশ না হলে অধ্যাদেশটি বাতিল হয়ে যায়।

 

স্থানীয় প্রশাসন

শাসন কার্যের সুবিধার্থে আধুনিক রাষ্ট্রকে কতকগুলো সুবিধাজনক ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র এলাকায় বিভক্ত করে শাসন ব্যবস্থা পরিচালনা করা হয়। একে স্থানীয় শাসন বলে।

 

Jurisprudence

Jurisprudence একটি ল্যাটিন শব্দ। এর অর্থ আইনবিজ্ঞান। যে বিজ্ঞান ‘ল’ নিয়ে আলোচনা করে তাকে Jurisprudence বলে। Jurisprudence আইনের উদ্দেশ্য, বিকাশ, কার্যাবলি ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করে।

 

ইনডেমনিটি

ইনডেমনিটি এর শাব্দিক অর্থ হলো ক্ষতি বা শাসিত্ম এড়াবার ব্যবস্থা বা নিরাপত্তা। অর্থাৎ সাংবিধানিক আইনকে বাধা দেওয়ার জন্য যে কালো অধ্যাদেশ প্রদান করা হয় তাকে ইনডেমনিটি বলে। ১৯৭৫ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর ইনডেমনিটি অর্ডিনেন্স জারি করা হয়। জিয়াউর রহমান ১৯৭৯ সালে সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনীতে এটি সংবিধানে অমত্মর্ভুক্ত করে! ১৯৯৬ সালের ১২ নভেম্বর অধ্যাদেশটি বাতিল করা হয়। বাংলাদেশের সংবিধানের ০৭ ও ২৬ নং অনুচ্ছেদ অনুসারে ইনডেমনিটি সংবিধানের অংশ হতে পারে না। তাই ইনডেমনিটি সম্পূর্ণ অবৈধ এবং অসাংবিধানিক। এই অধ্যাদেশটি বাতিল করা হয় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নিহত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারবর্গ ও অন্যান্য ব্যক্তিবর্গের হত্যার বিচারের পথ সুগম করার জন্য।

 

দুনিয়া কাঁপানো ১০দিন

‘‘দুনিয়া কাঁপানো ১০দিন’’ হলো রম্নশ বিপস্নবের দিনগুলো। ১৯১৭ সালের অক্টোবর (রম্নশ ক্যালেন্ডারে নভেম্বর) মাসে বিপস্নব সম্পন্ন হতে যে ১০ দিন সময় লেগেছিল তাকে ‘‘দুনিয়া কাঁপানো ১০ দিন’’ বলা হয়। এছাড়া, ‘‘দুনিয়া কাঁপানো ১০ দিন’’ শিরোনামে রম্নশ বিপস্নবের ঘটনা নিয়ে জন রীড একটি বিখ্যাত বই রচনা করেছেন।

 

ECNEC

ECNEC (Executive Committee of National Economic Counsil) হলো প্রকল্প অনুমোদনের ক্ষেত্রে দেশের সর্বোচ্চ সিদ্ধামত্ম প্রণয়নকারী প্রতিষ্ঠান। এর প্রধান হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী এবং বিকল্প প্রধান/সভাপতি-অর্থমন্ত্রী। সদস্য: LGRD, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয় এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবগণ, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যবৃন্দ, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ECNECএর বৈঠকে উপস্থিত থাকেন। সদস্য না হলেও যে মন্ত্রণালয় সম্পর্কে আলোচনা করা হয় সেই মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি উপস্থিত থাকতে পারেন। পরিকল্পনা বিভাগ এর ECNEC পক্ষে সাচিবিক দায়িত্ব পালন করে।

 

লাভজনক পদ: লাভজনক পদ বলতে সেই সব পদকে বুঝায় যে পদে অধিষ্ঠিত ব্যক্তিবর্গ আর্থিকভাবে লাভবান হন। অর্থাৎ সরাসরি আর্থিক সুবিধাভোগী পদই লাভজনক পদ। বাংলাদেশ সংবিধানের ৬৬ (২ক) নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী কেবল রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী, প্রতিমনন্ত্রী এবং উপমন্ত্রীগণ লাভজনক পদে অধিষ্ঠিত বলে গণ্য হবেন না।

 

ICDDRB

ICDDRB এর পূর্ণ রূপ হল- International Centre for Diarrheal Disease Research of Bangladesh. এটি উদরাময় রোগ বিষয়ক আমত্মর্জাতিক গবেষণা কেন্দ্র। এই গবেষণা কেন্দ্রটি ঢাকা শহরের মহাখালীতে অবস্থিত। ১৯৫৯ সালে প্রতিষ্ঠিত কলেরা রিসার্চ ল্যাবরেটরি, ১৯৭৮ সালে উদারময় রোগ বিষয়ক আমত্মর্জাতিক গবেষণা কেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। ঢাকা ছাড়াও চাঁদপুর জেলার মতলবে উপজেলায় একটি ফিল্ড স্টেশন আছে। এই প্রতিষ্ঠান ওরাল স্যালাইন আবিষ্কার করে সারা বিশ্বের লক্ষ লক্ষ শিশুর জীবন রক্ষা করে চলেছে। আমত্মর্জাতিক সাহার্যে পরিচালিত কেন্দ্রে উদরাময় রোগের গবেষণা ছাড়াও অন্য রোগের আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থা রয়েছে।

 

চাপ সৃষ্টিকারী গোষ্ঠী

চাপ সৃষ্টিকারী গোষ্ঠী হচ্ছে এমন এক গোষ্ঠী যার সদস্যগণ সমজাতীয় মনোভাব এবং স্বার্থের দ্বারা আবদ্ধ, স্বার্থের ভিত্তিতেই তারা পরস্পরের সাথে আবদ্ধ হন। চাপ সৃষ্টিকারী গোষ্ঠীসমূহ তাদের পছন্দের দল বা ব্যক্তিকে অর্থ দিয়ে প্রচার কাজে সাহার্য করে থাকে। তাদের পছন্দনীয় দল বা ব্যক্তি নির্বাচিত হয়ে আইন প্রণয়ন ও শাসন কাজ পরিচালনা করতে গিয়ে চাপ সৃষ্টিকারী গোষ্ঠীর স্বার্থ রক্ষা করে। প্রয়োজনবোধে চাপ সৃষ্টিকারী গোষ্ঠী মিটিং, মিছিল, শোভাযাত্রার সাহায্যে সরকারের উপর চাপ প্রয়োগ করে থাকে।

 

উন্নয়ন প্রশাসন

১৯৫৫ সালে ভারতীয় প–ত গোস্বামী সর্বপ্রথম এই শব্দটি ব্যবহার করেন। কিন্তু এর ব্যাখ্যা বিসত্মৃতি এবং পূর্ণাঙ্গতা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে আমেরিকার প–তদের অবদান সবচেয়ে বেশি। ফ্রেড ডবিস্নউ রিগ্স এর মতে, বৃহৎ সংগঠন বা সরকারের উন্নয়নের লক্ষ্য অর্জন কল্পে নীতি ও পরিকল্পনা বাসত্মবায়নের জন্য যে পন্থা অবলম্বন করা হয় তাকে সম্মিলিতভাবে উন্নয়ন প্রশাসন বলা হয়। এটি লোক প্রশাসনের একটি শাখা যা দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নকে  ঘিরে আবর্তিত হয়। দেশের আর্থ- সামাজিক অবস্থার উপর নির্ভর করে উন্নয়ন প্রশাসনের পদ্ধতি ও কৌশল গড়ে ওঠে। মূলত উন্নয়ন প্রশাসন বলতে সার্বিক অর্থনীতি বিশেষত কৃষি, শিল্প, শিক্ষা, জনস্বাস্থ্য ইত্যাদি ক্ষেত্রে পরিকল্পিত উন্নয়ন সাধনের অব্যাহত প্রয়াসকে বুঝায়। উন্নয়ন প্রশাসন প্রশাসনিক কাঠামোর সংস্কারসাধনের উপর জোর দেয়।

 

LDC

LDC stands for Least Developed Country বা স্বল্পোন্নত দেশ। স্বাল্পোন্নত দেশ বলতে সেসব দেশকে বুঝায় যাদের আর্থ-সামাজিক ও মানব উন্নয়ন সূচকে ধীরগতি পরিলক্ষিত হয়। বর্তমানে বিশ্বে স্বল্পোন্নত দেশের সংখ্যা-৪৮টি। সর্বশেষ রাষ্ট্র হিসেবে মালদ্বীপ LDC থেকে মুক্তি লাভ করে।

 

খাস জমি: সরকারের ১ নং খতিয়ান এবং ৮ নং রেজিস্টারভুক্ত সম্পত্তি যা এখনো বন্দোবমত্ম দেওয়া হয়নি তাকে খাস জমি বলে।

SDG: জাতি সংঘের Millennium Development Goals (MDG) শেষ হওয়ার পর নতুন কার্যক্রম হিসাবে ২০১৫ সাল থেকে শুরম্ন হয় Sustainable Development Goals (SDG). SDG এর মূল এজেন্ডা-দরিদ্র মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও মানব সম্পদ উন্নয়ন। জাতি সংঘ কর্তৃক গৃহীত SDG বাসত্মবায়নের লক্ষমাত্রা ২০৩০ সাল পর্যমত্ম। SDG এর লÿ্য ১৭টি।

 

Cross Voting : যখন কোন রাজনৈতিক দলের নির্বাচিত সংসদ সদস্য সংসদে নিজ দলের বিপক্ষে ভোট প্রদান করে তখন তাকে Cross Voting বলে।

 

স্টিফেন হকিং: স্টিফেন হকিং ১৯৪২ সালে ইংল্যান্ডের অক্সফোর্ডে জন্মগ্রহণকারী বর্তমান বিশ্বের শ্রেষ্ঠ পদার্থ বিজ্ঞানী। মাত্র ২২ বছর বয়সে মটর নিউরোন রোগে আক্রামত্ম হয়ে চিকিৎসা বিজ্ঞানের চরম বিস্ময় নিয়ে হুইল চেয়ারের এই বিজ্ঞানী কৃত্রিম পদ্ধতিতে বক্তৃতা দিয়ে বিশ্ববাসীকে বিস্ময়াবিভূত করে যাচ্ছেন। তিনি Big Bang (মহা বিস্ফোরণ) তত্ত্বের আধুনিক ব্যাখ্যা দিয়েছেন। তার বিখ্যাত বই হচ্ছে A Brief History of Time.

 

মাদার তেরেসা: মাদার তেরেসা ১৯১০ সালের ২৬ আগস্ট মেসিডোনিয়া প্রজাতন্ত্রে জন্মগ্রহণ করেন। তার আসল নাম অ্যাগনেস গন বোয়াজিউ। ১৯৪৭ সালে ভারতের নাগরিত্ব লাভ করেন। মানব সেবার ব্রত নিয়ে তিনি মিশনারিজ অব চ্যারিটি প্রতিষ্ঠা করেন। মানব সেবায় অসামান্য ও অনুকরণীয় অবদান রাখার জন্য তিনি ১৯৭৯ সালে শামিত্মতে নোবেল পুরস্কার পান। এছাড়া তিনি ১৯৮৫ সালে প্রেসিডেন্সিয়াল মেডেল অব ফ্রিডম পান। এই মহিয়সী নারী ১৯৯৭ সালে মৃত্যুবরণ করেন।

 

স্বামী বিবেকানন্দ: স্বামী বিবেকানন্দ ছিলেন একজন হিন্দু সন্ন্যাসী, দার্শনিক, লেখক, সংগীতজ্ঞ এবং রামকৃষ্ণ পরমহংসের প্রধান শিষ্য। তাঁর আসল নাম ছিল নরেন্দ্রনাথ দত্ত। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে হিন্দুধর্ম তথা ভারতীয় বেদামত্ম ও যোগ দর্শনের প্রচারে প্রধান ভূমিকা রেখেছিলেন। ধর্ম বিষয়ে তিনি খুব উদার ছিলেন। বাইবেল ও দেওয়ান-ই-হাফিজ ছিল তার প্রিয় বই। তিনি রামকৃষ্ণ মঠ ও রামকৃষ্ণ মিশন প্রতিষ্ঠা করনে। ভারতে বিবেকানন্দকে ‘বীর সন্ন্যাসী’ নামে অভিহিত করা হয়। তাঁকে যথাযথ সম্মান প্রদর্শনের খাতিরে তাঁর নামের আগে স্বামী (প্রভু) শব্দের ব্যবহার করা হয়।

 

গণভোট: সংবিধানের কোন বিশেষ ধারা পরিবর্তনের জন্য যে ভোট হয় তাকে গণভোট বলে। এ যাবৎ ৪ বার গণভোট হয়েছে।

 

ESCAP: ESCAP stands for The Economic and Social Commission for Asia and the pacific. ESCAP ১৯৪৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এর সদর দপ্তর ব্যাংকক।

 

ফিশন: বৃহৎ পরমাণু ক্ষুদ্র পরমাণুতে বিশেস্নষিত হওয়াকে ফিশন বলে।

ফিউশন: দুটি ক্ষুদ্র পরমাণু একত্রিত হয়ে বৃহৎ পরমাণু গঠন করাকে ফিউশন বলে। হাইড্রোজেন ব্রিক্রিয়া হচ্ছে ফিউশন বিক্রিয়া।

 

ভূ-রাজনীতি: যে রাজনীতি ভূ-ভাগকে কেন্দ্র করে নিয়ন্ত্রিত ও কেন্দ্রীভূত হয় তাকে ভূ-রাজনীতি বা Geopolitics বলে। যেমন-প্রশামত্ম মহাসাগরীয় অঞ্চল নিয়ন্ত্রণের জন্য যুক্তরাষ্ট, চীন, জাপান, ভারতসহ স্বার্থ সংশিস্নষ্ট রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে ভূ-রাজনীতি বিদ্যমান।

 

NDC (নেজারত ডেপুটি কালেক্টর)

নেজারত ফারসি শব্দ যার অর্থ নজরদারকারী। NDC পদটি সিনিয়র সহকারী কমিশনারের। NDC এর দায়িত্ব  একজন সিনিয়র সহকারী কমিশনারের পালন করার কথা থাকলেও সচরাচর একজন সহকারী কমিশনার এ দায়িত্ব পালন করে থাকেন। NDC জেলা প্রশাসকের দৈনন্দিন যাবতীয় কার্যাবলি তদারক করে থাকেন।

 

NICAR: NICAR stands for National Implementation Committee for Administrative Reforms. এর প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী।

 

New Seven Wonders: হালং বে (ভিয়েতনাম), ইগুয়াজু জলপ্রপাত (আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল), জিজু আইল্যান্ড (দক্ষিণ কোরিয়া), কোমোডো ন্যাশনাল পার্ক (ইন্টোনেশিয়া), পোয়ার্তো প্রিন্সেস আন্ডারগ্রাউন্ড রিভার (পিলিপাইন), টেবিল মাউন্টেইন (দক্ষিণ আফ্রিকা)

 

দ্বিজাতি তত্ত্ব: মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ প্রণীত দ্বিজাতি তত্ত্ব হল ধর্ম ও জাতি নির্ভর রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা। এ. কে. ফজলুল হক ১৯৪১ সালে লাহোরে দ্বিজাতি তত্ত্ব উপস্থাপন করেন। দ্বিজাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে ১৯৪৭ সালে ভারত-পাকিসত্মান বিভক্ত হয়।

 

সিএফসি (CFC): ‘ক্লোরো ফ্লোরো কার্বন’ এর সংক্ষিপ্ত রূপ হচ্ছে সিএফসি। ঊর্ধ্ব বায়ুম-লের ওজন সত্মরে পৌঁছালে সিএফসি ওজন সত্মরকে ধ্বংস করে ফলে পৃথিবীতে অতি বেগুনি রশ্মিসহ বিভিন্ন মহাজাগতিক রশ্মির আধিক্য দেখা দেয়। এর ফলে পৃথিবীতে জীববৈচিত্র্যে জীনগত পরিবর্তনসহ নানা রোগের আবির্ভাব দেখা দেয়। মূলত গ্যাজোলিয়ামবিহীন রেফ্রিজারেশন যন্ত্র সিএফসি গ্যাস নির্গমনের জন্য দায়ী।

 

উদীয়মান সূর্যের দেশ: জাপান এশিয়ার পূর্ব প্রামেত্ম এবং উত্তর গোলার্ধের একেবারে পূর্ব সীমামেত্ম অবস্থিত। জাপান উত্তর গোলার্ধের পূর্ব সীমামেত্ম অবস্থিত হওয়ায় সে দেশে অন্যান্য দেশের তুলনায় আগে সূর্যোদয় হয়। তাই জাপানকে নিপ্পন তথা ‘উদীয়মান সূর্যের দেশ’ বলা হয়।

 

DC SP এর মধ্যে পার্থক্য

জেলায় সচিবালয়ের প্রতিনিধি হিসেবে যাবতীয় নির্বাহী কার্যাবলি সম্পাদন করেন DC আর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে জেলার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করেন SP. একজন পুলিশ কর্মকর্তা যখন জেলার পুলিশ প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন তখন তিনি SP হিসেবে এবং যখন মেট্রোপলিটন জেলাতে দায়িত্ব পালন করেন তখন DC বা Deputy Commissioner of Police হিসেবে কাজ করেন।

 

ব্রেইল পদ্ধতি: ব্রেইল পদ্ধতি অন্ধদের পাঠ উপযোগী একধরনের বর্ণমালা। অষ্টাদশ শতাব্দীতে জন্মগ্রহণকারী লুইস ব্রেইল নামে একজন ফরাসি এই বর্ণমালা আবিষ্কার করেন যিনি নিজেও অন্ধ ছিলেন। হাতের আঙ্গুলের স্পর্শ বুঝার জন্য একটু উঁচুতে ছয়টি বিন্দুকে বিভিন্ন আঙ্গিকে সাজিয়ে ব্রেইল বর্ণমালা লেখা হয়। এর সাহায্যে একজন অন্ধলোক লিখতে ও পড়তে সক্ষম। ব্রেইল বর্ণ লেখার জন্য টাইপ রাইটারও আছে। লুইস ব্রেইল এর নামানুসারে এই পদ্ধতির নামকরণ করা হয় ব্রেইল পদ্ধতি।

 

রেনেসাঁ: ফরাসি শব্দ রেনেসাঁ অর্থ ‘পুনর্জন্ম’ বা ‘নবজাগরণ’। চতুর্দশ শতাব্দী থেকে ষোড়শ শতাব্দীর শেষ নাগাদ ইটালিতে রেনেসাঁর সূত্রপাত ঘটে। এর প্রভাবে ইটালিসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশের শিল্প-সাহিত্য, দর্শন, বিজ্ঞান, এমনকি ভাষা, ধর্ম এবং প্রচলিত গতানুগতিক চিমত্মা ও বিশ্বাসের ক্ষেত্রে আমূল পরিবর্তন ঘটে যায়।

বস্ন্যাক বক্স: বিমানে সংযোজিত একটি অত্যাধুনিক স্বয়ংক্রিয় তথ্যযন্ত্রবিষেশ। এটি একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যমত্ম তথ্যাদি রেকর্ড করে নিয়মিত বিরতিতে তা মুছে ফেলে পুনরায় পরবর্তী তথ্যাদি রেকর্ড করতে পারে।

 

স্থানীয় সময়: সূর্যের অবস্থান অনুযায়ী যে সময় স্থির করা হয়, তাকে স্থানীয় সময় বলে। যেমন-সূর্ষরশ্মি কোন স্থানে লম্বাভাবে কিরণ দিলে সেই সময়কে মধ্যাহ্ন হলে। মধ্যাহ্ন হতে দিনের অন্যান্য সময় নির্দিষ্ট করা যায়।

 

স্টপ প্রেস: ছাপা আরম্ভ হওয়ার পর যে খবর সংবাদপত্রে সন্নিবেশিত হয় তাকে স্টপ প্রেস বলে। অর্থাৎ স্টপ প্রেস হচ্ছে সংবাদপত্রে সন্নিবেশিত সর্বশেষ সংবাদ।

ছায়া মন্ত্রিসভা: নির্বাচনের পূর্বে বা ক্ষমতায় আসার পূর্বে রাজনৈতিক দলের প্রভাবশালী সদস্যদের মধ্যে ভবিষ্যতে কে কোন মন্ত্রনালয় পাবেন তা স্থির হয়ে যায়। আনুষ্ঠানিকভাবে অপ্রকাশিত অভ্যমত্মরীণ সিদ্ধামত্মকৃত মন্ত্রিসভাকে ছায়ামন্ত্রি সভা বলে।

 

০৫৫ ব্রিগেড: ওসামা বিন লাদেন আফগানিসত্মানে একটি নিজস্ব জঙ্গী বাহিনী গড়ে তুলেছিলেন যে বাহিনীর নাম ছিল ‘০৫৫ ব্রিগেড’।

 

সংসদীয় সার্বভৌমত্ব: সংসদীয় সার্বভৌমত্ব সংসদীয় সার্বভৌমত্ব বলতে সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যের মতামতই চূড়ামত্মবলে গণ্য হবে এবং উক্ত মতামতের বিরম্নদ্ধে আইন বিভাগ কোন পদক্ষেপ নিতে পারবে না।

 

সেভেন সিস্টারস: ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় ৭টি রাজ্যকে একত্রে সেভেন সিস্টারস বলে। রাজ্যগুলো হলো-আসাম, ত্রিপুরা, মেঘালয়, মনিপুর, মিজোরাম, অরম্ননাচল এবং নাগাল্যান্ড।

 

Diarchy: Diarch শব্দের  অর্থ দ্বেত শাসন। যে সরকারের ক্ষমতা প্রধান দুই ব্যক্তি অথবা দুই দলের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে বা ন্যসত্ম থাকে তাকে Diarchy বা দ্বৈত শাসন বলে। এটি একটি অজনপ্রিয় সরকার ব্যবস্থা।

 

Cadre: Cadre ফরাসি শব্দ, যার অর্থ-A list of officers. প্রজাতন্ত্রের সেবায় নিয়োজিত কর্মকর্তাদের কাজের ধরন ও প্রকৃতির উপর ভিত্তি করে যে শ্রেণি বিন্যাস করা হয়েছে এর একটি শ্রেণিকে ক্যাডার বলে। ‘বর্তমান বিসিএস’ এ ক্যাডারের সংখ্যা ২৮টি।

 

প্যারোল: রাজনৈতিক বন্দিকে কারণবশত শর্তাধীনে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য মুক্তি প্রদান করাকে প্যারোল বলে। প্যারোল হচ্ছে সাময়িক মুক্তি দানকালে- সেসময়ে না পালানো, নির্দিষ্ট সময় শেষে জেলে ফিরে আসা এবং মুক্ত থাকাকালীন প্রেফতারকারীর বিরম্নদ্ধে অস্ত্র প্রয়োগ না করার অঙ্গীকার।

 

রাজসাক্ষী (Approver): কোন আসামী যখন নিজের দ-মুক্তির বিনিময়ে নিজের দুষ্কর্ম ও দুষ্কমের সহচরদের বিরম্নদ্ধে সাক্ষ্য দেয় তখন তাকে রাজসাক্ষী বলে।

 

রাজতন্ত্র ও প্রজাতন্ত্রের মধ্যে পার্থক্য:

  • রাজতন্ত্রে উত্তরাধিকারসূত্রে সরকার প্রধান হয়। কিন্তু প্রজাতন্ত্রে প্রজাদের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার প্রধান হয়।
  • রাজতন্ত্র একনায়কতন্ত্রেরই অপর নাম, কিন্তু প্রজাতন্ত্রে একনায়কতন্ত্রের কোন স্থান নেই।

 

মিউনিসিপ্যালিটি, মেট্রোপলিটন সিটি, মেগাসিটির  এবং মেটাসিটির মধ্যে পার্থক্য

যেসব শহরের জনসংখ্যা ১ লক্ষের উপরে এবং ১০ লক্ষের নিচে তাকে মিউনিসিপ্যালিটি বলে। এতে সীমিত আকারে নাগরিক সুযোগ-সুবিধা থাকে। যেসব শহরের জনসংখ্যা ১০ লক্ষের উপরে এবং ১ কোটির নিচে থাকে তাকে মেট্রোপলিটন সিটি বলে। এখানে ব্যাপক পরিমাণে নাগরিক সুযোগ-সুবিধা থাকে। আর যেসব শহরের লোকসংখ্যা ১ কোটির উপরে থাকে তাকে মেগাসিটি বলে। যেসব শহরে লোকসংখ্যা ২ কোটির উপরে তাকে মেটাসিটি বলে। মেগাসিটি ও মেটাসিটিতে সর্বাধিক সুযোগ-সুবিধা বিদ্যমান থাকে।

 

অটিজম: সম্প্রতি চিকিৎসা বিজ্ঞানের গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, যদি কোন গর্ভবতী মা গর্ভবতী হওয়ার তিন মাসের মধ্যে রম্নবেলা আক্রামত্ম হয় তাহলে গর্ভের সসত্মানের স্বাভাবিক বিকাশ বাধাগ্রমত্ম হয় এবং নানা ধরনের অসঙ্গতি নিয়ে উক্ত শিশুটি ভুমিষ্ট হয় যার ফরে শিশুটির বুদ্ধিভিত্তিক স্বাভাবিক বিকাশ ব্যাহত হয় যাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় অটিজম বলে। ২৫-২৬ জুলাই ২০০৬ সালে ঢাকায় অটিজম বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে দক্ষিণ এশিয়ায় অটিজম বিষয়ক প্রথম আসত্মর্জতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

 

নীল বিদ্রোহ: ১৭৮৮ সালের দিকে ইংরেজরা উপমহাদেশে নীল চাষ শুরম্ন করে। নিজেদের ব্যবসায়িক স্বার্থে ইংরেজ নীলকররা পাইক-বরকন্দাজদের মাধ্যমে চাষীদের দিয়ে জোর করে নীল চাষে বাধ্য করত, কিন্তু তাদের যথাযথ মূল্য দিত না। বছরের পর বছর বঙ্গদেশের চাষীরা নীলকরদের নিপীড়ন সহ্য করে। এরপর ১৮৫৯-১৮৬০ সালে তারা নীল চাষের বিরম্নদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করে। এটিই ইতিহাসে ‘নীল বিদ্রোহ’ নামে পরিচিত।

 

ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট: মেজর এম এ গনির ব্যক্তিগত উদ্যোগ ও প্রচেষ্টায় ১৫ ফেব্রম্নয়ারি, ১৯৪৮ সালে ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট প্রতিষ্ঠিত হয়। সেনাবাহিনীতে তাঁর অবদানের জন্য ১৯৮১ সালে বাংলাদেশ সরকার তাঁকে স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত করে।

 

AFL-CIO: AFL-CIO মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী শ্রমিক সংগঠন। American Federation of Labor & Congress of Industrial Organization. বাংলাদেশে GSP সুবিধা বাতিলের জন্য ২০০৭ সাল থেকে AFL-CIO তদবির চালিয়ে আসছিল। অবশেষে ২০১৩ সালের ২৮ জুন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে GSP সুবিধা বাতিল করে।

 

আকসু: ICC এর দুর্নীতি দমন ইউনিটের নাম হল আকসু। এর পূর্ণ রূপ হলো Anti corruption & Security Unit. আকসু ২০০০ সালে গঠিত হয়।

 

Super Aged Country: যেসব দেশের জনসংখ্যার প্রতি পাঁচজনের মধ্যে একজনের বেশি ব্যক্তি ৬৫ বা তার বেশি বয়সের, সেসব দেশকে Super Aged Country বলে। বর্তমানে সুপার এইজড দেশের সংখ্যা ৩টি। যথা-জাপান, জার্মানী ও ইতালি। ২০২০ সালে এ সংখ্যা দাঁড়াবে ১৩টি এবং ২০৩০ সালে ৩৪টি।

 

ইউরোপীয় ইউনিয়ন: ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত রাষ্ট্র সংখ্যা-২৮টি (সর্বশেষ রাষ্ট্র-ক্রোয়েশিয়া)। ম্যাস্ট্রিট চুক্তির মাধ্যমে ১৯৯৯ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়ন একক মুদ্রা চালু করে। ইউরোপীয় মুদ্রা গ্রহণকারী মোট দেশ-১৯টি। ১ জানুয়ারি ১৮তম দেশ হিসেবে ইউরো মুদ্রা গ্রহণ করে-লাটভিয়া। ১ জানুয়ারি ২০১৫ সালে ১৯তম দেশ হিসেবে ইউরো মুদ্রা গ্রহণ করবে লিথুয়ানিয়া। ইউরোপীয় ইউনিয়ন শাসিত্মতে নোবেল পুরস্কার পায়-২০১২ সালে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদর দপ্তর-ব্রাসেলস, বেলজিয়াম এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংক জার্মানীর ফ্রাঙ্কফুটে অবস্থিত।

 

শামিত্ম শিখা: হিরোশিমা পিস মেমোরিয়াল পার্কের পেছনেই ‘শামিত্মপুকুর’ নামের আয়তাকার পুকুরের উত্তর পাড়েই রয়েছে শামিত্মর শিখা যা বিরামহীনভাবে জ্বলছে। এ শিখা প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে হিরোশিমা যেন পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত বিশ্বের জন্য সবাইকে আহবান করছে।

 

Ministry: Ministry is an administrative unit of the government consists of a division or a group of divisions.

 

কর্কট ক্রামিত্ম রেখা: বাংলাদেশের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ভৌগোলিক রেখাটির নাম কর্কট ক্রামিত্ম রেখা। দেশের মাঝামাঝি দিয়ে বয়ে যাওয়া এ রেখার কারণে এখানে মৌসুমী বায়ুর প্রভাব রয়েছে। আর এ কারণে বছরের একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যমত্ম পরিমিত পরিমাণ বৃষ্টি হয়।

 

Ecology: The science of the interrelationships between organisms and their environment is called Ecology.

 

Welfare state: Welfare state indicates that the system by which the government provides a range of free services to people who needed them. Medical education is an example of welfare state.

 

বিগত ১০ম বিসিএস থেকে ৩৫তম বিসিএস পরীক্ষায় আসা গুরম্নত্বপূর্ণ টীকা

 

আঞ্চলিক সমুদ্র (Territorial Sea)

উপকূলবর্তী রাষ্ট্র থেকে সমুদ্রের দিকে ধাবিত তিন মাইল পর্যমত্ম ব্যাপ্ত জলরাশিকে আঞ্চলিক সমুদ্র বলে। বর্তমানে আঞ্চলিক সমুদ্রের সর্বোচ্চ সীমা ১২ নটিক্যাল মাইল (১ নটিক্যাল মাইল= ১.৮৫৩ কি.মি.) পর্যমত্ম বিসত্মৃত।  আঞ্চলিক সমুদ্র আইন ১৯৬৪ সালের ১০ সেপ্টেম্বরে ৮৫টি রাষ্ট্রের সাধারণ ঐক্যমত্যের দ্বারা অনুসমর্থনের মাধ্যমে জেনেভা সম্মেলনে গৃহীত হয়।

 

অমত্মরীপ: ভূ-ভাগের কোন অংশ সরম্ন হয়ে সাগরের মধ্যে প্রসারিত হলে তাকে অমত্মরীপ (Cape)বলে। উত্তমাশা অমত্মরীপ (Cape of good hope)

 

শুমার: শুমার বলতে ‘সম্পূর্ণ গণনা’ বোঝায়। অর্থাৎ কোনো বিশেষ সম্পর্কে অবহিত হবার উদ্দেশ্যে সমগ্রকের সকল অংশ থেকে তথ্যাবলী সংগ্রহ করাকে শুমার বলা হয়। প্রয়োগবিধির ক্ষেত্রে কতকগুলো অসত্মর্নিহিত অসুবিধার কারণে শুমারের গুরম্নত্ব বর্তমানে বহুলাংশে হ্রাস পেয়েছে। বর্তমানে কেবল জনসংখ্যা বিষয়ক তথ্যাবলী সংগ্রহের উদ্দেশ্যে নিয়মিত সময়ের ব্যবধানে জাতীয় সরকারসমূহ শুমার কাজ পরিচালনা করে থাকে।

 

জেনোফোবিয়া: অপরিচিত বা বিদেশী ব্যক্তি, তত্ত্ব, সংস্কৃতি, উদ্যোগ ইত্যাদির প্রতি ভীতি ও অবিশ্বাসই হচ্ছে জেনোফোবিয়া। জেনোফোবিয়া আক্রমত্ম ব্যক্তিরা বিদেশী  বা অপরিচিত কোনো তত্ত্ব বা উদ্যোগ সম্পর্কে ভালোমন্দ আদৌ না যাচাই করে তা বর্জন করার পক্ষপাতী।

 

সতর্ক পর্যবেক্ষণকারী: বর্তমান সময়ের একটি চলতি শব্দ (Catch Word), যে সমসত্ম সংস্থা সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং মানবাধিকার সংরক্ষণসহ বিভিন্ন কর্মসূচি বাসত্মবায়নে সহায়ক ভূমিকা পালনে অভিলাষী তারা সংশিস্নষ্ট ক্ষেত্রে তথ্য ও উপাত্ত সংগ্রহ করে এবং লংঘনের ব্যাপারটি প্রয়োজন হলে আমত্মর্জাতিক পর্যায়ে তুলে চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে সংশোধনের প্রচেষ্টা চালায়। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল এ ধরনের প্রতিষ্ঠান।

 

সভ্য/সুশীল সমাজ: সভ্য/সুশীল সমাজ বলতে  বোঝায় সেই সুসংগঠিত সমাজকে যারা জাতি ও দেশের অভিভাবক ও পরামর্শদাতা। সমাজের শিক্ষাবিদ, লেখক, সাহিত্যিক, বিজ্ঞানী, কবি, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, অবসরপ্রাপ্ত আমলা, আইনজ্ঞ, বুদ্ধিজীবী প্রমুখের সমন্বয়ে গঠিত হয় সভ্য/সুশীল সমাজ। তারা সরকার, রাজনীতিক বা দেশের কর্ণধারদের ক্ষমতার বাইরে থেকে ভুলত্রম্নটি ধরিয়ে দেন এবং ভবিষ্যত সমৃদ্ধি ও গণতন্ত্রায়নের জন্য সময়ে সময়ে পরামর্শ দিয়ে থাকেন। সমাজের সকল বিবেকবান মানুষই সুশীল সমাজের সদস্য।

 

OSD: OSD-এর পূর্ণরূপ  Office on Special Duty. সাতটি কারণে সরকারি কর্মকর্তাদের OSD করা হয়ে থাকে। যথা- ১. জনস্বার্থে/প্রশাসনিক প্রয়োজনে ২. উচ্চতর পদে পদোন্নতির পর ৩. নিয়োগ বা প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণের জন্যে ৪. অবসর প্রস্ত্ততিকালীন বেতন-ভাতাদি প্রদানের সুবিধার্থে ৫. অসুস্থতা বা ব্যক্তিগত কারণে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ৬. বিভাগীয় দুর্নীতি মামলা রম্নজু হলে এবং ৭. তিন মাসের অধিক ছুটির ক্ষেত্রে।

 

কম্পিউটার ভাইরাস: কম্পিউটার ভাইরাস প্রোগ্রাম প্রস্ত্ততকারী কর্তৃক তৈরী একপ্রকার প্রোগ্রাম যেগুলো কম্পিউটার সিস্টেমে জমা করে রাখা সফটওয়ার এবং উপাত্তকে ধ্বংস করে দেয়। ইন্টানেটে ডাউনলোডিং, ই-মেইল এর এটাচ্ম্যান্ট, পাইরেটেড সফটওয়ার ব্যবহার, ভাইরাস আক্রামত্ম নেটওয়ার্ক সার্ভার, ভাইরাস আক্রামত্ম পেইন ড্রাইভ ইত্যাদি উৎস থেকে পিসিতে ভাইরাস আসতে পারে।

 

অ্যামিকাস কিউরিয়াই: Amicus Curiae পরিভাষাটি ল্যাটিন ভাষার যা একবচনে Amicus এবং বহুবচনে Amici। Amicus Curiae দ্বারা ‘আদালতের বন্ধু’ বুঝায়। অ্যামিকাস কিউরিয়াই বলতে একজন ব্যক্তি বা একটি সংগঠনকে বোঝায় যিনি বা যারা মামলার কোনো পক্ষ নয়, কিন্তু আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে তথ্য অথবা পরামর্শের মাধ্যমে আদালতের কাজে সহায়তা করেন। অ্যামিকাস কিউরিয়াই কোনো আইনের প্রশ্ন বা ঘটনার প্রশ্নে তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্য পেশ করেন, যা আদালতকে সঠিক সিদ্ধামেত্ম পৌঁছাতে সহায়তা করে। অ্যামিকাস কিউরিয়াইয়ের বক্তব্য সম্পূর্ণরূপে আদালতের বিবেচনাধীন বিষয়। এ বক্তব্য আদালতের উপর বাধ্যতামূলক নয়। রোমান আইনে সর্মপ্রথম অ্যামিকাস কিউরিয়াই সম্পর্কিত ধারণা ও বিধান বিকশিত হয়েছিল।

 

ধর্মীয় স্বাধীনতা : কোনো ব্যক্তি বা সম্প্রদায় সরকারি বা বেসরকারিভাবে তার ধর্মীয় কার্যক্রম ও বিশ্বাস, শিক্ষা ও চর্চার ক্ষেত্রে যে স্বাধীনতা ভোগ করে তাই ধর্মীয় স্বাধীনতা। ধর্মীয় স্বাধীনতা ধারণটি ধর্ম পরিবর্তন করা অথবা কোনো ধর্মের অনুসারী না হওয়ার সাথেও সংশিস্নষ্ট। বাংলাদেশ সংবিধানের ৪১ (১) ক-তে বলা হয়েছে, প্রত্যেক নাগরিকের যে কোনো ধর্ম অবলম্বন, পালন বা প্রচারের অধিকার রয়েছে। (খ)-তে বলা হয়েয়ে, প্রত্যেক ধর্মীয় সম্প্রদায় ও উপসম্প্রদায় নিজস্ব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান স্থাপন, রক্ষণ ও ব্যবস্থাপনার অধিকার রয়েছে।

 

ন্যায়পাল : ন্যায়পাল হলেন অতি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন একজন সরকারি কর্মকর্তা যিনি সরকার বিশেষত প্রশাসনের যে কোনো দফতর, বিভাগ বা কর্মকর্তার বিরম্নদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের সরাসররি তদমত্ম করতে পারেন। বাংলাদেশ সংবিধানের ৭৭ নং অনুচ্ছেদে ন্যায়পাল নিয়োগের বিধান রয়েছে।

 

ডগমা: প্রথম দিকে ‘ডগমা’ বলতে বোঝানো হত অন্ধ বা গোঁড়ামিপূর্ণ ধর্মমতকে। বর্তমানে, যুক্তিতর্কের তোয়াক্কা না করে যেকোনে একটি রাজনৈতিক, সামাজিক বা অর্থনৈতিক দর্শন বা মতবাদে বিশ্বাস করাকেও ডগমা বলা হয়। এক কথায় ডগমা হল অন্ধ বিশ্বাস বা মতবাদ।

 

শ্বেতপত্র: সমকালীন অর্থনৈতিক বা সামাজিক কোনো গুরম্নত্বপূর্ণ বিষয়ে সরকারি নীতির উপর সরকার যে লিখিত বিবৃতি প্রদান করে সেটাকেই শ্বেতপত্র বলে। সাধারণ সামাজিক বা অর্থনৈতিক কোনো গুরম্নত্বপূর্ণ বিষয়ে আইন প্রণয়নের পূর্বে জনমত যাচাইয়ের উদ্দেশ্যে শ্বেতপত্র প্রকাশ করা হয়। অনেক সময় বিরোধী দল বা জনগণের তরফ থেকেও কোনো জনগুরম্নত্বপূর্ণ বিষয়ে যে লিখিত বিবৃতি প্রদান করা হয় তাও শ্বেতপত্রের পর্যায়ভুক্ত। প্রায় সরকারই লেনদেনের ভারসাম্য, জাতীয় আয়-ব্যয়, অর্থনৈতিক জরিপ ইত্যাদির উপর প্রয়োজনে এরূপ বিবৃতি বা শ্বেতপত্র প্রকাশ করে থাকে।

 

জিনোম সিকোয়েন্স: মাত্র চারটি বর্ণ এ, সি, জি এবং টি দিয়ে তৈরি হয় আমাদের সবার জীবনে গল্প। সামান্য অনুজীব থেকে শুরম্ন করে বহুকোষী মানুষ সবার ক্ষেত্রেই একই বিষয় প্রযোজ্য। বাংলা ভাষায় ৫০টি  বর্ণের সাহায্যে যেমন সব কথা বলা বা লেখা যায় তেমনি কোটি কোটি এ, সি, জি এবং টি এর বিন্যাস সমাবেশে লেখা আছে সব প্রানের নীলনকশা ‘জিনোম’। একটি প্রাণীর জিনোমে লেখা থাকে তার সব বৈশিষ্ট্য। তাই জিনোম অনুক্রম জানতে পারলে কোন অংশটি পরিবর্তন করলে ওই প্রাণীর মধ্যে কী ধরণের পরিবর্তন আনা সম্ভব তা বের করা যায়।

 

ভিওআইপি: ভিওআইপি এর পূর্ণরূপ হচ্ছে-Voice Over Internet Protocal. এটি ইন্টারনেটের মাধ্যমে ফোন বা মোবাইল দিয়ে বিশ্বের এক দেশ থেকে অন্য দেশে কথা বলা এমনকি একই দেশের এক স্থান থেকে অন্য স্থানে কথা বলার একটি পদ্ধতি বিশেষ। তবে, এক্ষেত্রে অবশ্যই ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। এ পদ্ধতিতে দেশ থেকে বিদেশে কথা বললে অরিজিনেশন এবং বিদেশ থেকে থেকে দেশে কথা বললে টারমিনেশন হয়। যেমন বাংলাদেশ থেকে অন্য দেশে (অরিজিনেশন) কল করলে ইন্টারনেটের খরচসহ ঐ দেশের লোকাল কল মূল্য বা কোনো দেশে যদি লোকাল কলের মূল্য না থাকে তবে ফ্রি কল করা যায়। এতে নামমাত্র ইন্টারনেট বিল আসে। আর এই সুযোগের চরম অপব্যবহার করে আমাদের দেশের মোবাইল কোম্পানিগুলো শত শত কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

Order of Precedence: Order of Precedence-এর শাব্দিক অর্থ ‘অগ্রবর্তিতার কর্তৃত্ব’। প্রকৃতপক্ষে এটা রাষ্ট্রের বা সরকারের বিভিন্ন পদে আসীন লোকদের তুলনামূলক অবস্থান নির্দেশ করে। Order of Precedence-এ যে সত্মর বর্ণনা করা হয় তা রাষ্ট্রীয় ও অন্যান্য উপলক্ষ্যে পালিত হয়ে থাকে। Order of Precedence-এর পর্যায়ক্রমিক প্রথম ৫টি পদ হলো-(১) রাষ্ট্রপতি, (২) প্রধানমন্ত্রী (৩) স্পিকার (৪) প্রধান বিচারপতি ও সাবেক রাষ্ট্রপতিবৃন্দ এবং (৫) কেবিনেট মন্ত্রীবর্গ, চিফ হুইপ, ডেপুটি স্পিকার ও সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা।

 

আদালত অবমাননা (Contemt of Court): আদালত অবমাননা বলতে কোর্টের কোনো আদেশ মান্য করতে অস্বীকার করা, কোনো আদালত বা বিচারকদের প্রতি সম্মানের অনুপস্থিতি ইত্যাদিকে বুঝায়। আদালত কর্তৃক পরিচালিত আইনের শাসনকে অবজ্ঞা করা, এর পদ্ধতিকে তাচ্ছিল্যসহকারে এড়িয়ে যাওয়া কিংবা হসত্মক্ষেপ করাও আদালত অবমাননার শামিল। আদালত অবমাননা হতে পারে যেসব কারণে-(১) আদালতের মর্যাদাহানিকর কোন কিছু করা বা বলা (২) মকদ্দমার সাথে সংশিস্নষ্ট কোনো পক্ষকে গালিগালাজ করা (৩) কোনো মামলার রায়ের ব্যাপারে বিরূপ মমত্মব্য করা (৪) এমন কোন লেখা প্রকাশ করা যা আদালতের মর্যাদাহানি করে, গুরম্নত্ব বা ক্ষমতা হ্রাস করে বা বিচারের স্বাভাবিক গতিপ্রবাহকে বাধাগ্রসত্ম করে ইত্যাদি।

 

মোবাইল কোর্ট: কোনো বিশেষ আইন করলে তার বিরম্নদ্ধে শাসিত্মর ব্যবস্থা আছে। এই ধরণের অপরাধ যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ম্যাজিস্ট্রেট এর নিকট উপস্থাপনের পর এর বিচার করা হয়। বিধিবদ্ধ আইন ও নিয়ম কানুন ভঙ্গের বিষয়াদি তাৎক্ষণিক এবং যথাযথভাবে খুঁজে বের করা এবং বিচার সম্পাদন করাই হচ্ছে Mobile Court-এর কাজ। এক্ষেত্রে মামলাসমূহ ঘটনাস্থলেই তাৎক্ষণিকভাবে নিষ্পত্তি করা হয়। এটা সংশিস্নষ্ট সকলের জন্য যেমন সুবিধাজনক, তেমনি এটি অপরাধের পুনঃপুন সংঘটন রোধ করে।

 

ই-জুডিসিয়ারি: ইলেকট্রনিক্স পদ্ধতিতে বিচারকার্য পরিচালনাকে ই-জুডিসিয়ারি বলে। এক্ষেত্রে কারাগার ও কোর্টের মধ্যে ভিডিও লিংকেজ স্থাপন করা হয়। কোর্টে একটি ভিডিও লিংকেজ থাকে, আবার কারাগারে নির্ধারিত কক্ষেও একটি লিংকেজ থাকে। কোর্ট এর মাধ্যমে আসামীর হাজিরা নেন ও তার সাথে কথা বলেন।

 

জুরিস প্রম্নডেন্স: এটি একটি ল্যাটিন শব্দ এবং এর অর্থ হচ্ছে আইনবিজ্ঞান। যে বিজ্ঞান Civil Law নিয়ে আলোচনা করে তাই জুরিস প্রম্নডেন্স। Civil Law বলতে আদালত কর্তৃক বলবৎযোগ্য প্রচলিত আইনসমুহকে বুঝায়। জুরিস প্রম্নডেন্স আইনের উদ্দেশ্য, বিকাশ, কার্যপ্রণালী ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করে।

 

প্রটোকল (Protocal): কূটনেতিক রীতিপদ্ধতির নিয়মকানুন বিশেষত যা সার্বভৌম রাষ্ট্রসমূহের প্রতিনিধি বা অন্যান্য বিভিন্ন পর্যায়ে কর্মকর্তাদের স্বীকৃত পদমর্যাদা অনুযায়ী সরকারি আদান- প্রদানের ক্ষেত্রে যা প্রয়োগ করা হয়।

 

ই-কমার্স: ইন্টারনেট ব্যবহার করে ক্রেতা বিক্রেতার মধ্যে পণ্যদ্রব্য ও সেবা কেনা বেচা সংক্রামত্ম যে আর্থিক লেনদেন হয় তাকে ই-কমার্স বলে। এক্ষেত্রে উৎপাদনকারী বা বিক্রেতা Web Page এ পণ্য সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্যাদি প্রদর্শন করেন। ক্রেতা এসব তথ্য দেখে Web Page-এর ফরমায়েশ পূরণ করে পাঠায় এবং ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ করেন। উৎপাদনকারী/বিক্রেতা নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ক্রেতার নিকট পণ্য পৌঁছে দেন।

 

ওজোন সত্মর: ভূপৃষ্ঠ থেকে ৬৫ মাইল উপরে ওজোন বায়ুম-লের উপরিভাগে একটি আচ্ছাদনের সৃষ্টি করে যা ওজোন সত্মর বা ওজোনোস্ফিয়ার নামে পরিচিত। ওজোন সত্মর জীব জগতের জন্য ক্ষতিকর মহাজাগতিক রশ্মি ও অতিবেগুনি রশ্মি শোষণ করে পরিবেশের ভারসাম্য নিশ্চিতপূর্বক প্রাণীকুলকে রক্ষা করে।

 

গ্রিন হাউস ইফেক্ট: গ্রিন হাউস ইফেক্ট কথাটি সর্বপ্রথম ১৮৯৬ সালে ব্যবহার করেন সুইডিশ রসায়নবিদ সোভনটে আরহেনিয়াস (Svante Arrhenius)। পৃথিবীর বায়ুম-লের গড় তাপমাত্রা বৃদ্ধির মাধ্যমে পরিবর্তনশীল আবহাওয়ার প্রতিক্রিয়াকে গ্রিন হাউস ইফেক্ট বলে। বায়ুম-লে CFC, CO2, CH4 ও N2O প্রভৃতি গ্যাস দ্বারা সত্মর সৃষ্টি হওয়ার কারণে বায়ুম-লের নিম্নসত্মরে তাপ আটকে পড়ে এবং সার্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায়। এ তাপমাত্রা বৃদ্ধিজনিত কারণে পৃথিবী পৃষ্ঠে যে প্রভাব পড়ে তাই গ্রীন হাউস ইফেক্ট।

 

প্রতিপাদ স্থান (Antipode): ভূপৃষ্ঠের যে কোনো বিন্দু থেকে পৃথিবীর কোনো কল্পিত ব্যাস পৃথিবীর কেন্দ্র ভেদ করে ভূপৃষ্ঠের অপরদিকে যে বিন্দুতে স্পর্শ করে, সেই বিন্দুকে প্রথম বিন্দুর প্রতিপাদ স্থান বলে। যেমন-ঢাকার প্রতিপাদ স্থান হচ্ছে প্রশামত্মমহাসাগরের চিলির নিকট অবস্থিত।

 

চন্দ্রগ্রহণ (Lunar Eclipse): পৃথিবী তার নিজ অক্ষের চারিদিকে ঘোরার পাশাপাশি সূর্যের চারদিকেও ঘুরছে। এভাবে ঘুরতে ঘুরতে কোনো এক পূর্ণিমা তিথিতে পৃথিবী সূর্য ও চন্দ্রের মাঝখানে এসে পৌঁছায়। এমতাবস্থায় পৃথিবীর ছায়া চন্দ্রের উপর পড়ে এবং চন্দ্রকে পৃথিবী থেকে দেখা যায় না। একে বলা হয় চন্দ্রগ্রহণ।

 

সূর্যগ্রহণ (Solar Eclips): চন্দ্র পৃথিবীর চারদিকে ঘুরতে ঘুরতে কোনো এক অমাবস্যার তিথিতে সূর্য এবং পৃথিবীর মাঝখানে এসে পৌঁছায়। এ সময় সূর্যের আলো চন্দ্র দ্বারা বাধাপ্রাপ্ত হয় এবং চন্দ্রের ছায়া পৃথিবীর কিছু অংশে পড়ে। ফলে পৃথিবীর কোনো স্থান থেকে সূর্যের কিছু অংশ দেখা যায় না। একে সূর্যগ্রহণ বলে।

 

কমিশন: কমিশন হচ্ছে কাউকে কোনো কাজ করার দায়িত্ব প্রদান করা। আইনের ভাষায়, কোনো কোনো বিশেষ অবস্থায় আদালত কিছু কিছু কাজ না করে অন্যকে দিয়ে করিয়ে নেয়, একে কমিশন বলে। আদালত যদি কোনো উকিলকে কমিশন হিসাবে নিয়োগ করে তাহলে তাকে বলে উকিল কমিশন। সাধারণত কোনো ব্যক্তির জবানবন্দি গ্রহণ করা, স্থানীয়ভাবে তদমত্ম  করা প্রভৃতির জন্য কমিশন নিয়োগ করা হয়।

 

রম্নলস অব বিজিনেস: যে দলিল অনুযায়ী বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণলয় বা ডিভিশনের মধ্যে বিভিন্ন কার্যাবলী বন্টন করা হয় এবং কে কোন দায়িত্ব পালন করবে, কিভাবে পালন করবে, কোনো মন্ত্রণালয় বা বিভাগের কার্যাবলী কি হবে তা নিধারণ করা হয় তাই হলো রম্নলস অব বিজিনেস।

 

ছিয়াত্তরের মন্বমত্মর: বাংলা ১৭৬৫ সালে লর্ড ক্লাইভ দ্বিতীয়বার লর্ড হয়ে বাংলায় এসেই এক নতুন ব্যবস্থা চালু করেন। এ ব্যবস্থায় দেওয়ানি ক্ষমতা লাভ করে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি আর শাসনব্যবস্থা দেখাশুনা করেন নবাব। এ ব্যবস্থায় নবাবের ক্ষমতা অনেক হ্রাস পায়। এ সময় কোম্পানির দুঃশাসনে বাংলা ১১৭৬ সনে (ইংরেজি ১৭৭০ সালে) এ দেশে এক ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ দেখা দেয়। ইতিহাসে এটি ‘ছিয়াত্তরের মন্বমত্মর’ নামে পরিচিত।

 

প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীকরণ: পরিকল্পনা ও সিদ্ধামত্ম গ্রহণ বা ব্যবস্থাপনার কর্তৃত্ব কেন্দ্রীয় সরকার ও তার এজেন্সিসমূহের নিকট থেকে স্থানীয় সরকার, সরকারি, আধাসরকারি ও অন্যান্য আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষের নিকট হসত্মামত্মর বা অর্পণ করাকে প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীকরণ বলে।

 

সামাজিক মূল্যবোধ: মূল্যবোধ হলো ইচ্ছার একটি মানদ- যা মানুষকে পরিচালিত করে। সামজিক মূল্যবোধ হলো সমাজ সম্পর্কে ধ্যান ধারণা। R. T. Popenoe-এর মতে, ভালোমন্দ, ঠিক-বেঠিক, কাঙ্ক্ষিত-অনাকাঙ্ক্ষিত বিষয় সম্পর্কে সমাজের সদস্যদের যে ধারণা তার নামই সামাজিক মূল্যবোধ।

 

আল-কুদস: পবিত্র আলা-কুদস হচ্চে মুসলমানদের প্রথম কিবলা, মানবজাতির ঐতিহাসিক ঐক্যের কেন্দ্রবিন্দু এবং হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এর মিরাজ গমনের যাত্রাস্থল। এটি জেরম্নজালেম নগরীতে অবস্থিত।

 

 

ডিএনএ: ডিএনএ এর পূর্ণরূপ হচ্ছে Deoxyribonucleic acid. এটা জীবকোষের নিউক্লিয়াসে বিদ্যমান সবচেয়ে গুরম্নত্বপূর্ণ প্রাণ রাসায়নিক যৌগ। ক্রোমোজোম তথা জিনের সাংগঠনিক উপাদানরূপে ডিএনএ জীবের প্রজাতি, সত্তা ও বংশগতি নিয়ন্ত্রণ করে। কোষের অধিকাংশ ডিএনএ ক্রোমোজোমের উপাদান হিসেবে নিউক্লিয়াসে বিরাজ করে।

 

অপটিক্যাল ফাইবার: অপটিক্যাল ফাইবার হলো অত্যমত্ম বিশুদ্ধ, অতি কম মাত্রার ক্ষয় এবং বিচ্ছুরণ ক্ষমতাসম্পন্ন কাচ তন্তু বিশেষ, যা উচ্চ কম্পাঙ্কের আলোক পালস প্রেরণ ভিত্তিক টেলিযোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহৃত হয়। অপটিক্যাল ফাইবারের তিনটি অংশ থাকে-কোর, স্কাডিং ও জ্যাকেট।

 

ইনজাংশন: আদালত যে আদেশ বা Decree দ্বারা মামলার কোনো পক্ষকে কোনো একটা বিশেষ কাজ করা বা না করার নির্দেশ দেয় তাকে ইনজাংশন বলে। ইনজাংশন লিখিত আকারে হয়ে থাকে।

 

গেজেট বিজ্ঞপ্তি: যেসব বিষয় সরকার লিখিতভাবে সরকারি ও আধা-সরকারি অফিস এবং জনগণকে অবহিত করে, তাকে গেজেট বিজ্ঞপ্তি বলে। সাধারণভাবে অধ্যাদেশ, আইন, আদেশ-নিষেধ, গেজেটেড কর্মকর্তাদের নিয়োগ, বদলি, পদোন্নতি ইত্যাদি বিষয় সরকারি গেজেট বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়।

 

সদর দপ্তর (Head Office): কোনো প্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্মকর্তা যে অফিসে বসে যাবতীয় সিদ্ধামত্ম গ্রহণ, প্রধান কার্য সম্পাদন ও আর্থিক ব্যয় নিয়ন্ত্রণ করে থাকেন সে অফিসকে সদর দপ্তর বলা হয়।

 

স্ট্যাম্প (Stamp): সরকার কর্তৃক অনুমোদিত এবং ডিজাইনকৃত ক্ষুদ্র চারকোণ বিশিষ্ট একটি দলিল বা কাগজ, যা কোনো খামের উপর লাগিয়ে দেওয়া হয় এবং যার মাধ্যমে প্রমাণিত হয় যে, ডাক বিভাগকে ব্যবহারের জন্য ডাক মাশুল পরিশোধ করা হয়েছে। এ ধরণের ক্ষুদ্র কাগজ/দলিলকে স্ট্যাম্প বলে।

 

জাতীয় আর্কাইভ (National Archive): জাতীয় আর্কাইভ জাতীয় গুরম্নত্বপূর্ণ দলিল দসত্মাবেজ ও প্রামাণ্য গ্রন্থাদি সংরক্ষণ করে। এটি ১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। আর্কাইভ কোনো প্রতিষ্ঠান, স্থান, পরিবার, ব্যক্তি, সরকার ইত্যাদির ঐতিহাসিক দলিল দসত্মাবেজ সংরক্ষণ করে থাকে।

 

পূর্বসংস্কার (Prejudice): পূর্বসংস্কার বা Prejudice শব্দটির আর একটি সমার্থক শব্দ হচ্ছে পূর্বচিমত্মা বা Prejudgment. কোনো বিষয় বা ঘটনা সঠিক তথ্যের নিরিখে বিচার-বিশেস্নষণ ছাড়াই সেই বিষয় বা ঘটনা সম্পর্কে পূর্বেই সিদ্ধামত্ম প্রদান করাকে পূর্বসংস্কার বলে। সে অর্থে পূর্বসংস্কারকে পক্ষপাতমূলক ধারণাও বলা যায়। পূর্বসংস্কার জন্মগত নয়। এটা মূলত পারিপার্শ্বিক অবস্থা থেকে গৃহীত হয়ে থাকে। জাতিগত, ধর্মগত, বর্ণগত প্রভৃতি যে কোনো ভিন্ন সম্প্রদায়ের প্রতি বিদ্বেষ বা পক্ষপাতমূলক মনোভাবই মূলত পূর্বসংস্কার।

 

ডেলাইট সেভিং টাইম (DST): ডেলাইট সেভিং টাইম হচ্ছে একধরণের সময় পুনঃনির্ধারণ। এ কাজটি সরকার করে থাকে। প্রতিবছর গ্রীষ্মের শুরম্নতে ঘড়ির কাঁটাকে এক ঘন্টা করে এগিয়ে দেওয়া হয়। আবার গ্রীষ্মের শেষে ঘড়ির কাঁটাকে আগের জায়গায় নিয়ে আসা হয়। গ্রীষ্মে ঘড়ির কাঁটাকে এক ঘন্টা এগিয়ে দেয়ার ফলে কৃত্রিম আলোর ব্যবহার কমে আসে এবং সূর্যের আলোর সর্বোচ্চ ব্যবহার সম্ভব হয়। ১৮৭৪ সালে বেঞ্জামিন ফ্রাঙ্কলিন প্রথম দিনের আলো সংরক্ষণের বিষয়ে কথা বলেন। তবে ঘড়ির কাঁটা এক ঘন্টা এগিয়ে দেয়ার বিষয়ে সেই সময় তিনি কিছু বলেননি। ১৯০৫ সালে উইলিয়াম উইলেট নামে একজন বিল্ডার সর্বপ্রথম ডেলাইট সেভিং টাইম এর ধারণাটি উদ্ভাবন করেন। ২১ মে ১৯১৬ সালে যুক্তরাজ্য সর্বপ্রথম ডিএসটি পদ্ধতি চালু করে। রাশিয়া এবং আরো কয়েকটি ইউরোপিয়ান দেশ অপেক্ষা করে আরো একবছর। এরপর অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা তাদের দেশে এ পদ্ধতি চালু করে।

 

 

কোয়ান্টাম তত্ত্ব: পরমাণু বা অ্যাটম বা সাব-অ্যাটমিক জগতের কার্যাবলী ব্যাখ্যা করার আধুনিক বৈজ্ঞানিক তত্ত্ব। ১৯০০ সালে কৃষ্ণকায় বস্ত্তর বিকিরণ ব্যাখ্যা করার সময়  জার্মান বিজ্ঞানী ম্যাক্স পস্নাঙ্ক (ম্যাক্স পস্নাঙ্ক: ১৮৫৮-১৯৪৭) প্রথম কোয়ান্টাম ধারণা প্রকাশ করেন।  কোনো শক্তির বিকিরণ অবিচ্ছিন্নভাবে নির্গত হয় না, বরং ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শক্তিগুচ্ছ হিসেবে নির্গত হয়। এ ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শক্তিগুচ্ছকে কোয়ান্টাম বলা হয়। যেমন আলোর কোয়ান্টাম হলো ফোটন। ১৯০৫ সালে আলোক তড়িৎ ক্রিয়া ব্যাখ্যা করার সময় আইনস্টাইন প্রমাণ করেন যে, কিবিরণ শুধু নির্গত হওয়ার সময় কোয়ান্টাম আকারে নির্গত হয় না, বরং স্থানামত্মর গমনের সময় গুচ্ছ আকারেই গমন করে। পরবর্তীকালে নীলস বোর (১৮৮৫-১৯৬২) পরমাণু মডেল তৈরি করার সময় লক্ষ্য করলেন, বস্ত্তকণা মাত্রই স্থির অবস্থায় যেখানে সেখানে থাকে না, বরং সুনির্দিষ্ট শক্তিসত্মর বা কোয়ান্টাম সত্মরে থাকে। এভাবে বিভিন্ন বিজ্ঞানীর অবদানে কোয়ান্টাম বিজ্ঞানের ভিত্তি গড়ে ওঠে। বর্তমানে সাব-অ্যাটমিক স্কেলে কোয়ান্টাম তত্ত্বে সার্থক প্রয়োগ দেখা যায়। কোয়ান্টাম তত্ত্ব যে শুধু বিশুদ্ধ বিজ্ঞানে বিপস্নব ঘটিয়েছে তা নয়, বরং কোয়ান্টাম তত্ত্বের প্রয়োগে ইলেক্ট্রনিক্সের বিশাল সম্ভাবনার দ্বার উন্মুক্ত হয়েছে।

 

গ্রাউন্ড জিরো: আমেরিকার গর্ব, বিশ্ব বাণিজ্য কেন্দ্রের ১১০ তলা বিশিষ্ট ‘টুইন টাওয়ার’ ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর সন্ত্রাসী হামলায় সম্পূর্ণ ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়। টুইন টাওয়ারের এ ধ্বংসপ্রাপ্ত স্থান ‘গ্রাউন্ড জিরো’ নামে পরিচিত। প্রতিদিন হাজার হাজার দর্শনার্থী এখানে ছুটে আসে ভয়ঙ্কর হামলার বিভিন্ন আলামত দেখতে। বর্তমানে স্থানটিতে ১৭৭৬ মিটার উচ্চতা বিশিষ্ট বহুতল ভবন নির্মিত হয়েছে।

 

নমুনা জরিপ: কোন একটি সমগ্রকের প্রতিনিধিত্বকারী একটি অংশ নির্বাচন করে এর প্রতিটি একক থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হলে তাকে নমুনা জরিপ বলে। পদ্ধতিগতভাবে জরিপের উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে স্বল্প ব্যয়ে ও স্বল্প সময়ে এবং দক্ষতার সাথে প্রয়োজনীয় সংখ্যক উপাত্ত এ প্রক্রিয়ায় সংগ্রহ করা যায়। একে পিথক একটি অনুসন্ধান প্রক্রিয়া বলা যেতে পারে। যে কোন সামাজিক ও অর্থনৈতিক কর্মকা- সম্পর্কে গবেষণার জন্য এ পদ্ধতি সফলভাবে প্রয়োগ করা যায়। এটি সমগ্রকের প্রতিনিধিত্বশীল একটি ক্ষুদ্র অংশ। এতে সমগ্রকের প্রায় সকল বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান থাকে। সুতরাং একে শুমারি জরিপের একটি বিকল্প পদ্ধতি বলা যেতে পারে।

 

Gerry Monder: জেরি ম্যান্ডার অর্থ অবৈধভাবে কোন নির্বাচনী অঞ্চলকে এমনভাবে ভাগ করা, যাতে নির্বাচনের ফলাফল নিজেদের পক্ষে নিয়ে আসা সম্ভবপর হয়। ক্ষমতাসীন দল বা ব্যক্তি কর্তৃক কোন নির্বাচনে, বিশেষত পার্লামেন্ট নির্বাচনে বিরোধীদল বা ব্যক্তি বিশেষের বিরম্নদ্ধে স্বীয় দল বা ব্যক্তি বিশেষকে সুবিধাদানের উদ্দেশ্যে অবৈধ ও অস্বাভাবিকভাবে নির্বাচনী অঞ্চল ভাগ করাকেই জেরি মান্ডার বলে। এক সময় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটচস রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল বিরোধী দলকে নির্বাচনে কাবু করার উদ্দেশ্যে এভাবে নির্বাচনী এলাকা ভাগ করে। এ সময় উক্ত রাজ্যের গভর্ণর ছিলেন এলব্রিজ জেরি। তার নামানুসারে এরূপ অবৈধ ও অস্বাভাবিক নির্বাচনী এলাকা ভাগকে Gerry Monder বলে।

 

এক দেশ দুই নীতি: One country two policy বা ‘এক দেশ দুই নীতি’র দেশ হচ্ছে চীন। ১৯৯৭ সালের ৩০ জুন মধ্যরাতে হংকং চীনের অমত্মর্ভূক্ত হওয়ার প্রেক্ষিতে চীন সরকার এ নীতি প্রণয়ন করে। চীনের শাসনাধীনে যাওয়ার পূর্বে হংকংয়ের অর্থনীতি ছিল পুঁজিবাদী ব্যবস্থা। অন্যদিকে চীনের অর্থব্যবস্থা ও রাজনৈতিক ব্যবস্থা ছিল সমাজতান্ত্রিক। এ অবস্থায় চীন সরকার হংকংয়ের পূর্ব অর্থনৈতিক ব্যবস্থা টিকিয়ে রাখার স্বার্থে উক্ত নীতি প্রণয়ন করে।

 

প্রশাসনিক স্বচ্ছতা: সরকারী নীতি, পরিকল্পনা, প্রকল্প বা আইন যাদেরকে প্রভাবিত করে বা যাদের উপর অভিঘাত সৃষ্টি করে তাদেরকে ঐসব বিষয়ের সূত্র, উদ্দেশ্য এবং বাসত্মবায়ন প্রক্রিয়া সম্পর্কে অবহিত করাকে প্রশাসনিক স্বচ্ছতা বলে।

 

গডফাদার: গডফাদারের সাধার অর্থ হচ্ছে ধর্ম পিতা। কিন্তু বর্তমানে গডফাদার বলতে বোঝানো হয় এমন প্রবল প্রতিপত্তিশালী ব্যক্তিকে যিনি পর্দার আড়ালে থেকে কোন চোরাচালানি দল, মাদকদ্রব্য  পাচারকারী দল, সন্ত্রাসী বা গুন্ডাবাহিনী, গণিকাচক্র বা অনুরূপ কোন অপরধী চক্র বা মাফিয়াকে পরিচালনা করে।

 

চরমপত্র: সরকার বা কোন কর্তৃপক্ষের নিকট একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে দাবি মেনে নেয়ার জন্য চূড়ামত্ম আহবান জানিয়ে এবং এ নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সংশিস্নষ্ট দাবি মানা না হলে চরম ব্যবস্থা যেমন হরতাল ধর্মঘট, অবরোধ ইত্যাদি গ্রহণের হুমকি দিয়ে যে পত্র প্রাদন করা হয় তাকেই চরমপত্র বলে।

 

ছিটমহল: কোন একটি রাষ্ট্রের এমন একটি এলাকা, যে এলাকা চতুর্দিক থেকে অন্য একটি রাষ্ট্র দ্বারা পরিবেষ্টিত থাকে তাকে ছিটমহল বলে। ছিটমহলের সাথে সংশিস্নষ্ট রাষ্ট্রের মূল ভূখ–র যোগাযোগ ও যাতায়াত ব্যবস্থা ভিন্ন রাষ্ট্রের মধ্য দিয়ে ছাড়া সম্ভব নয়।

 

বাফার স্টেট: বিবদমান দুইটি বৃহৎ রাষ্ট্রের মধ্যে সংঘর্ষ বা সংঘাত এড়ানোর জন্য মাঝখানে সাধারণত যে ক্ষুদ্র রাষ্ট্রের সৃষ্টি করা হয় সেই রাষ্ট্রকেই বাফার স্টেট বলে।

 

ব্রেনওয়াশ: মসত্মক ধোলাই হলো কোন ব্যক্তির আদর্শগত বিশ্বাস বা মতবাদকে পরিবর্তন করে দেওয়ার প্রক্রিয়া। শারীরিক ও মানসিক চাপ, অত্যমত্ম ভালো ব্যবহার, অর্থনৈতিক সুবিধাদান, ভোগ বিলাসের সুবিধাদান, বিশেষ মর্যাদা দান, প্রশিক্ষণ, প্রোপাগান্ডা ইত্যাদিই হলো ব্রেন ওয়াশের প্রধান উপায়।

 

পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা: পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা হচ্ছে পাঁচ বছরের জন্য প্রণীত রাষ্ট্রীয় পরিকল্পনা। দেশের সম্পদ ও শ্রমশক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারের মাধ্যমে একটি জাতির সামগ্রিক জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের জন্য রাষ্ট্র কর্তৃক যে পাঁচ বছর মেয়াদি পরিকল্পনা করা হয় তাকেই পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা বলে।

 

সুশাসন: যে শাসন মানুষের সম্মতিতে স্বল্প সম্পদ ব্যয়ে কল্যাণ প্রয়োজন মেটানোর পাশাপাশি কল্যাণ নিশ্চিত করতে পারে তাকে সুশাসন বলে। বিশ্বব্যাংকের মতে ৯টি বিষয় সুশাসনের অমত্মর্ভুক্ত। এগুলো হলো- ১) স্বাধীন বিচার ব্যবস্থা ২) সরকারী কাজে দক্ষতা ৩) বৈধ চুক্তিতে নিয়োগ ৪) জবাবদিহিতামূলক প্রশাসন ৫) স্বাধীন সরকার নিরীক্ষক ৬) প্রতিনিধিত্বমূলক আইনসভার নিকট দায়বদ্ধতা ৭) আইন ও মানবাধিকার সংরক্ষণ ৮) বহুমুখী সাংগঠনিক কাঠামো এবং ৯) সংবাদপত্রের স্বাধীনতা।

 

হ্যাকিং: সাধারণভাবে হ্যাকিং বলতে বোঝায় অধিকার বা কর্তৃত্ব না থাকা সত্ত্বেও অন্যের কম্পিউটার, ওয়েবসাইট, ডাটাবেই্জ, নেটওয়ার্ক ইত্যাদির মধ্যে অনাধিকার অনুপ্রবেশ করে সেগুলো ব্যবহার করা, বিকৃত করা, নষ্ট করা ইত্যাদি।

 

জনমত: জনমত একটি বহুল প্রচলিত শব্দ। বিশেষত রাজনৈতিক পরিম-লে শব্দটির ব্যবহার সবচেয়ে বেশি। সাধারণ অর্থে, কোন নির্দিষ্ট বিষয় বা মূল্যবোধে আস্থাশীল একটি সামাজিক দলের মতামতকে জনমত বলে।

 

অলিখিত সংবিধান: অলিখিত সংবিধান বলতে বোঝায় এমন এক ধরনের সংবিধান যেখানে রাষ্ট্রীয় কাঠামো পরিচালনার বেশিরভাগ  অংশই লিখিত আকারে থাকে না। কিন্তু রাষ্ট্রের কাঠামো পরিচালনার মৌলিক কিছু কিছু অংশ লিখিত থাকে। একে অলিখিত সংবিধান বলে। যেমন-ব্রিটেনের শাসনতন্ত্র।

 

কোরাম: কোন সভার কাজ পরিচালনা করার জন্যে যে সংখ্যক সদস্যের উপস্থিতি প্রয়োজন সেই সংখ্যাকে কোরাম বলা হয়। প্রয়োজনীয় সংখ্যার চেয়ে সদস্যের উপস্থিতি কম হলে তাকে কোরাম সংকট বলে। যেমন-জাতীয় সংসদে ন্যূনতম ৬০ জন সাংসদ উপস্থিত থাকলে কোরাম পূর্ণ হয় অর্থাৎ সংসদ অধিবেশন পরিচালনা করা যায় আর ৬০ জনের কম হলে কোরাম সংকট বলে বিবেচিত হয় যার ফলে অধিবেশন পরিচালনা কোরাম পূর্ণ না হওয়া পর্যমত্ম বন্ধ রাখা হয়।

 

পশ্চিমা বিশ্ব: সাধারণভাবে ইউরোপীয় সংস্কৃতি বা ইউরোপীয়দের দ্বারা প্রভাবিত দেশই ‘পশ্চিমা বিশ্ব’ নামে পরিচিত। পশ্চিমা বিশ্বের মধ্যে রয়েছে-রাশিয়া, বেলারম্নশ ও ইউক্রেন ব্যতীত সকল ইউরোপীয় দেশ, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশসমুহ, দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *